স্পোর্টস ডেস্ক
প্রকাশ : ১৪ জুন ২০২৪, ০৪:১৪ পিএম
আপডেট : ১৪ জুন ২০২৪, ০৪:১৫ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

কোপা বা বিশ্বকাপ নয়, এবার মেসির লক্ষ্য ভিন্ন!

একটি কন্যাসন্তানের আগমনের অপেক্ষায় মেসি। ছবি : সংগৃহীত
একটি কন্যাসন্তানের আগমনের অপেক্ষায় মেসি। ছবি : সংগৃহীত

পৃথিবীর সর্বশ্রেষ্ঠ ফুটবলার হিসেবে যদি কারও নাম বলা হয় তাহলে সবার আগে আসবে লিওনেল মেসির নাম। আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ফুটবল থেকে এমন কিছু নেই যা পাননি। ইউরোপে প্রায় দুই যুগ রাজত্ব করে বর্তমানে তিনি ইন্টার মায়ামির ফ্যানদের মুগ্ধ করছেন। সম্প্রতি জনপ্রিয় স্ট্রিমার মিগুয়ে গ্রানাডোসের সাথে ওলগা চ্যানেলে একটি আন্তরিক সাক্ষাৎকারে তার ব্যক্তিগত জীবন সম্পর্কে বেশ খোলামেলা কথা বলেছেন বিশ্বকাপজয়ী এই তারকা। যেখানে কোপা এবং বিশ্বকাপের স্বপ্ন বাদেও তিনি নিজের আরেকটি স্বপ্নের কথা বলেন আট বারের ব্যালন ডি’অর জয়ী।

কিছুদিন আগের সেই হৃদয়স্পর্শী আলোচনায় মেসি তার প্রিয় সঙ্গী আন্তোনেলা রোকুজ্জো এবং তাদের তিন পুত্র, থিয়াগো, মাতেও এবং সিরোর সাথে তার পরিবার সম্প্রসারণের স্বপ্নের কথা বলেন।

মেসির প্রকাশগুলো অপ্রত্যাশিত এবং আবেগপ্রবণ ছিল, যা ভক্তদের তার পরিবারের অন্তরঙ্গ গতিশীলতার এক বিরল ঝলক দেয়। সমৃদ্ধ ফুটবল ক্যারিয়ার সত্ত্বেও, মেসি একজন নিবেদিত পিতা এবং আদর্শ সঙ্গী হিসাবে তার ভূমিকা জোর দিয়েছেন।

৩৬ বছর বয়সে, তিনি তার জীবনে চতুর্থ সন্তানকে স্বাগত জানানোর সম্ভাবনা থেকে দূরে সরে যাননি, বিশেষত তিনি একটি কন্যাসন্তানের আশায় রয়েছেন। "আমরা আরেকটি সন্তান চাই। আমরা সক্রিয়ভাবে চেষ্টা করছি না, তবে দেখি মেয়ে আসে কিনা," তিনি হাসির সাথে সাক্ষাৎকারে বলেন।

এই ফুটবল তারকা তার পিতৃত্বের গর্ব করেন এবং তার এই গুণাবলি তার শৈশবকালের শিক্ষা থেকে প্রাপ্ত বলে মনে করেন। "আমি আমার সন্তানদের মধ্যে সেই মূল্যবোধগুলো স্থাপন করার চেষ্টা করি যা আমার ছোটবেলায় শেখানো হয়েছিল," মেসি বলেছিলেন।

"আমি মনে করি, আমি একজন ভালো বাবা কারণ আমার বাবা-মা ভালো ছিলেন। আমি যেখানে বড় হয়েছি তার মূল্যবোধ অনুসরণ করাও খুব গুরুত্বপূর্ণ।"

