সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ বিকেলে

সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ বিকেলে

শপথ নিতে চলেছেন সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচিত ৫০ জন নারী সংসদ সদস্য। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টায় জাতীয় সংসদ ভবনের নিচতলায় এ শপথ অনুষ্ঠিত হবে। শপথবাক্য পাঠ করাবেন জাতীয় সংসদের
তামিম নাকি সাকিব, ফাইনালে খেলবে কে
তামিম নাকি সাকিব, ফাইনালে খেলবে কে
জ্বলছে গ্যাসের চুলা। ছবি : সংগৃহীত
ঢাকার যেসব এলাকায় আজ ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকছে না 
২৯ ফেব্রুয়ারি ‘লিপ ডে’ হলেও এ নিয়ে বৈজ্ঞানিক আগ্রহ বেশ কমই দেখা যায়। ছবি : সংগৃহীত
লিপ ইয়ার নিয়ে যেসব তথ্য জানলে অবাক হবেন
রাজপথ দখলে আবারও মাঠে নামছে ইমরান খানের পিটিআই
রাজপথ দখলে আবারও মাঠে নামছে ইমরান খানের পিটিআই
ইনসুলিন নিয়ে যত কথা
ইনসুলিন নিয়ে যত কথা
রাশিয়ার ভয়ে পিছু হটল ন্যাটো
রাশিয়ার ভয়ে পিছু হটল ন্যাটো
  • এয়ার কমডোর এ টি এম হাবিবুর রহমান (বিএসপি, এনডিসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি)
    এয়ার কমডোর এ টি এম হাবিবুর রহমান (বিএসপি, এনডিসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি)প্রো-উপাচার্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অ্যাভিয়েশন অ্যান্ড অ্যারোস্পেস বিশ্ববিদ্যালয় (বি

    মহাকাশ জয়ের প্রতিযোগিতা এবং বাংলাদেশ

    ‘আয় আয় চাঁদ মামা’ অথবা ‘সূয্যি মামা জাগার আগে উঠব আমি জেগে’—এ ধরনের সাহিত্য ও সংস্কৃতি এটাই প্রমাণ করে যে, মহাকাশ এবং মহাকাশে অবস্থিত বিভিন্ন উপগ্রহ, নক্ষত্র সবকিছুই আমাদের অত্যন্ত প্রিয়। মহাকাশের রহস্য সবসময় মানবজাতিকে আকর্ষণ করলেও ১৯৫৭ সালের আগপর্যন্ত এখানে কেউ পদচারণা করতে পারেনি। তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের ‘স্পুৎনিক’ মহাকাশযানের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করে ১৯৬৯ সালে নীল আমস্ট্রংদের চাঁদে অবতরণের মাধ্যমে তৎকালীন মহাকাশ প্রতিযোগিতার সমাপ্তি ঘটে। মার্কিনিদের চন্দ্র অভিযানের পর প্রায় ৫০ বছর কেউ আর চাঁদে যায়নি। তবে এর মধ্যে আমেরিকা, রাশিয়া, চীন, জাপানসহ অনেক দেশই মহাকাশে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রাখে। এরই ধারাবাহিকতায় গণচীন ২০২০ সালে চাঁদের
    ড. অরূপরতন চৌধুরী
    ড. অরূপরতন চৌধুরীঅধ্যাপক ও একুশে পদকপ্রাপ্ত শব্দসৈনিক (স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র)

    ডায়াবেটিস প্রতিরোধের এখনই সময়

    বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির (বাডাস) প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে প্রতি বছরের মতো এবারও পালিত হচ্ছে জাতীয় ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস। ১৯৫৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতি প্রতিষ্ঠা হয়।
    প্রভাষ আমিন
    প্রভাষ আমিনহেড অব নিউজ, এটিএন নিউজ

    ধর্মকে কঠিন করে তুলবেন না

    মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুটি—ঈদুল ফিতর আর ঈদুল আজহা। এক মাসের সিয়াম সাধনা শেষে আসে ঈদুল ফিতর। আর ঈদুল আজহা আসে ত্যাগের মহিমা নিয়ে। ইসলামে তিনটি মহিমান্বিত রাত আছে—শবেবরাত, শবেকদর, শবেমেরাজ।
  • শেখ হাসিনার কূটনীতি নিয়ে দ্য ডিপ্লোম্যাটের নিবন্ধ

    দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠন করেছেন শেখ হাসিনা। নির্বাচনের পরেই ভারত, চীন এবং রাশিয়াসহ বেশ কয়েকটি এশীয় এবং মিত্র দেশ থেকে অভিনন্দন বার্তা পেয়েছেন শেখ হাসিনা। অন্যদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের মতো শক্তিশালী পশ্চিমা গণতান্ত্রিক দেশগুলো প্রায় নীরব থেকেছে।  নির্বাচনের এক মাস পর শেখ হাসিনা মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছ থেকে সহযোগিতার চিঠি পান। এরপর গত সপ্তাহের শেষ দিকে যুক্তরাষ্ট্রের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদল ঢাকা সফর করে।  নির্বাচনের সুষ্ঠুতা নিয়ে উদ্বেগ থাকা সত্ত্বেও মার্কিন অবস্থানের এই পরিবর্তন শুধু ওয়াশিংটনের ইচ্ছার ফল নয়, বরং শেখ হাসিনার কূটনৈতিক দক্ষতারও ফল এটি। বন্ধুত্ব অর্জনের জন্য শেখ হাসিনা দেশের ক্রমবর্ধমান অর্থনৈতিক শক্তিকে কাজে লাগিয়েছেন।  শেখ হাসিনা এখন
    সৈয়দ বোরহান কবীর
    সৈয়দ বোরহান কবীরনির্বাহী পরিচালক, পরিপ্রেক্ষিত

    নেতাদের মুক্তি, বিএনপির মুক্তি কবে

    একে একে কারাগার থেকে মুক্তি পাচ্ছেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা। ২৮ অক্টোবর বিএনপির সমাবেশে যে তাণ্ডব হয়, তার পরিপ্রেক্ষিতে বিএনপির বহু নেতাকর্মী গ্রেপ্তার হন। দলের মহাসচিবসহ স্থায়ী কমিটির গুরুত্বপূর্ণ একাধিক নেতার বিরুদ্ধে সন্ত্রাস এবং নাশকতার অভিযোগে মামলা হয়েছিল।

    প্রধানমন্ত্রীর পথনকশায় বিশ্বমানের 'স্মার্ট পুলিশ' 

    স্মার্ট বাংলাদেশের বাস্তবতায় ‘স্মার্ট পুলিশ’। এমন স্বপ্নের গোড়াপত্তন করেছেন স্বপ্নময়ী মহিয়সী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দূরদর্শিতায় অতুলনীয় পাঁচবারের সরকারপ্রধানের হাত ধরেই সময়ের প্রয়োজনে আধুনিক প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিত হচ্ছে বাংলাদেশ পুলিশ। বদলে যাওয়া অপরাধের ধরনের সঙ্গে মাঠ পর্যায়েও পুলিশের হাতে পৌঁছে যাচ্ছে প্রযুক্তির সর্বাধুনিক সেবা। অপরাধ তদন্ত থেকে শুরু করে অপরাধী শনাক্ত, দ্রুত গ্রেপ্তার ও দুর্ঘটনায় জরুরি সেবা প্রদানসহ সব ক্ষেত্রে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ও সরঞ্জামের ব্যবহার বেড়েছে পুলিশে। দেশের আভ্যন্তরীণ শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রেখে সন্ত্রাস এবং উগ্রবাদ দমনে শান্তি শপথে আলোকোজ্জ্বল এক স্বপ্নের সরণিতে সম্ভাবনা ও সক্ষমতার প্রোজ্জ্বল প্রতীক ২৫ মার্চ কালরাতের প্রথম প্রহরে গভীর দেশপ্রেমের স্বাতন্ত্রিকতার চিহ্ন এঁকে পাকিদের হটাতে
  • কৌশিক বসু
    কৌশিক বসুঅর্থনীতিবিদ, বিশ্বব্যাংকের সাবেক প্রধান অর্থনীতিবিদ (২০১২ - ২০১৬ সাল)।

