শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০
সুশোভন অর্ক
প্রকাশ : ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৫৩ এএম
আপডেট : ০৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:১১ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ

পুলিশের ইন্ধনে রাস্তা দখল করে ১৮ দোকান!

ধানমন্ডি-লালমাটিয়া সংযোগ সড়ক
পুলিশের ইন্ধনে রাস্তা দখল করে ১৮ দোকান!

রাস্তায় সারি সারি মুখরোচক খাবারের দোকান। ক্রেতা-বিক্রেতার হাঁকডাকে মুখর এলাকা। পাশেই পার্ক করা অসংখ্য ব্যক্তিগত গাড়ি ও মোটরসাইকেল। সবসময় চলে আশপাশের এলাকার কিশোরদের আড্ডা। বলা চলে, এলাকার সবচেয়ে জমজমাট ব্যবসা কেন্দ্র এটি। এই ব্যবসা কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়েছে রাজধানীর ধানমন্ডি-২৭-এর ব্যস্ততম একটি রাস্তা দখল করে। আর দখলের নেপথ্যে রয়েছেন স্থানীয় কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা। আর এর সরাসরি নিয়ন্ত্রণ করেন মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলাম।

সরেজমিন ধানমন্ডি-২৭-এর বেঙ্গল বইয়ে যাওয়ার গলি হিসেবে পরিচিত এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ব্যস্ততম এ সড়কটি দখল করে বসানো হয়েছে ১৮টি দোকান। প্রত্যেক দোকানে আছে বিদ্যুৎ সংযোগ। রাস্তার খুঁটি থেকে চোরাইভাবে এসব দোকানে লাইন নেওয়া হয়েছে। তবে এসব বিষয় নিয়ে ব্যবসায়ীরা নির্ভার। তারা বলছেন, পুলিশের হস্তক্ষেপেই ব্যবসা হচ্ছে। এ ছাড়া এলাকার প্রভাবশালী কয়েকজনও রয়েছেন এই তালিকায়। ফলে দিনের পর দিন অবৈধভাবে এই ব্যবসা কেন্দ্র গড়ে তোলা হলেও প্রশাসন নির্বিকার।

স্থানীয়রা বলেন, রাস্তার পাশজুড়ে খাবার দোকান হওয়ায় এখানে মোটরসাইকেল বা গাড়ি পার্ক করে রাখা হয়। ফলে সৃষ্টি হয় অসহনীয় যানজট। দোকান ঘিরে বেড়ে উঠেছে কিশোর গ্যাংয়ের আড্ডা। জানা গেছে, এসআই সাইফুল ছাড়াও কয়েকজন পুলিশ সদস্যের সোর্সরা নিয়মিত এসব দোকান থেকে চাঁদা তোলেন। এর মধ্যে একজন হচ্ছেন মো. আনোয়ার। তিনি নিজেকে পরিচয় দেন স্থানীয় ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের ইউনিট আওয়ামী লীগের নেতা হিসেবে। উত্তর সিটি করপোরেশনের ৩২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সৈয়দ হাসান নুর ইসলাম রাষ্টনের ব্যক্তিগত সহকারী মো. রায়হানের বিরুদ্ধেও অভিযোগ রয়েছে। সিটি করপোরেশনের লোগো লাগানো দুই দোকান থেকে তার মাসে আয় ১২ হাজার টাকা। রায়হানের হয়ে এসব দোকান দেখাশোনা করেন লাইনম্যান পরিচয় দেওয়া মোতাহার হোসেন নিলয় ও মীর হোসেন।

