গণপিটুনি!-গণরোষ,-সে এক দুঃসহ দৃশ্য!..

করণিক আখতার এর ছবি

 

গণমালিকেরা কারো কারো প্রতি আস্থা রেখে তাদেরকে সাময়িক কিছুদায়িত্ব দেওয়ার পর অবিশ্বাস নিয়ে সারাক্ষণ তাদের দিকে তাকিয়ে থাকে নাতবেসেই সীমিত দায়িত্বের প্রতি ঐ দায়িত্বপ্রাপ্তদের ক্রমাগত বাড়ন্ত উদাসীনতাপ্রকাশ পেতে থাকলে, মালিকেরা যখন উদাসীনদেরকে সরিয়ে রেখে নিজেরাই তাৎক্ষণিকক্ষয়পূরণে ব্যস্ত হতে বাধ্য হয়!-আমরা যেন নিত্য স্মরণ করি, কী ভয়াবহ ভীষণসেই এলোপাথাড়ি গণপদক্ষেপ! -গণপিটুনি! -গণরোষ, -সে এক দুঃসহ দৃশ্য! ..

কোনোবিশেষ দলের তাণ্ডবলীলা আর গণপিটুনি সমার্থক নয়

গণপিটুনিদাতারা নির্দলীয়বা নির্বিশেষ সর্বদলীয় জনসাধারণের সমন্বয়, গণতন্ত্রে যে সমন্বয়টিবিশৃঙ্খলাকারী এবং বিচারবিভাগ উভয়েরই অভিভাবক বা মালিক সমতুল্য

সীমাবদ্ধতাবা সাময়িক দুর্বলতার কারণে রাষ্ট্রের বিচার বিভাগের প্রতি যারাহুমকিস্বরূপ তারাও গণমালিকের গণপিটুনির নাগালের বাইরে নয়সঙ্গত কারণেই কেউগণপিটুনির শিকার হলে তার পক্ষ নিয়ে কোনো মামলা রাষ্ট্রের আদালতেগ্রহণযোগ্যতা পায় না 

কোথাও দলীয় আবরণে ক্যাডারসেজে, কোথাওবা নিজ নিজ পরিচয়ে সন্ত্রাসকর্মে জড়িত যারা, আসলে তারাআত্মহন্তাবাহিনীতে নিজেদের নাম লিখিয়েছে অভিভাবকদের অবহেলার সুযোগেযেকোনোসময়ে সন্ত্রাসক্ষেত্রে পুলিশবাহিনী পৌঁছানোর আগেই গণপিটুনিতে কারো মৃত্যুহলে, সমস্ত দায় মৃতের পরিবারের অভিভাবকের উপরেই বর্তায়

 

করণিক : আখতার২৩৯                         রঙ্গপুর  :  ০৭/০৯/২০১১খ্রি:

 

ভোট: 
No votes yet