    আমরা একটি ন্যায়সঙ্গত পৃথিবীর স্বপ্ন দেখি

    একশ বছর আগের চেয়ে আজ পৃথিবীতে সম্পদের প্রাচুর্যতা বেড়েছে বহুগুণ। বেড়েছে মানুষের ভোগের পরিমাণও। সে সঙ্গে বেড়েছে ধনী এবং দরিদ্রের আয়বৈষম্য। একাবিংশ শতাব্দীতে এসে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা মানুষের কাজকে অনেক কমিয়ে দিয়েছে। লাখ লাখ কর্মী চাকরি হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন। অর্থনৈতিক বৈষম্য চরম আকার ধারণ করেছে। এই চরম অর্থনৈতিক বৈষম্য মোকাবিলার উপায় খুঁজে ফিরছেন অর্থনীতিবিদরা।    অর্থনীতিবিদ জন মেনার্ড কেইনস তার ‘ইকোনমিকস পসিবিলিটিস ফর আওয়ার গ্রান্ড চিলড্রেন’ প্রবন্ধটি প্রকাশ করেছিলেন ১৯৩০ সালে। সেখানে তিনি অবসর এবং প্রাচুর্যে ভরা একটি ভবিষ্যৎ বৈশ্বিক অর্থনীতি নিয়ে তার দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরেছিলেন। তার সেই দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে আজ আলোচনার সময় এসেছে।  কেইনস মূলত ১৯২৮ সালে ইংল্যান্ডের হ্যাম্পশায়ারের একটি স্কুলে বক্তৃতা

    কারা পড়েন নতুন লেখকদের বই?

    নতুন বই প্রকাশ করে আহ্লাদে আটখানা লেখিকা। কারণ তার প্রথম বই প্রকাশিত হয়েছে এবারের বইমেলায়। যারপরনাই খুশি সে। কিন্তু তার বই কে পড়বেন? বলছেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার অনেক বন্ধু তারাই পড়বেন। দেশে কাকের চেয়ে কবির সংখ্যা বেশি তা স্বীকারও করলেন এক কবি। তিনি বলেন, এটা সত্যি পাঠকের চেয়ে লেখক বেড়ে গেছে- তাই বই কিনতে চায় না কেউ। বেশ কয়েক বছর ধরে নিয়মিত বই প্রকাশ করে আসছেন শিক্ষকতা থেকে অবসর নেওয়া এক লেখিকা। আগে তার বই ছাত্ররা কিনলেও এখন আর আগের মতো কেনেন না। কারণ এখন আর শিক্ষক নন তিনি। আচ্ছা নতুন লেখকদের বই কারা কিনবে সেটি যখন বড় প্রশ্ন তখন আরও একটি প্রশ্ন সামনে চলে

    উপমহাদেশের পটপরিবর্তন: গণতন্ত্রের পিচ্ছিল পথ

    ‘পাকিস্তানের মিলিটারি শাসক যদি ১৯৭০ নির্বাচনে বিজয়ী দলের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করত তাহলে ‘পাকিস্তান রাষ্ট্র’ ভেঙে যেত না এবং পাকিস্তান বিশ্বের একটি বৃহত্তম মুসলিম রাষ্ট্রে পরিণত হতো। ভুলটা ছিল পাকিস্তানের।’ এই কথাটিই জোরালোভাবে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান তার রাজনৈতিক সভায় একাধিকবার বলেছেন। এমনকি সম্প্রতি জেলে বসে এক টুইট বার্তায় তা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে দেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সবচেয়ে মজার বিষয়টা হলো এসব ঘটনার জন্য তিনি পাকিস্তানের সেনাবাহিনীকে দায়ী করেছেন।  সেই একই ভুল ১৯৪৭ থেকে ২০২৪, এই ৭৭ বছর ধরে চলমান আছে পাকিস্তানে। ওই একই কারণে পাকিস্তানের প্রথম প্রধানমন্ত্রী নবাবজাদা লিয়াকত আলি খান ১৬ অক্টোবর ১৯৫১ সালে রাওয়ালপিন্ডি পৌরসভা পার্কে সাদ আকবর নামে
অনলাইন জরিপ
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস, কারাগারে দুই শিক্ষক

ফরাসি অভিনেতার বাড়িতে মিলল ৭২টি বন্দুক

সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ বিকেলে

নিলাম ছাড়াই সরকারি ব্যারাকের ঘর ভেঙে নিলেন ইউপি সদস্য

ঢাকা আইনজীবী সমিতির ভোটগ্রহণ শুরু 

মৌলভীবাজারে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত

নিয়োগ দিচ্ছে মেঘনা গ্রুপ

তামিম নাকি সাকিব, ফাইনালে খেলবে কে

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে ৭টি পদে নেবে ১৮১ জন 

ব্রিজ থেকে নদীতে পড়ল বাস, নিহত ৩১

১০

লিপ ইয়ার নিয়ে যেসব তথ্য জানলে অবাক হবেন

১১

আমের মুকুলে মিষ্টি সুবাস

১২

ঢাকার যেসব এলাকায় আজ ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকছে না 