মেসি তার সঙ্গী আন্তোনেলারও প্রশংসা করেন, যিনি তাদের সন্তানদের প্রতি তার অবিচল উৎসর্গের জন্য গভীরভাবে প্রশংসিত। "সে দিনরাত ২৪ ঘণ্টা বাচ্চাদের সাথে কাটায়। আমরা প্রায়ই দীর্ঘ সময়ের জন্য দূরে থাকি: ভ্রমণ, ম্যাচ, প্রিসিজন, জাতীয় দল। কখনো কখনো আমরা এক মাস, দেড় মাসের জন্য চলে যাই এবং সে সারাদিন বাচ্চাদের সাথে থাকে," তিনি উল্লেখ করেন।

তার সন্তানের ব্যক্তিত্ব বর্ণনা করতে গিয়ে, মেসি তাদের পরিবারের একটি জীবন্ত চিত্র এঁকেছেন। "থিয়াগো অনেক বেশি কথা বলতে পছন্দ করে। হয়তো আন্তোনেলার সাথে তার আরও আত্মবিশ্বাস রয়েছে বিষয়গুলো শেয়ার করার। সে সারাদিন তাদের তিনজনের সাথে থাকে। মাতেও সবকিছু বলে, সে থামে না কথা বলে তবে সিরো অনেক চুপচাপ।"

মেসি আবার তাদের মায়ামিতে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্তটি সম্পর্কে জানায়। তাদের বাচ্চাদের জন্য একটি লালনপালনকারী পরিবেশ প্রদান করার ইচ্ছার জন্যই তার ইউরোপ শেষ করার সিদ্ধান্ত ছিল।

মেসি তাদের দৈনন্দিন রুটিনও শেয়ার করেন। তিনি মূল্যবান মুহূর্তগুলো তুলে ধরেন। "আমরা ৭টায় বাচ্চাদের সাথে ঘুম থেকে উঠি। নাস্তা করি, এবং কখনো কখনো আমি তাদের স্কুলে নিয়ে যাই এবং কখনো কখনো না। টোস্ট, চকলেট দুধ [তারা খায়]। আমি ১টায় প্রশিক্ষণ শেষে বাড়ি ফিরে আসি। তারপর আমরা খাই, [আন্তোনেলার সাথে] একটা ঘুম দেই। পরে, আমরা বাচ্চাদের তুলে নিই, এবং আবার প্রশিক্ষণ।"

যেমন মেসি মাঠে একজন উজ্জল নক্ষত্র। সে রকম মেসির কন্যার আকাঙ্ক্ষা মেসি পরিবারকে পূর্ণতা দিবে বলে আশাবাদী ভক্তরা।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

চার্জশিট পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মোবাইল ইন্টারনেট চালুর বিষয়ে জানাল গ্রামীণফোন

‘ভিক্ষা লাগবে না একটা পত্রিকা দেন, দেশের খবর জানি’ 

প্যারিস অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যা থাকছে

যেভাবে দেখবেন অলিম্পিকে আর্জেন্টিনার ম্যাচ

শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে খুলবে ঢাবি

স্থানীয় সরকারের ২২৩ পদে নির্বাচন স্থগিত

ভালো নেই মুরগি ব্যবসায়ীরা

গাজীপুরে খুলে দেওয়া হয়েছে পোশাক কারখানা

পর্যটকশূন্য কাপ্তাই পর্যটনকেন্দ্রগুলো

১০

ফিফার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ

১১

পেন্টাগনের ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ

১২

৪ বিভাগে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস

১৩

মোবাইলে অব্যবহৃত ইন্টারনেট প্যাকেজ সম্পর্কে যা জানা গেল

১৪

আর্জেন্টিনায় হতে পারে পরবর্তী কোপা

১৫

ঢাকার রাস্তায় তীব্র যানজট

১৬

নেপালে যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত, প্রায় সব আরোহী নিহত 

১৭

চাকরির প্রজ্ঞাপনে যা আছে

১৮

কারফিউ বিরতিতে চলবে দূরপাল্লার বাস

১৯

অলিম্পিকে নামার আগেই স্বর্ণপদকের স্বপ্ন মাসচেরানোর

২০
X