সরেজমিন দেখা গেছে, রাস্তা দখল করে দোকান বসানোর পাশাপাশি দোকানের সামনে রাখা হয়েছে কাঠের বেঞ্চ। ফলে মূল রাস্তার এক-তৃতীয়াংশই দোকানের দখলে চলে গেছে। কয়েকজন দোকানি জানান, দোকান বসাতে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা দিতে হয় এসআই সাইফুলকে। প্রতিদিন দোকানপ্রতি ২০০ টাকা করে নেয় পুলিশ। এ ছাড়া সপ্তাহে দোকানপ্রতি আরও ৩০০ টাকা করে পুলিশকে দিতে হয়। বিদ্যুৎ বিল হিসেবে প্রতি মাসে প্রতিটি দোকান থেকে দুই হাজার টাকা তোলা হয়। এই টাকা তোলার দায়িত্ব মোতাহার হোসেন নিলয়ের। টাকা তোলার দায়িত্ব পালন করায় তার তিনটি দোকানে বিদ্যুতের টাকা দিতে হয় না। বর্তমানে এই সড়কে ১৮টি দোকান রয়েছে। এ ছাড়া বন্ধ অবস্থায় পজিশন দখল করে রেখেছে আরও কয়েকটি দোকান। ব্যবসায়ীরা বলছেন, ঈদের পরে এসব দোকান খোলা হবে।

রাস্তা দখল করে দোকান বসানো ও নিয়ন্ত্রণের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে মোহাম্মদপুর থানার এসআই সাইফুল ইসলাম বলেন, এসব কথার কোনো প্রমাণ নেই। আমার কোন দোকান আছে, সেটা প্রমাণ করেন। যদি প্রমাণ করতে পারেন আমি দেখব। না করতে পারলেও দেখব। দোকান থেকে টাকা তোলার বিষয় অস্বীকার করেন লাইনম্যান মীর হোসেন ও মোতাহার হোসেন। তাদের দাবি, এসব দোকান থেকে কেউ কোনো চাঁদা নেয় না। দোকানগুলোতে অবৈধ বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে ডিপিডিসির লালমাটিয়া এলাকার সুপারভাইজার মো. ওবায়দুল বলেন, আমি কোনো লাইন দেইনি। আপনি দেখেন। আমি এই কাজ করিনি।

এই রাস্তার পাশের ভবনটিই হচ্ছে র‌্যাংগস নাসিম স্কয়ার; যেটি ক্রিমসন ভবন হিসেবে বেশি পরিচিত। ভবনের ম্যানেজার নাজিমউদ্দিন খান কালবেলাকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তা দখল করে এসব দোকান চলছে। আর এসব দোকানের ময়লা-আবর্জনা ফেলা হয় আমাদের ভবনের সামনে। বাধ্য হয়ে আমরা এখন রেলিং দিয়েছি। এর পরও ময়লা ফেলে। বিষয়গুলো নিয়ে আমরা পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের ডিসি বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছি। ঢাকা জেলা প্রশাসক বরাবরও চিঠি দিয়েছি।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ইসরায়েলে হামলা শুরু

বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকায় আবারও ঢাবি, অবস্থান কত?

বিশ্বসেরা বিশ্ববিদ্যালয় তালিকায় বুয়েটের অবস্থান কত?

আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১

মুন্সীগঞ্জে আ.লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষ, গুলিবিদ্ধ ২

আড্ডা দিচ্ছিলেন ছাত্রলীগ কর্মীরা, অতর্কিত হামলায় আহত ৪

চৈত্রসংক্রান্তি আজ

১৩ এপ্রিল : নামাজের সময়সূচি

দুদিন বন্ধের পর আজ থেকে মেট্রোরেল চালু 

মার্কিন ঘাঁটিতেও হামলার হুমকি ইরানের

১০

বিমান থেকে সংকেত দেখেই দ্বীপ থেকে তিন নাবিককে উদ্ধার

১১

বাস ও মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে দুই মাদ্রাসাছাত্র নিহত

১২

সৌদি আরবে গাড়ির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রাণ গেল বাংলাদেশির

১৩

এবারই প্রথম স্বস্তিতে মানুষ ট্রেন ভ্রমণ করছেন : রেলমন্ত্রী

১৪

খুলনায় ইজিবাইকের ধাক্কায় প্রাণ গেল শিশুর

১৫

দিনদুপুরে তরুণীকে নির্যাতন, ভিডিও ভাইরাল

১৬

ঈদে পর্যটকে মুখরিত মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত

১৭

‘বাঙালিত্বের সঙ্গে ধর্মের কোনো সংঘর্ষ নেই’

১৮

খুলনায় দুর্বৃত্তদের গুলিতে আ.লীগের তিন নেতা গুরুতর আহত

১৯

সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাঁড়াল বান্দরবান প্রশাসন

২০
*/ ?>
X