১৩

ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন মৃৎশিল্পীদের

১৪

মধ্যপ্রাচ্যে টিকে থাকতে ইসরায়েলকে যা করতে বললেন বাইডেন

১৫

রাজপথ দখলে আবারও মাঠে নামছে ইমরান খানের পিটিআই

১৬

আ.লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার

১৭

এক শর্তে জাহাজে হামলা বন্ধের বিষয়টি বিবেচনা করবে ইয়েমেন

১৮

গাজীপুরে মার্কেটে আগুন

১৯

শিক্ষার্থীকে শাসন করায় শিক্ষককে বেধড়ক মারধর

২০
রমজান ঘিরে সংগঠন চাঙ্গা করার উদ্যোগ
সরকারের পদত্যাগ ও নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের একদফা দাবিতে বিএনপি বছরের অধিক সময় ধরে রাজপথে আন্দোলন করলেও চূড়ান্ত সফলতা না আসায় দলটির নেতাকর্মীদের মধ্যে এক ধরনের হতাশা বিরাজ করছে। একই
১২ ব্যাংক থেকে ৫৮৮ মিলিয়ন ডলার সোয়াপ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক
তারল্য সংকট মেটাতে কারেন্সি সোয়াপের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে ডলার জমা রেখে টাকা ধার নেওয়া শুরু করেছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো। কারেন্সি সোয়াপ বা টাকা-ডলার অদলবদল শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ১২
৭০ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই করছে দারাজ বাংলাদেশ
প্রায় ৭০ শতাংশ কর্মী ছাঁটাই করতে যাচ্ছে দারাজ বাংলাদেশ। চীনভিত্তিক আলিবাবা গ্রুপের মালিকানাধীন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানটির কর্মীর সংখ্যা এক হাজার ৭০০ থেকে কমে ৪৫০-এ আসতে পারে বলে খবর পাওয়া গেছে। কর্মী
ছাব্বিশে পাতাল রেল যুগে বাংলাদেশ
রাজধানীর যানজট প্রবণ অন্যতম সড়ক হলো বিমানবন্দর থেকে রামপুরা হয়ে কমলাপুর পর্যন্ত। সরু রাস্তা, অতিরিক্ত যানবাহনসহ নানা কারণে এই পথ পাড়ি দিতে কত সময় লাগতে পারে—তা নিশ্চিত করে বলা কঠিন।
ads
সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ বিকেলে
সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ বিকেলে
শপথ নিতে চলেছেন সংরক্ষিত নারী আসনে নির্বাচিত ৫০ জন নারী সংসদ সদস্য। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টায় জাতীয় সংসদ ভবনের নিচতলায় এ শপথ অনুষ্ঠিত হবে। শপথবাক্য পাঠ করাবেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানা গেছে, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্যদের শপথ অনুষ্ঠানের জন্য ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে সংসদ সচিবালয়। প্রথমে সরকারি দল আওয়ামী লীগ মনোনীত ৪৮ জন এবং পরে বিরোধী দল জাতীয় পার্টি মনোনীত দুজন সংসদ সদস্য শপথ নেবেন। শপথগ্রহণ শেষে তারা শপথ বইয়ে স্বাক্ষর করবেন। পরে তারা বিকেল পৌনে ৫টায় সংসদ অধিবেশনে যোগ দেবেন। এদিকে, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্যরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। গত রোববার মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে সংরক্ষিত নারী আসনে কোনো প্রার্থীই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায়, নির্বাচন কমিশন সব প্রার্থীকে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষণা করে। এর পর মঙ্গলবার নির্বাচনী ফলের গেজেট প্রকাশ করা হয়। গেজেটের কপি নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে জাতীয় সংসদ সচিবালয়ে পাঠানো হয়েছে।
৫০ মিনিট আগে

বিআরটিসি যেন আর পিছিয়ে না যায় : তাজুল ইসলাম

১৩ ঘণ্টা আগে

টিআইবির ফেলোশিপ পেলেন সাংবাদিক সজিবুর রহমান

১৪ ঘণ্টা আগে

রিহ্যাব নির্বাচনে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের নিরঙ্কুশ জয়

১৪ ঘণ্টা আগে

গাধা বেচবে চিড়িয়াখানা

১৪ ঘণ্টা আগে

রাজধানীতে ৬ স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

১৪ ঘণ্টা আগে
ads
বায়তুল মোকাররম এলাকায় মিটিং নিষিদ্ধের পাঁয়তারা সুখকর হবে না : চরমোনাই পীর
বায়তুল মোকাররম এলাকায় মিটিং নিষিদ্ধের পাঁয়তারা সুখকর হবে না : চরমোনাই পীর
জাতীয় বায়তুল মোকাররম মসজিদ এলাকায় রাজনৈতিক মিছিল, সভা, সমাবেশ, বিক্ষোভ নিষিদ্ধে পদক্ষেপ নিতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ ধরনের নির্দেশে গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) এক বিবৃতিতে ইসলামী আন্দোলনের আমীর বলেন, সরকার দেশে বাকশাল কায়েমের চক্রান্ত করছে। সরকার দেশে একদলীয় বাকশাল কায়েমের জন্যই খোড়া অজুহাতে ব্য়াতুল মোকাররম এলাকায় মিছিল-মিটিং নিষিদ্ধের পাঁয়তারা করছে। বায়তুল মোকারম মসজিদ গেটে যে সকল ইসলামী দল মিছিল মিটিং করেন, তারা মূলত মসজিদের সম্মান রক্ষা করে এবং মুসল্লিদের যেন কোন সমস্যা না হওয়া সেদিকে সুদৃষ্টি রেখেই মিছিল মিটিং করে থাকেন। কাজেই নামাজে আসা মুসল্লিরা আতঙ্কিত হওয়ার অজুহাতে জাতীয় মসজিদ এলাকায় মিছিল মিটিং নিষিদ্ধের পাঁয়তারা করলে তা সরকারের জন্য সুখকর হবে না। পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, প্রহসনের নির্বাচনী বৈতরনী পার হওয়ার পর সরকার বিরোধী দলের রাজনীতি নিয়ন্ত্রণের ব্যর্থ চেষ্টা করছেন। সরকার জনরোষের ভয়ে আতঙ্কিত হয়ে বিরোধী দলসহ ইসলামী দলগুলোকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে। পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, একদলীয় বাকশাল কায়েম করেছে সরকার। ঐতিহাসিক প্রাণকেন্দ্র জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম এলাকায় মিছিল মিটিং নিষিদ্ধের পাঁয়তারা সফল হবে না। রাজনীতি, মিছিল মিটিং নাগরিকদের সাংবিধানিক অধিকার। সংবিধানের ৪১ (১) অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে (ক) প্রত্যেক নাগরিকের যেকোনও ধর্ম অবলম্বন, পালন বা প্রচারের অধিকার রহিয়াছে; (খ) প্রত্যেক ধর্মীয় সম্প্রদায় ও উপ- সম্প্রদায়ের নিজস্ব ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের স্থাপন, রক্ষণ ও ব্যবস্থাপনার অধিকার রয়েছে। তিনি আরও বলেন, কাজেই মুসল্লিরা ভয় পান, আতঙ্কিত হন এই অজুহাতে মিছিল মিটিং নিষিদ্ধের এখতিয়ার কারো নেই। এ ধরনের সিদ্ধান্ত দেশে নতুন করে সঙ্কট সৃষ্টি করবে। রাজনৈতিক অস্থিরতা ও গণরোষ সৃষ্টি হবে। কাজেই এ ধরনের সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে বিরত থাকতে হবে।
১২ ঘণ্টা আগে
বাকস্বাধীনতা না থাকলে ভাষা থেকেও লাভ হয় না : আনোয়ারউল্লাহ চৌধুরী
বাকস্বাধীনতা না থাকলে ভাষা থেকেও লাভ হয় না : আনোয়ারউল্লাহ চৌধুরী
বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল চান সাইফুল হক 
বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল চান সাইফুল হক 
জাপায় নতুন দুই প্রেসিডিয়াম সদস্য মোস্তাফিজ ও জিন্নাহ 
জাপায় নতুন দুই প্রেসিডিয়াম সদস্য মোস্তাফিজ ও জিন্নাহ 
রিজভী
ওবায়দুল কাদের বিএনপির বিকল্প স্থায়ী কমিটির সদস্য: রিজভী
সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষিত দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত। ছবি : কালবেলা
সরকার দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির হোতা : সিপিবি 
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। পুরোনো ছবি
‘দেশ ও উন্নয়নকে আরও কাছ থেকে দেখবেন বিদেশি কূটনীতিকরা’ 
ads

