কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ১৩ জুন ২০২৩, ১২:০০ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ

ভোট দিতেও বরিশালে যাননি মেয়র সাদিক

বরিশাল সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটের দিনেও দেখা মেলেনি বর্তমান মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর। তিনি আড়াই মাস ধরে ঢাকায় অবস্থান করছেন। চাচার নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় ছিলেন না তিনি। গতকাল সোমবার ভোট দিতেও যাননি।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহর ছেলে সাদিক এবারও দলের মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। কিন্তু আওয়ামী লীগ সেখানে প্রার্থী হিসেবে বেছে নেয় আব্দুর রব সেরনিয়াবাতের কনিষ্ঠ ছেলে আবুল খায়ের আবদুল্লাহ খোকন সেরনিয়াবাতকে। মনোনয়ন নিয়ে শুরু থেকেই চাচা-ভাতিজার মধ্যে বিভেদ চলছিল। এ বিভেদ ঘোচাতে দলের কেন্দ্রীয় নেতারা নানামুখী তৎপরতা চালান।

ভোট দিতে বরিশালে না যাওয়ার প্রসঙ্গে মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, দলের হাইকমান্ড আমাকে বলেছে, ঢাকায় অবস্থান করতে। নাসিম ভাই (আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম) তো আপনাদের সব বলেছেন।

তার বাবা আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ বরিশাল-১ (গৌরনদী-আগৈলঝাড়া) আসনের সংসদ সদস্য; তিনি সেখানকার ভোটার। দুজনেই ঢাকায় আছেন বলে জানান মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ।

সাদিক আবদুল্লাহ ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের সরকারি বরিশাল কলেজ কেন্দ্রের ভোটার। সোমবার ওই কেন্দ্রে ভোট দেন মেয়র প্রার্থী আবুল খায়ের। মেয়র সাদিক ভোট দিতে আসবেন কি না, জানতে চাইলে আবুল খায়ের এ বিষয়ে কথা বলবেন না বলে জানিয়ে দেন।

দলের মনোনয়ন নিশ্চিত করতে সাদিক আবদুল্লাহ গত ৪ এপ্রিল ঢাকায় যান। ওই দিন কয়েক হাজার অনুসারী লঞ্চঘাটে উপস্থিত হয়ে স্লোগান দিয়ে তাকে বিদায় জানান। স্থানীয় সরকার নির্বাচন-সংক্রান্ত মনোনয়ন বোর্ড ১৫ এপ্রিলের সভায় আবুল খায়ের আবদুল্লাহকে মনোনয়ন দেয়। এর পরই বরিশালের আওয়ামী লীগের রাজনীতির পটপরিবর্তন ঘটে। গত এক দশক সাদিকের দাপুটে সময়ে কোণঠাসা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা আবুল খায়েরকে ঘিরে নতুন বলয় তৈরি করেন। বরিশালে এলে মেয়র সাদিককে প্রতিহতের ঘোষণা দেন খায়েরপন্থিরা। তাদের দাবি, সাদিক বরিশালে এলে নৌকার ভোট কমবে।

মেয়রের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ কে এম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, তিনি কেন আসেননি, সেটা সবাই জানে।

নগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও আবুল খায়েরের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য মীর আমিন উদ্দীন বলেন, দলের উচ্চপর্যায় থেকেই তাকে (সাদিক আবদুল্লাহ) নির্বাচনের আগে বরিশালে না আসার জন্য নির্দেশনা রয়েছে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

২১ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

ইতিহাসের এই দিনে যত ঘটনা

গ্রিজমানদের খালি হাতেই ফেরত পাঠাল ইন্টার মিলান  

একটি হুইল চেয়ারের আকুতি প্রতিবন্ধী সিয়ামের

ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে চবিতে ফুলের দাম বেড়েছে ৩ গুন

সীমান্তে শেষবারের মতো বোনের লাশ দেখলো স্বজনেরা

‘উদ্যোক্তা তৈরির মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরি করতে চাই’-প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

‘ডাল ভাত খেয়েও যুদ্ধ করতে পারি’

ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

কোম্পানি রিটার্নের মেয়াদ ২ মাস বাড়ানোর দাবি এফবিসিসিআইর

১০

ন্যায্যতা সম্পর্কিত সংসদীয় ককাস / উন্নয়নমূলক পদক্ষেপে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার আহ্বান 

১১

এমপিদের থোক বরাদ্দের আগে জবাবদিহিতা নিশ্চিতের দাবি টিআইবির

১২

চাকরি গেল জাবির আলোচিত সেই শিক্ষকের

১৩

পঞ্চগড়ে বন্যহাতির আক্রমণে যুবক নিহত

১৪

অনলাইনে ভিডিও দেখে গামছা বিক্রেতার ছেলের মেডিকেলে চান্স

১৫

বাড়ছে বিদ্যুৎ-গ্যাসের দাম

১৬

‘দুই-তিনটা লাশ ফেলে দেব’- ছাত্রলীগ নেতার হুমকি

১৭

বোরকা পরে বোনের পরীক্ষা দিতে এসে আটক ভাই

১৮

ভক্তদের বিরাট-আনুশকার সুখবর

১৯

নতুন এমপিওভুক্ত মাদ্রাসায় রমরমা ‘ব্যাকডেট’ নিয়োগ বাণিজ্য

২০
X