কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ০৭ জুন ২০২৩, ১২:০০ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ

মিথ্যা অভিযোগে আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে

সাংবাদিকদের জাহাঙ্গীর
মিথ্যা অভিযোগে আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে

মিথ্যা-বানোয়াট তথ্য দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, ১৭-১৮ মাস ধরে আমার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনসহ (দুদক) বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, দপ্তর ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মিথ্যা, বানোয়াট গল্প দিয়ে অভিযোগ করেছে। কে বা কারা দিয়েছে তাদের কোনো হদিস নেই, তাদের কোনো ঠিকানা নেই। অভিযোগকারীদের কাগজের সঙ্গে বাস্তবের কোনো মিল নেই।

গতকাল রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ অভিযোগ করেন। তার বিরুদ্ধে সিটি করপোরেশনের টাকা আত্মসাৎ, ভুয়া ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে টাকা লেনদেনের অভিযোগ অনুসন্ধান চলছে। সেই জেরে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর সোয়া ২টা পর্যন্ত তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন দুদকের সহকারী পরিচালক আশিকুর রহমান।

জিজ্ঞাসাবাদ শেষে এক প্রশ্নের জবাবে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, যেহেতু দুদক একটি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান, তারা অভিযোগের বিষয়ে আমাকে গত ২১ মে আসতে নোটিশ করেছিল, আমি তার জবাব দিয়েছি। আজকে আবার ডেকেছে, আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দুদকে এসেছি। আমার বিরুদ্ধে ৭ হাজার ৫০০ কোটি টাকা আত্মসাতের গল্প সাজানো হয়েছিল। অথচ আমাকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও কেন্দ্রীয় সরকার থেকে ৬০০ থেকে ৬৫০ কোটি টাকা প্রকল্পে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এসব টাকার সব কাজ চলমান।

তিনি আরও বলেন, সর্বশেষ আমার নামে একটি ভুয়া ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলে দেখানো হয়েছে, কয়েক কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। আমি বলেছি, ন্যায়বিচারের স্বার্থে ব্যাংকে কে বা কারা একটি মিথ্যা সিগনেচার দিয়ে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলেছে, সেটির বিচার আমিও চাই। সেজন্য আমি দুদকে কয়েকশ সিগেনেচার দিয়ে গেছি। আমার রাষ্ট্রীয় কাজে যেসব সিগনেচার আছে, সেগুলো যাচাই-বাছাই করা হোক, প্রয়োজনে ফরেনসিক করা হোক।

এদিকে সাবেক এ মেয়রকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে দুদক সচিব মাহবুব হোসেন বলেছেন, গাজীপুরের সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের অনিয়ম-দুর্নীতি অনুসন্ধানে কোনো মহলের চাপ নেই। তিনি (জাহাঙ্গীর) কী করেছেন বা করেননি, অনুসন্ধান শেষে সবকিছুই বের হবে। দুদকের তথ্যমতে, জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে ভুয়া ব্যাংক হিসাবে অবৈধ লেনদেন, বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পে অনিয়ম-দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে। এগুলো অনুসন্ধানে সংস্থাটির উপপরিচালক আলী আকবরকে প্রধান করে দুটি আলাদা অনুসন্ধান টিম গঠন করা হয়েছে। দুই টিমের সদস্যরা হলেন দুদকের সহকারী পরিচালক আশিকুর রহমান ও আলিয়াজ হোসেন। অভিযোগ অনুসন্ধানের টিম তাকে ২১ মে ও ২২ মে সকাল ১০টায় দুদকে তলব করে। তিনি সময় চেয়ে আবেদন করলে তাকে ৬ ও ৭ জুন দুদকে হাজির হয়ে বক্তব্য উপস্থাপন করতে বলা হয়। দুদকের নির্দেশ অনুযায়ী তিনি গতকাল দুদকে হাজির হয়ে বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

রাজপথ দখলে আবারও মাঠে নামছে ইমরান খানের পিটিআই

আ.লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার

এক শর্তে জাহাজে হামলা বন্ধের বিষয়টি বিবেচনা করবে ইয়েমেন

গাজীপুরে মার্কেটে আগুন

শিক্ষার্থীকে শাসন করায় শিক্ষককে বেধড়ক মারধর

প্যারিসে একুশের কবিতা পাঠ ও আলোচনা সভা

রাশিয়ার ভয়ে পিছু হটল ন্যাটো

নসিমন-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

২৮ ফেব্রুয়ারি : কী ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনে

বুধবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

১০

২৮ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

১১

কর্ণফুলী নদীতে ৩ দিন বন্ধ থাকবে ফেরি চলাচল

১২

মিয়ানমার সীমান্ত এখন শান্ত, ফের গোলাগুলি শুরুর আশঙ্কায় আতঙ্ক

১৩

বোনাস দাবিতে সার কারখানা শ্রমিকদের মানববন্ধন

১৪

সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু আজ

১৫

হাসপাতালে রেখে তরুণ-তরুণী উধাও, ছোটমণি নিবাসে ঠাঁই হলো নবজাতকটির

১৬

চট্টগ্রামে শাস্তির মুখে ৮ ল্যাব-হাসপাতাল

১৭

এবার বাড়ছে সব ধরনের ছোলা ও ডালের দাম

১৮

বিধবা মেয়েকে নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে চলন্ত ট্রেনে বাবার মৃত্যু

১৯

দুই সন্তানের জননীকে নিয়ে ‘উধাও’ ইউপি সদস্য

২০
X