তারল্য সংকটে ব্যাংক, ডলার জমা রেখে নিচ্ছে নগদ টাকা

তারল্য সংকট মেটাতে কারেন্সি সোয়াপের মাধ্যমে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে ডলার জমা রেখে টাকা ধার নেওয়া শুরু করেছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো। কারেন্সি সোয়াপ বা টাকা-ডলার অদলবদল শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ১২টি ব্যাংক ৫৮ দশমিক ৮০ কোটি (৫৮৮ মিলিয়ন) ডলার জমা রেখেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে। এর বিপরীতে প্রায় সাড়ে ছয় হাজার কোটি টাকা ধার নিয়েছে। ফলে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কিছুটা বেড়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য জানা যায়। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সূত্রে জানা যায়, ৩০ মেয়াদি এসব টাকা-ডলার অদলবদলের সোয়াপ হয়েছে। ৩০ দিন শেষ হলেই ব্যাংকগুলো টাকা দিয়ে ডলার নিয়ে যাবে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকে টাকা জমা রেখে কোনো ব্যাংক এখনো ডলার নেয়নি। মূলত যাদের রেমিট্যান্স বেশি আসছে, তারাই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে সোয়াপ করছে। এখন আনুষ্ঠানিকভাবে ১১০ টাকা দরে ব্যাংকগুলো প্রবাসী ও রপ্তানি আয় কিনছে। এই দামে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে ডলার অদলবদল করেছে ব্যাংকগুলো। বাংলাদেশ ব্যাংক ডলার নিয়ে সমপরিমাণ টাকা দিয়েছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোকে। জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মেজবাউল হক বলেন, বেশ কিছু ব্যাংক ডলার জমা দিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে টাকা নিয়েছে। মূলত যাদের রেমিট্যান্স বেশি আসছে, তারাই সোয়াপ করছে। আবার যেসব ব্যাংকের তারল্য সংকট রয়েছে তারাও সোয়াপ করছে। ব্যাংকগুলো ডলার জমা দিয়ে টাকা ধার নেওয়ায় বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ কিছুটা বেড়েছে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি আইএমএফের হিসাবপদ্ধতি বিপিএম ৬ অনুযায়ী, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিল ১৯ দশমিক ৯৩ বিলিয়ন ডলার। ২০ ফেব্রুয়ারি বেড়ে হয় ২০ দশমকি ১৯ বিলিয়ন ডলার। গত সোমবার দিন শেষে রিজার্ভ আরও বেড়ে ২০ দশমিক ৫১ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব হিসেবে ওই দিন শেষে রিজার্ভ ছিল ২৫ দশমিক ৫২ বিলিয়ন ডলার। গত ১৫ ফেব্রুয়ারি টাকা-ডলার অদলবদল পদ্ধতি চালু করে বাংলাদেশ ব্যাংক। নতুন এ ব্যবস্থার ফলে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে ডলার-টাকা অদলবদল করতে পারছে। এ পদ্ধতিতে টাকা বা ডলার জমা রেখে ৭ থেকে সর্বোচ্চ ৯০ দিনের জন্য বিপরীত মুদ্রা নিতে পারবে ব্যাংক। যে মুদ্রা নেওয়া হবে নির্ধারিত মেয়াদ শেষে সেই মুদ্রা ফেরত দিতে হবে। মুদ্রার অদলবদলের জন্য নির্ধারিত সময়ের জন্য সুদ পাবে একটি পক্ষ। প্রচলিত ধারার ব্যাংকের ক্ষেত্রে টাকার নীতি সুদহার রেপো এবং ডলারের বেঞ্চমার্ক রেট সিকিউরড ওভারনাইট ফাইন্যান্সিং রেটের (এসওএফআর) মধ্যে যে পার্থক্য থাকবে সে পরিমাণ সুদ পাবে। ব্যাংক খাতের সংশ্লিষ্ট বলছেন, টাকা-ডলার অদলবদলের এ ব্যবস্থা উভয়পক্ষের জন্যই লাভজনক। কারণ, উদ্বৃত্ত ডলারের বিপরীতে ব্যাংকগুলো তাৎক্ষণিকভাবে টাকা পেয়ে যাবে। আবার নির্ধারিত সময় পর টাকা ফেরত দিয়ে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সমপরিমাণ ডলার পেয়ে যাবে। এ ব্যবস্থার আওতায় সর্বনিম্ন ৫০ লাখ ডলার বা তার সমপরিমাণ টাকা অদলবদল করা যাচ্ছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের একজন কর্মকর্তা বলেন, দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো অনেক দিন ধরেই ডলার ও টাকার সংকটে ভুগছে। এ ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে কোনো কোনো ব্যাংকের কাছে ডলার হোল্ডিং বেশি থাকলেও টাকার সংকট রয়েছে। আবার কারো কাছে নগদ অর্থ রয়েছে কিন্তু ডলার সংকট রয়েছে। এ রকম ক্ষেত্রে যার কাছে যে মুদ্রা থাকবে সাময়িক সময়ের জন্য বিপরীত মুদ্রা নিতে পারবে। তুলনামূলক কম সুদ ও সহজ শর্তে অদলবদল সুযোগের কারণে বাজারে তারল্য সংকট কমতে পারে। দেশে গত দুই বছর ধরে ডলার-সংকট চলছে। এর ফলে রিজার্ভ কমে প্রায় অর্ধেকে নেমেছে। ডলার-সংকট সামাল দিতে আমদানি নিয়ন্ত্রণসহ নানা পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তাতে চাহিদা কিছুটা কমলেও ডলারের সংকট এখনো পুরোপুরি কাটেনি। ফলে আমদানি দায় মেটাতে এখনো প্রতি ডলারের জন্য ১২৩ টাকা পর্যন্ত দাম দিতে হচ্ছে আমদানিকারকদের। আবার কিছু ব্যাংক ঘোষণার চেয়ে বেশি দাম দিয়ে প্রবাসী আয়ের ডলার কিনছে। ডলারের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যাংকে টাকারও সংকট চলছে। কারণ, ব্যাংকগুলোকে নগদ টাকা দিয়ে ডলার কিনতে হচ্ছে। আবার অনিয়ম-দুর্নীতির কারণেও তারল্য সংকটে পড়েছে কিছু ব্যাংক। তবে কোনো কোনো ব্যাংকের কাছে বাড়তি কিছু ডলারও রয়েছে। সেসব ডলার এখন তারা বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা দিয়ে তার বিপরীতে সমপরিমাণ টাকা নিচ্ছে। জান যায়, তারল্য সংকট মেটাতে গত রোববার কয়েকটি ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে প্রায় ১৩ হাজার ৩৬০ কোটি টাকা ধার নেয়। আর আন্তঃব্যাংক কল-মানিতে প্রায় ৩ হাজার ৫২৫ কোটি টাকা ধার করে।

