মনোনয়ন সভায় মনোনীতের প্রতি

করণিক আখতার এর ছবি

মনোনয়ন সভায় মনোনীতের প্রতি

তোমাকে আমাদের কোনো ভালো করতে হবে না। নিজের ভালোর দিকে লক্ষ্য রাখবে, এটাই তোমার কর্তব্য জেনো।

আমরা তোমাকে আমাদের ওপর মালিক বা অভিভাবক বানাচ্ছি না। ভুলে যেয়ো না, প্রতিনিধি বানাচ্ছি আমরা তোমাকে। আমরা সুনির্দিষ্ট কিছু সাময়িক সীমাবদ্ধ দায়ভার তোমাকে দেবো, যা’ দীর্ঘমেয়াদি দাসত্বের বন্দিত্ব নয় কোনো চাকুরির মতো।

তুমি যেখানে যার প্রতিনিধি, সে-ই সেখানে তোমার মালিক কিম্বা অভিভাবক। এখানে তোমাকে প্রতিনিধি বানাতে পারলে, মনে রেখো, আমরাই তোমার অভিভাবক হয়ে থাকবো। তোমাকে অন্য কারো কাছে করুণাপ্রার্থী হওয়া থেকে মুক্ত রাখবো, এ আমাদের ঐক্যবদ্ধ শক্ত প্রতিজ্ঞা। আমাদেরকে অগ্রাহ্য ক’রে আত্মঘাতী হবার ঝুঁকি নিয়ো না।

নিশ্চয়ই তুমি চাইবে না আমরা লজ্জিত হই। --আত্মরক্ষাকে তোমার কর্তব্য হিসেবে গণ্য করেই তুমি দায়ভারমুক্ত হবে, এর চে’ বেশি প্রত্যাশা নেই আমাদের, আগেও ছিল না।

তোমার নিজের ভালো করতে গিয়ে তুমি আমাদের কোনো ক্ষতি না-করলে, ওতেই আমরা মেনে নেবো তুমি আমাদের জন্যে ভালো কিছু করেছো।

যতটুকু দায়ভার আমরা চাপিয়ে দেবো, সাধ্যমতো চেষ্টা চালিয়েও বহন করতে না-পেরে তুমি সসম্মানে স’রে গেলে, সেটাও তোমার জন্যে ভালো, দায়িত্বের চে’ বেশি কিছু করার চেষ্টা যদি তুমি চালাও, নিশ্চয়ই তা’ অবাধ্য ব্যক্তির স্বেচ্ছাচারিতা। কোনো স্বেচ্ছাচারীকে কেউ পছন্দ করে না, এ তোমার অজানা নয়, তোমার জানাটাকেই স্মরণে রেখো।

অতীতে যারা ছিল, তাদের মতো আবারো তুমি যদি সব ভুলে যাও তো, বার বার ভদ্রভাবে স্মরণ করিয়ে দিয়ে তোমাকে সতর্ক করা এবং সুরক্ষিত রাখা আমাদেরই কর্তব্য।

তোমাকে সসম্মানে ডেকে এনে জনসাধারণের মুক্ত সমাবেশে এতটুকু শুনিয়ে দেওয়াটা আমাদের গণদায়িত্বের মধ্যেই পড়ে। ভয় পেয়ো না। নির্ভয়ে এগিয়ে যাও। যেকোনো সংকটকালে তুমি চাইলেই আমাদেরকে তোমার নিকটতম উদ্ধারকর্মী রূপে পাবে। আমাদের ওপর আস্থা রেখে নির্ভর করতে কখনো লজ্জা পেয়ো না।

সার্বক্ষণিক প্রহরীরূপে দুর্ভেদ্য প্রাচীরের মতো, আমাদের মনোনীতদের যোগ্য অভিভাবক আমরাই এখানে, দণ্ডায়মান থাকবো, যেমন ছিলাম বিগতকালেও।

(রঙ্গপুর থেকে পরিবেশিত গণকরণিকা)
করণিক : আখতার২৩৯

ভোট: 
Average: 10 (1 vote)