৪৫ এর কম এবং ৬৫ এর বেশি বয়সে ব্যাংকের এমডি পদ নয়

এখন থেকে ৪৫ বছরের আগে কেউ কোনো ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক পদে নিয়োগ পাবেন না বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেইসাথে ৬৫ বছরের পরে কেউ এমডি পদে থাকতে পারবেন না। যদিও এর আগে এই ধরনের কোনো বাধ্যবাধকতা ছিল না। এতদিন শুধু ১০ বছরের ব্যবস্থাপনা বা ব্যবসায়িক বা পেশাগত অভিজ্ঞতা ছিল এ পদে নিয়োগের অন্যতম যোগ্যতা। এছাড়া, স্বেচ্ছায় বা পর্ষদের চাপে যে কোনোভাবে ব্যাংকের এমডি পদ ছাড়তে গেলেও বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন লাগবে। ব্যাংকের চেয়ারম্যান এবং পরিচালক পদের পর এবার বাণিজ্যিক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা বিভাগের সর্বোচ্চ পদ ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) পদে যোগ্যতার বিভিন্ন মানদণ্ড ঠিক করে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে জারি করা এক সার্কুলারের মাধ্যমে এই নীতিমালা জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। নতুন নীতিমালা অনুযায়ী, এখন থেকে ব্যাংকের এমডি নিয়োগের ন্যূনতম বয়স ৪৫ বছর নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এমডি পদে নিয়োগ ও বাতিল করতে বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন লাগবে। এ পদের নাম দেওয়া হয়েছে, ‘ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা’। ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করলে সেক্ষেত্রেও বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে অনুমোদন নিতে হবে। এতদিন শুধু বাংলাদেশ ব্যাংকে অবহিত করার বিধান ছিল। ব্যাংকের পরিচালকের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পৃক্ত বা পরিবারের সদস্য ব্যক্তি বাণিজ্যিক ব্যাংকের এমডি হতে পারবেন না। নতুন সিদ্ধান্তে এমডিদের চাকরির নিরাপত্তা বাড়িয়ে দিলেও ব্যাংক থেকে নেওয়া নানা সুবিধায় লাগাম টেনেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এমডি হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ব্যাংক থেকে নেওয়া সব ধরনের সুবিধার বর্ণনা চুক্তিপত্রে উল্লেখ রাখতে নির্দেশনা দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, প্রতি মাসে বেতনের সময় তার বিস্তারিত বিবরণও সংরক্ষণ করতে হবে। এমডি নিয়োগে আগের সব সার্কুলার বাতিল করে নতুন সিদ্ধান্তের বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি বলেছে, ‘ব্যাংক-কোম্পানির পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে পূর্বের চেয়ে অনেক বেশি ব্যবসায়িক ও প্রযুক্তিগত ঝুঁকি মোকাবিলায় অধিকতর চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হচ্ছে।’ বর্তমান প্রেক্ষাপটে এমডি নিয়োগে শিক্ষাগত যোগ্যতার পাশাপাশি ‘চারিত্রিক’ ও ‘নৈতিক বিশুদ্ধতায়’ গুরুত্ব দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, ‘ব্যাংকিং খাতে সুশাসন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একজন উপযুক্ত, পেশাগতভাবে দক্ষ ও অভিজ্ঞ ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিয়োগ হওয়া আবশ্যক।’ নতুন সংযোজন চারিত্রিক ও নৈতিক বিশুদ্ধতা: পেশাগত যোগ্যাতার পাশাপাশি পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিকে এমডি হিসেবে নিয়োগ দিতে ‘চারিত্রিক’ ও ‘নৈতিক বিশুদ্ধতা’কে শর্ত হিসেবে যোগ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ফৌজদারি আদালত কর্তৃক দণ্ডিত, জাল-জালিয়াতি, আর্থিক অপরাধ বা অন্য কোনো অবৈধ কর্মকাণ্ডের জড়িত থাকলে তিনি অযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হবেন। প্রার্থী সম্পর্কে কোনো দেওয়ানি বা ফৌজদারি মামলায় আদালতের রায়ে কোনো বিরূপ পর্যবেক্ষণ বা মন্তব্য থাকা যাবে না। কোনো নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষের বিধিমালা, প্রবিধান বা নিয়মাচার লঙ্ঘনজনিত কারণে দণ্ডিত হলেও প্রার্থী অযোগ্য বিবেচিত হবেন। আর্থিক স্বচ্ছতা/সততা: কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে নেওয়া ঋণে খেলাপি, পাওনাদারের প্রাপ্য পরিশোধ না করা এমনকি আপস রফার মাধ্যমে পাওনা আদায় হতে অব্যাহতি লাভ করা ব্যক্তিও এমডি পদে নিয়োগের জন্য অযোগ্য বিবেচিত হবেন। শিক্ষাগত যোগ্যতা: এমডি হিসেবে নিয়োগ পেতে স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় হতে ন্যূনতম স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী হতে হবে। অর্থনীতি, হিসাববিজ্ঞান, ফাইন্যান্স, ব্যাংকিং, ব্যবস্থাপনা কিংবা ব্যবসায় প্রশাসন বিষয়ে উচ্চতর শিক্ষা অতিরিক্ত যোগ্যতা হিসেবে বিবেচিত হবে। আর ডিজিটাল ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী নিয়োগের ক্ষেত্রে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে উচ্চতর শিক্ষাকে অধিক গুরুত্ব পাবে এমডি নিয়োগে। শিক্ষাজীবনের কোনো পর্যায়ে তৃতীয় বিভাগ বা শ্রেণি থাকতে পারবে না জানিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, গ্রেডিং পদ্ধতিতে এসএসসি বা সমমান ও এইচএসসি বা সমমান পরীক্ষার ক্ষেত্রে জিপিএ ৩ এর কম এবং অনুমোদিত বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক প্রদত্ত সিজিপিএ এর ক্ষেত্রে ৪ পয়েন্ট স্কেলে ২ দশমিক ৫০ এর কম এবং ৫ পয়েন্ট স্কেলে ৩ এর কম হলে তা গ্রহণযোগ্য হবে না। পেশাগত যোগ্যতা: এমডি পদে নিয়োগ হিসেবে কমপক্ষে ২০ বছরের অভিজ্ঞতাসহ ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার অব্যবহিত পূর্ববর্তী পদে কমপক্ষে দুই বছরের অভিজ্ঞতার বাধ্যবাধকতা দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। সর্বোচ্চ ৬৫ বছর পর্যন্ত দায়িত্ব পালন: এমডি পদে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ন্যূনতম বয়স হবে ৪৫ বছর নির্ধারণ করে দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, ‘বয়স ৬৫ বছর অতিক্রান্ত হলে তিনি কোনো ব্যাংক-কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পদে অধিষ্ঠিত থাকতে পারবেন না।’ দেশের ব্যাংকিং খাতে ব্যাংকের শীর্ষ কর্মকর্তার পদনাম সমরূপ/একরূপ করার কথা জানিয়ে সার্কুলারে বলা হয়, ব্যাংক-কোম্পানির শীর্ষ কর্মকর্তার পদনাম ‘ব্যবস্থাপনা পরিচালক বা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা’ হিসেবে অভিহিত হবে। তবে, বিদেশি ব্যাংক-কোম্পানির বাংলাদেশস্থ স্থানীয় শীর্ষ কর্মকর্তার পদনাম উক্ত ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী নির্ধারিত হতে পারবে। প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার নিয়োগের মেয়াদ হবে সাধারণভাবে ৩ (তিন) বছর, তবে তিনি পুনঃনিয়োগের যোগ্য হবেন। যে মেয়াদের জন্যই প্রস্তাব করা হোক না কেন বাংলাদেশ ব্যাংক প্রার্থীর সাক্ষাৎকার নেওয়ার পর দেওয়া সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে। নিয়োগ বাতিলে পর্ষদের ক্ষমতা কমলো: চরম স্খলন/বিচ্যুতিপূর্ণ কাজ না করে থাকলে কোনো প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার চুক্তির মেয়াদপূর্তির পূর্বে অপসারণ বা উক্ত চুক্তি বাতিল করা যাবে না বলে সিদ্ধান্ত দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মেয়াদের পূর্বে এমডির নিয়োগ বাতিল বা অপসারণ করতে চাইলে ব্যাংকের পরিচালক পর্ষদে সিদ্ধান্ত নিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রস্তাব আকারে পাঠাতে হবে উল্লেখ করে সার্কুলারে বলা হয়, ‘চুক্তির মেয়াদপূর্তির পূর্বে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ব্যক্তিগত বা অন্য কোনো কারণে পদত্যাগ করার আবেদন করলে এরূপ আবেদন পরিচালনা পর্ষদের সুপারিশসহ বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রেরণ করতে হবে।’ বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্ধারিত কমিটি পদত্যাগকারী এমডির ব্যক্তিগত শুনানি গ্রহণ করবে। তারপরে বিষয়টিতে বাংলাদেশ ব্যাংক যে সিদ্ধান্ত জানাবে তা চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বেতন-ভাতা: প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার বেতন-ভাতা নির্ধারণে ব্যাংকের আর্থিক অবস্থা, কর্মকাণ্ডের ব্যাপকতা, ব্যবসার পরিমাণ, উপার্জন ক্ষমতা, শাখা, উপশাখা, এজেন্ট ব্যাংকিং ও আঞ্চলিক কার্যালয়ের সংখ্যা বিবেচনায় নিতে বলেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এক্ষেত্রে সমজাতীয় ব্যাংকের এমডির বেতন ভাতা উদাহরণ হিসেবে নিতে নির্দেশনা দিয়ে বলা হয়, মূল বেতন ও বাড়ি ভাড়া বাবদ প্রত্যক্ষ বেতন ও ভাতা এবং অন্যান্য ভাতা যোগ করে মোট বেতন-ভাতা হিসাব করতে হবে। ইউটিলিটি বিল, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার নিজের চিকিৎসা খরচ, ইন্স্যুরেন্স প্রিমিয়াম এর সুনির্দিষ্ট পরিমাণ/সীমা রাখতে বলেছে নতুন নির্দেশনায়। সকল সুবিধার (গাড়ি, জ্বালানি, চালক ইত্যাদি) অর্থমূল্যে বের করে বেতন-ভাতায় উল্লেখ করতে বলা হয়। প্রতি বছরে সর্বোচ্চ দুটি উৎসব ভাতা ঠিক করে দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, প্রতিটি এক মাসের মূল বেতনের অধিক হবে না। চাকরির মেয়াদকালে বেতন-ভাতাদির কোনো শর্ত পরিবর্তন করা যাবে না। পরোক্ষ সুবিধা বাতিল: সব ধরনের পরোক্ষ সুবিধা বাতিল করে বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, ব্যাংকের মুনাফার বিপরীতে কোনো লভ্যাংশ, কমিশন, ক্লাবের জন্য কোনো চাঁদা বা খরচ, বিদেশে চিকিৎসা খরচ বা বাৎসরিক মেডিকেল চেক-আপ বাবদ খরচ, বিদেশে পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসা খরচ, ব্যক্তিগত ভ্রমণের ক্ষেত্রে নিজের বা পরিবারের সদস্যদের বিদেশ ভ্রমণ ভাতা প্রাপ্য হবেন না। তবে, এমডি নিজের জন্য বিদেশে (এশিয়ার যেকোনো দেশে) চিকিৎসা গ্রহণের ক্ষেত্রে দেশের চিকিৎসা যথেষ্ট নয় মর্মে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের প্রত্যয়নের ভিত্তিতে তিনি বিদেশে চিকিৎসা সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। এমডির বেতন-ভাতার বিপরীতে আয়কর ব্যক্তিকে নিজ উৎস থেকে দিতে হবে এখন থেকে। পাবেন উৎসাহ বোনাস সর্বোচ্চ ১৫ লাখ টাকা: কর্মকর্তা/কর্মচারীদের অনুকূলে উৎসাহ বোনাস দেওয়া হলে এমডিও উৎসাহ বোনাস পাবেন জানিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, তবে উৎসাহ বোনাস বছরে পনেরো লাখ টাকার বেশি হবে না। ব্যাংকের অন্য কোনো কর্মকর্তা প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার জন্য নির্ধারিত সীমার অধিক উৎসাহ বোনাস পাবেন না।

৬ মাস বিশ্ববাজারে পেট্রোল বিক্রি করবে না রাশিয়া

বিশ্ববাজারে ৬ মাসের জন্য পেট্রোল রপ্তানি বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া। আগামী ১ মার্চ থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। খরব আলজাজিরার। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) তাসের বরাতে আলজাজিরা জানিয়েছে, আসন্ন শীত মৌসুমে রাশিয়ার অভ্যন্তরীণ চাহিদা বেড়ে যেতে পারে এমন শঙ্কায় ছয় মাসের জন্য অন্যতম প্রধান জ্বালানি পেট্রোল রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে দেশটি। বিদেশে রপ্তানিতে নিষেধাজ্ঞায় অনুমোদন দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী মিখাইল মিশুস্টিন। গত বছরের শুরুর দিকেও একই ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছিল রাশিয়া। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাশিয়ার এই নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে ইউরেশিয়ান ইকোনমিক ইউনিয়নভুক্ত (ইএইইউ) সদস্য দেশগুলো। যার মধ্যে রয়েছে আর্মেনিয়া, বেলারুশ, কাজাখস্তান এবং কিরগিজস্তান, মঙ্গোলিয়া এবং উজবেকিস্তান। এ ছাড়াও জর্জিয়ার আবখাজিয়া এবং সাউথ ওসেটিয়া অঞ্চল দুটি এই নিষেধাজ্ঞার আওতার বাইরে থাকবে। গত সেপ্টেম্বরে জ্বালানি তেল রপ্তানি বন্ধ করেছিল রাশিয়া। শীত আসার আগে ওই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল। সে সময় চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় তেলের দাম বাড়ে এবং বাজারে ঘাটতি দেখা গিয়েছিল। ওই সময়ে বেলারুশ, কাজাখস্তান, আর্মেনিয়া ও কিরগিজস্তানকে এর আওতার বাইরে রাখা হয়েছিল। তবে বেশির ভাগ বিধিনিষেধ নভেম্বরে উঠিয়ে নেওয়া হয়েছিল। প্রসঙ্গত, ২০২৩ সালে রাশিয়া ৪ কোটি ৩৯ লাখ টন পেট্রোল উৎপাদন করেছিল। এর মধ্যে রপ্তানি হয়েছিল ৫৭ লাখ ৬০ হাজার টন পেট্রোল। রাশিয়ার পেট্রোল সবচেয়ে বেশি আমদানি করে আফ্রিকার কিছু দেশ; যার মধ্যে রয়েছে নাইজেরিয়া, লিবিয়া, তিউনিসিয়া ও সংযুক্ত আরব আমিরাত।  
১৪ ঘণ্টা আগে
রাশিয়া

বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাসের দাম বাড়ল 

বিদ্যুৎ উৎপাদনে সরবরাহকৃত গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে সরকার। একইসঙ্গে শিল্প-কারখানায় ব্যবহ্নত ক্যাপটিভ পাওয়ারে সরবরাহ করা গ্যাসের দামও বেড়েছে। উভয় ক্ষেত্রে ঘনমিটার প্রতি ৭৫ পয়সা করে বেড়েছে। তবে বাসাবাড়ি ও পরিবহনে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়েনি।  মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ থেকে জারি করা এক প্রজ্ঞাপনে জ্বালানি বিভাগ নতুন এই দাম নির্ধারণ করেছে। ফেব্রুয়ারি থেকেই নতুন এ দাম কার্যকর হবে, ফলে মার্চেই নতুন দামে বিল পরিশোধ করতে হবে।  এদিকে, বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম বাড়ায় বিদ্যুতের উৎপাদন খরচ বেড়ে যাবে। এতে করে গ্রাহক পর্যায়েও বিদ্যুতের দাম বাড়বে। আজ পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির প্রজ্ঞাপন হতে পারে বলে মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।  এর আগে, গতকাল সকালে গ্যাসের দাম বৃদ্ধি নিয়ে সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, আবাসিকে গ্যাসের দাম বাড়ছে না। কেবল বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত গ্যাসের দাম ঘনমিটার প্রতি ৭৫ পয়সা বাড়ানো হচ্ছে। শিল্পেও বাড়বে না।  জ্বালানি বিভাগের উপসচিব শেখ মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, সরকারি, আইপিপি ও রেন্টাল বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের জন্য নতুন দাম হবে ঘনমিটার প্রতি ১৪ দশমিক ৭৫ টাকা। অন্যদিকে শিল্পের ক্যাপটিভ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ঘনমিটার প্রতি দাম হবে ৩০ টাকা ৭৫ পয়সা। সর্বশেষ গত বছরের জানুয়ারিতে বিদ্যুৎ উৎপাদনে গ্যাসের দাম প্রতি ঘনমিটারে ৫ টাকা ৮ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১৪ টাকা এবং ক্যাপটিভ ১৬ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩০ টাকা করা হয়েছিল। তখন শিল্প, বিদ্যুৎ ও বাণিজ্যিক খাতে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়। তবে পরিবহন খাতে ব্যবহৃত সিএনজি ও আবাসিকের গ্যাসের দাম বাড়ায়নি সরকার।
১৮ ঘণ্টা আগে
গ্যাস

বিজিএমইএ নির্বাচন ২০২৪-২০২৬ / স্মার্ট পোশাকশিল্প বিনির্মাণে সম্মিলিত পরিষদের ইশতেহার ঘোষণা

বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ) নির্বাচন ২০২৪-২৬ উপলক্ষে সম্মিলিত পরিষদ ইশতেহার ঘোষণা করেছে। ইশতেহারে এসএমই শিল্পের টেকসই উন্নয়ন, ব্যবসা সহজ করা, রাজস্ব জটিলতা নিরসনসহ বেশ কিছু বিষয়কে অগ্রাধিকার দিয়েছে তারা। রোববার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর একটি হোটেলে এ পরিষদ তাদের ইশতেহার ঘোষণা করে। বিজিএমইএ নির্বাচনে সম্মিলিত পরিষদ এবং ফোরাম এ দুটি দল অংশগ্রহণ করছে। সম্মিলিত পরিষদের পক্ষে ইশতেহার ঘোষণা করেন সম্মিলিত পরিষদের চিফ ইলেকশন কোর্ডিনেটর ও বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান। সম্মিলিত পরিষদের প্যানেল লিডার এস এম মান্নান (কচি) ও প্যানেল সদস্যরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। ইশতেহারে যা বলা হয়- ১. এসএমই শিল্পের টেকসই উন্নয়ন : আমাদের শিল্পের মূল চালিকাশক্তি হলো ক্ষুদ্র ও মাঝারি কারখানাগুলো। এসব কারখানাগুলোর প্রয়োজনীয় সহযোগিতা, বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি কারখানাবান্ধব শিল্পনীতির জন্য প্রস্তাবনা উল্লেখ করা হয়েছে। ২. ব্যবসা সহজীকরণ : এইচএস কোডসংক্রান্ত বিরাজমান সমস্যাগুলোর সমাধানের জন্য প্রস্তাবনা ও রপ্তানিমুখী পোশাকশিল্পে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গ্যাস সংযোগের বিষয়ে উদ্যোগ নেবে সম্মিলিত পরিষদ। ৩. রাজস্বসংক্রান্ত জটিলতা নিরসন : রাজস্ব বোর্ডসংক্রান্ত জটিলতা নিরসনের জন্য বেশ কিছু প্রস্তাবনা এসেছে ইশতেহারে। ৪. শুল্ক/আয়কর/ভ্যাট/নগদ সহায়তাসংক্রান্ত জটিলতা নিরসন : পোশাকশিল্পের উন্নয়নে নীতি সহায়তা, যেমন- ননকটন পোশাক রপ্তানি উৎসায়িত করতে বিশেষ প্রণোদনা, সোলার সিস্টেম স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় সরঞ্জামাদির শুল্কমুক্ত আমদানিসহ বেশ কিছু প্রস্তাবনা রয়েছে। ৫. ব্যাংক ও আর্থিক সেবাসংক্রান্ত উদ্যোগ : রপ্তানিমুখী পোশাকশিল্পের জন্য ব্যাংকঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নিয়ে আসা, ডলারের বিশেষ রেট ধার্যকরণ ইত্যাদি প্রস্তাবনা এ অধ্যায়ে দেওয়া হয়েছে। ৬. টেকসই শিল্পায়ন, সমৃদ্ধ অর্থনীতি : ইনোভেশন, ডিজাইন ডেভেলপমেন্ট ইত্যাদি বিষয়ে আমাদের কর্মপরিকল্পনা এখানে উল্লেখ করা হয়েছে। ৭. পণ্য ও বাজার বহুমুখীকরণ : পণ্য বহুমুখীকরণ ও বাজার সম্প্রসারণে আমাদের কর্মপরিকল্পনা এখানে আমরা দিয়েছি। এখানে এলডিসি গ্রাজুয়েশন উত্তর রপ্তানি সুবিধা অব্যাহত রাখতে অ্যাপারেল ডিপ্লোম্যাসিসহ কার্যকরী উদ্যোগের উল্লেখ করা হয়েছে। ৮. অংশীদারমূলক বিজিএমইএ গঠন : বিজিএমইএ সদস্যদের অংশগ্রহণ বাড়িয়ে একটি অংশগ্রহণমূলক ও জবাবদিহিমূলক বিজিএমইএ সৃষ্টির লক্ষ্যে আমাদের পরিকল্পনা এখানে উল্লেখ করা হয়েছে। ৯. সবুজ বিপ্লবের সমৃদ্ধি : কার্বন নিঃসরণ হ্রাসকরণসহ আমাদের পোশাকশিল্পে যে সবুজ বিপ্লব ঘটেছে তাকে পরবর্তী ধাপে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রস্তাবনা দেওয়া হয়েছে। ১০. পোশাকশিল্পের ভাবমূর্তি উন্নয়ন : পোশাকশিল্পের আন্তর্জাতিক ভাবমূর্তি উন্নয়নে কর্মপরিকল্পনার কথা বলা হয়েছে। ১১. মধ্যম শ্রেণির ব্যবস্থাপকদের কর্মদক্ষতা উন্নয়ন : চতুর্থ শিল্প বিহুবের ধারণাকে সামনে রেখে কারখানায়গুলোর মধ্যম শ্রেণি ব্যবস্থাপকদের দক্ষতা উন্নয়নে পরিকল্পনা এখানে উল্লেখ করা হয়েছে। ১২. ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ শিল্পের জন্য প্রণোদনা ও নীতি সহায়তা : স্বল্পোন্নত দেশ হতে উন্নত দেশে পরিণত হওয়ার কারণে ভবিষ্যতে ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ শিল্পে বিনিয়োগ ব্যবসায় টিকে থাকার জন্য জরুরী। তাই ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ শিল্পের জন্য প্রণোদনা ও নীতি সহায়তায় কাজ করবে। ১৩. সার্কুলার ইকোনমি : সার্কুলারিটি তথা রিসাইক্লিং প্রমোশনের নিমিত্তে কর্মপরিকল্পনা নিয়ে কাজ করবে পরিষদ। ১৪. ইউনিফাইড কোড অব কন্ডাক্ট : ইউনিফাইড কোড অব কন্ডাক্ট বাস্তবায়নের জন্য কাজ করার কথা বলা হয়েছে। ১৫. আরএসসিসংক্রান্ত জটিলতা নিরসন : আরএসসির সচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণের জন্য উদ্যোগ নেবে সম্মিলিত পরিষদ।
২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
রোববার বিজিএমইএ নির্বাচনের ইশতেহার ঘোষণা করে সম্মিলিত পরিষদ। ছবি : কালবেলা
ads
এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস, কারাগারে দুই শিক্ষক
এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস, কারাগারে দুই শিক্ষক
নিলাম ছাড়াই সরকারি ব্যারাকের ঘর ভেঙে নিলেন ইউপি সদস্য
নিলাম ছাড়াই সরকারি ব্যারাকের ঘর ভেঙে নিলেন ইউপি সদস্য
মৌলভীবাজারে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত
মৌলভীবাজারে জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত
আমের মুকুলে মিষ্টি সুবাস
আমের মুকুলে মিষ্টি সুবাস
ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন মৃৎশিল্পীদের
ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন মৃৎশিল্পীদের
আ.লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার
আ.লীগ নেতার রক্তাক্ত মরদেহ উদ্ধার
গাজীপুরে মার্কেটে আগুন
গাজীপুরে মার্কেটে আগুন
শিক্ষার্থীকে শাসন করায় শিক্ষককে বেধড়ক মারধর
শিক্ষার্থীকে শাসন করায় শিক্ষককে বেধড়ক মারধর
ads
আমার এলাকার সংবাদ
অনুসন্ধান

ফরাসি অভিনেতার বাড়িতে মিলল ৭২টি বন্দুক

ফ্রান্সের কিংবদন্তি অভিনেতা অ্যালাইন ডেলনের বাড়ি থেকে ৭২টি বন্দুক ও তিন হাজার রাউন্ডের বেশি গুলি উদ্ধার করেছে ফরাসি পুলিশ। এ ছাড়া তার বাড়িতে একটি শুটিং রেঞ্জও পাওয়া গেছে। খবর বিবিসির। ডেলনের বাড়িটি ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস থেকে প্রায় ১৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণে ডুচি-মন্টকরবন এলাকায়। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সেখানে অভিযান চালিয়ে এসব উদ্ধার করে পুলিশ। আদালত থেকে নিযুক্ত এক কর্মকর্তা ডেলনের বাড়িতে বন্দুক দেখতে পান এবং বিষয়টি তিনি একজন বিচারককে অবহিত করেন। এরপরই তার বাড়িতে তল্লাশির অভিযান পরিচালনার নির্দেশ দেন আদালত। ফরাসি আইনজীবীরা বলছেন, ডেলনের কাছে বন্দুক রাখার অনুমতি নেই। ৮৮ বছর বয়সী এই অভিনেতা ফরাসি সিনেমার সোনালি যুগের একজন তারকা। দ্য সামুরাই ও বোর্সালিনোর মতো হিট সিনেমায় ইস্পাত কঠিন ব্যক্তিত্বের কারণে সবার কাছে পরিচিত হয়ে ওঠেন তিনি। ফরাসি গণমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, ২০১৯ সালে স্ট্রোক এবং অন্য একটি অজ্ঞাত রোগের কারণে বর্তমানে এই তারকার স্বাস্থ্য খারাপ। এ ছাড়া তার পরিবারের ভাঙনের বিষয়টিও ফরাসির গণমাধ্যমের খবরে বারবার উঠে এসেছে। এখন জনসম্মুখে তেমন আসেন না এই কিংবদন্তি অভিনেতা। সর্বশেষ ২০১৯ সালে কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সম্মানসূচক পালমে ডি’অর পুরস্কার নেওয়ার সময় তিনি বড় ধরনের আয়োজনে উপস্থিত হয়েছিলেন।
ব্রিজ থেকে নদীতে পড়ল বাস, নিহত ৩১
ব্রিজ থেকে নদীতে পড়ল বাস, নিহত ৩১
মধ্যপ্রাচ্যে টিকে থাকতে ইসরায়েলকে যা করতে বললেন বাইডেন
মধ্যপ্রাচ্যে টিকে থাকতে ইসরায়েলকে যা করতে বললেন বাইডেন
রাজপথ দখলে আবারও মাঠে নামছে ইমরান খানের পিটিআই
রাজপথ দখলে আবারও মাঠে নামছে ইমরান খানের পিটিআই
এক শর্তে জাহাজে হামলা বন্ধের বিষয়টি বিবেচনা করবে ইয়েমেন
এক শর্তে জাহাজে হামলা বন্ধের বিষয়টি বিবেচনা করবে ইয়েমেন
রাশিয়ার ভয়ে পিছু হটল ন্যাটো
রাশিয়ার ভয়ে পিছু হটল ন্যাটো
রাশিয়া
৬ মাস বিশ্ববাজারে পেট্রোল বিক্রি করবে না রাশিয়া
ads
গোপনে জেনিফারের বাগদান!
গোপনে জেনিফারের বাগদান!
অক্ষয় কুমার ও টাইগার শ্রফের সিনেমার প্রচারে পুলিশের লাঠিচার্জ। ছবি : সংগৃহীত
অক্ষয়-টাইগারের প্রচারে পুলিশের লাঠিচার্জ
বলিউড অভিনেতা রণবীর কাপুর। ছবি : সংগৃহীত
১৬ বছরের ক্যারিয়ারে হিট সিনেমা মাত্র ৬টি
অনুপম রায়-পিয়া ও প্রস্মিতা। ছবি : সংগৃহীত
আবারও বিয়ে করছেন অনুপম, যা বললেন সাবেক স্ত্রী 
ফয়সাল খান ও নায়িকা অধরা খান। ছবি : সংগৃহীত
নায়িকার কোটিপতি প্রেমিক (ভিডিওসহ)
কিংবদন্তি গজল শিল্পী পঙ্কজ উদাস। ছবি : সংগৃহীত
কিংবদন্তি শিল্পী পঙ্কজ উদাস আর নেই
বিজ্ঞাপনের মডেল হলেন ফেরদৌস ও আঁখি। ছবি : সংগৃহীত
আবারও জুটি হলেন ফেরদৌস-আঁখি
ads
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র
জ্বলছে গ্যাসের চুলা। ছবি : সংগৃহীত 
ঢাকার যেসব এলাকায় বুধবার ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না 
প্রতীকী ছবি
মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না
জ্বলছে গ্যাসের চুলা। ছবি : সংগৃহীত
ঢাকার যেসব এলাকায় আজ ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকছে না 
রাজধানী ঢাকা ও আশপাশের জেলায় গ্যাস পাইপলাইন সংস্কারে নিয়মিত কাজ করছে গ্যাস সরবরাহকারী সংস্থা তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড। এর মধ্যেই ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে রুট এলাইনমেন্টের মধ্যে ইউটিলিটি প্রতিস্থাপন বা অপসারণ প্রকল্পের আওতায় পাইপলাইন সরানো হবে আজ বুধবার। এতে টানা ১৫ ঘণ্টা গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে ঢাকার বিশেষ কিছু এলাকায়। মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে তিতাস। এতে বলা হয়েছে বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত নয়াটোলা, মধুবাগ, মগবাজার, মীরেরবাগ, তেজগাঁও, হাতিরঝিল, গাবতলী, গ্রিনওয়ে, পেয়ারাবাগ, ইস্কাটন (দিলু রোড সংশ্লিষ্ট এলাকা) এলাকায় সব শ্রেণির গ্রাহকের গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। একই সময় আশপাশের এলাকায় গ্যাসের স্বল্পচাপ বিরাজ করতে পারে। গ্যাস গ্রাহকদের সাময়িক অসুবিধার কারণে আন্তরিকভাবে দুঃখপ্রকাশ করেছে তিতাস।
বইমেলায় দর্শনার্থীদের ভিড়। পুরোনো ছবি
আজ বইমেলা শুরুর সময় পরিবর্তন
গ্রেপ্তারের প্রতীকী ছবি। গ্রাফিক্স : কালবেলা
ঢাকায় মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ২৮
ইভেন্ট
বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড সিরিজ
বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড সিরিজ
আইসিসি ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ
আইসিসি ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ
লা লিগা
লা লিগা
ইপিএল
ইপিএল
ফ্রেঞ্চ লিগ
ফ্রেঞ্চ লিগ
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ
বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ
বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ
স্বাধীনতা কাপ
স্বাধীনতা কাপ
সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফুটবল
সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ ফুটবল
ফ্রেঞ্চ ওপেন
ফ্রেঞ্চ ওপেন
উইম্বলডন
উইম্বলডন
ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ
ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ
লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ
লঙ্কা প্রিমিয়ার লিগ
বুন্দেসলিগা
বুন্দেসলিগা
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ
ইউরোপা লিগ
ইউরোপা লিগ
ইউএস ওপেন
ইউএস ওপেন
X