বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩১
কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ৩১ জুলাই ২০২৩, ০৪:০৫ পিএম
আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২৩, ০৫:১২ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

এবার রাজধানীতে সমাবেশ করবে জামায়াত

সংবাদ সম্মেলনে কথা বলছেন জামায়াতের নেতারা। ছবি : কালবেলা
সংবাদ সম্মেলনে কথা বলছেন জামায়াতের নেতারা। ছবি : কালবেলা

নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা, আমিরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমানসহ গ্রেপ্তার সব নেতাকর্মী ও আলেম-ওলামাদের মুক্তি এবং দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণের দাবিতে মঙ্গলবার (১ আগস্ট) রাজধানীতে সমাবেশ করবে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী।

সোমবার (৩১ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর একটি মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানায় জামায়াত। ঢাকা মহানগরী উত্তর ও দক্ষিণ জামায়াতের উদ্যোগে এই সমাবেশ হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জামায়াতের আমির নূরুল ইসলাম বুলবুল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, মঙ্গলবার (১ আগষ্ট) দুপুর ২টায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেইটে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরীর (উত্তর ও দক্ষিণ) উদ্যোগে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে ইনশাআল্লাহ। ইতোমধ্যে আমরা সমাবেশ বাস্তবায়নে সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছি। জনগণের ভোটের অধিকার, ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠায় শান্তিপূর্ণ সমাবেশে রাজধানীর সব শ্রেণিপেশা, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে দলে দলে যোগ দিন। আমরা আশা করছি, নগরবাসীর স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহণে এটি একটি ঐতিহাসিক সমাবেশে পরিণত হবে।

তিনি বলেন, আপনারা নিশ্চয়ই লক্ষ্য করেছেন গত ১০ জুন স্বল্প সময়ের নোটিশে ঢাকার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে শান্তিপূর্ণ ও সুশৃংখল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। জনগণের দাবী আদায়ে আগামীকালকের শান্তিপূর্ণ সমাবেশ বাস্তবায়নে পুলিশ প্রশাসনসহ আমরা সবার সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি।

বুলবুল বলেন, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমান গত ২৪ জুলাই সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের লক্ষ্যে অবিলম্বে কেয়ারটেকার সরকার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা, আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমানসহ গ্রেপ্তারসহ নেতাকর্মী ও আলেম-ওলামাদের মুক্তি এবং দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণের দাবিতে ও জামায়াতে ইসলামীকে সভা-সমাবেশ করতে না দেওয়ার প্রতিবাদে ৩ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলেন। এর মধ্যে ছিল ২৮ জুলাই সব মহানগরী এবং ৩০ জুলাই সব জেলা সদরে শান্তিপূর্ণ মিছিল এবং ১ আগস্ট ঢাকা মহানগরীতে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ। ২৪ জুলাই কেন্দ্রীয় সংগঠনের পক্ষ থেকে কর্মসূচির বিষয়ে পুলিশের আইজিপিকে লিখিতভাবে অবহিত করা হয়। একইভাবে সব মহানগরী ও জেলাগুলোতে পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করে চিঠি দেওয়া হয়। ১ আগস্ট ঢাকায় বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইটে সমাবেশের বিষয়ে ২৫ জুলাই সকাল ১০টায় ই-মেইলে এবং বিকাল সাড়ে ৪টায় সুপ্রীমকোর্ট বার এসোসিয়েশনের সাবেক সহ-সম্পাদক এডভোকেট সাইফুর রহমানের নেতৃত্ব আইনজীবীদের একটি প্রতিনিধি দল ডিএমপি কমিশনারকে অবহিত করে চিঠি দিয়ে আসেন। পুলিশ কমিশনারের কার্যালয়ের উপ-পুলিশ কমিশনার সৈয়দ মামুন মোস্তফা চিঠিটি গ্রহণ করেন। মঙ্গলবার দুপুর ২টায় বায়তুল মোকাররম উত্তর গেইটে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে, ইনশাআল্লাহ। আমরা আশা করছি, দ্রুততম সময়ের মধ্যে পুলিশ প্রশাসন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

তিনি বলেন, বর্তমান ফ্যাসিবাদী সরকারের বিরুদ্ধে এবং কেয়ারটেকার সরকার প্রতিষ্ঠার দাবিতে গোটা জাতি ঐক্যবদ্ধ। সংসদ ভেঙে দিয়ে কেয়ারটেকার সরকারের অধীনে নির্বাচন, আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমানসহ নেতাকর্মী ও উলামায়ে-কেরামের মুক্তি এবং দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি নিয়ন্ত্রণের দাবিতে জামায়াত ঘোষিত শান্তিপূর্ণ মিছিলে হাজার হাজার লোকের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ প্রমাণ করে, জামায়াতের দাবির প্রতি দেশবাসীর সমর্থন রয়েছে। জামায়াতে ইসলামী বরাবরই মানুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে বলিষ্ঠ ভূমিকা পালন করে আসছে।

বুলবুল বলেন, আমরা লক্ষ্য করছি সরকার বিনা কারণে এবং অন্যায়ভাবে নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানি করে জামায়াতের শান্তিপূর্ণ মিছিল বাধাগ্রস্ত ও ভণ্ডুল করার চেষ্টা করেছে। ২৮ ও ৩০ জুলাইয়ের কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে রাষ্ট্রীয় পুলিশ ২৫০ জনেরও অধিক নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তার ও জুলুম নির্যাতন উপেক্ষা করে জামায়াতের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি জনগণ সফল করেছে। জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে ক্ষমতাকে দীর্ঘায়িত করা যাবে না। মানুষ আজ রাস্তায় নেমে এসেছে। আন্দোলন-কর্মসূচিতে সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। অতীতে কোনো সরকারই জুলুম-নির্যাতন চালিয়ে মানুষের অধিকার আদায়ের আন্দোলন ঠেকাতে পারেনি। বর্তমান সরকারও পারবে না ইনশাআল্লাহ।

তিনি আরও বলেন, জনবিচ্ছিন্ন এই সরকার রাষ্ট্রের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তাদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। জামায়াতে ইসলামীসহ বিরোধী দলের কর্মসূচিতে হামলা, বাধাদান, হয়রানী, মামলা দায়ের, গ্রেপ্তারের মাধ্যমে স্পষ্ট প্রতীয়মান হচ্ছে যে, রাষ্ট্রের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রজাতন্ত্রের সেবক হিসেবে ভূমিকা রাখার পরিবর্তে আওয়ামী লীগের দলীয় সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে ব্যস্ত। জনগণের ট্যাক্সের টাকায় পরিচালিত প্রজাতন্ত্রের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে কোনো দলের পক্ষ না হয়ে জনগণের পক্ষে ভূমিকা পালন করুন। আপনাদের কাছে আমরা নিরপেক্ষ আচরণ আশা করি।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আমীরে জামায়াত ডা. শফিকুর রহমান, নায়েবে আমীর ও সাবেক এমপি মাওলানা আনম শামসুল ইসলাম, সেক্রেটারি জেনারেল ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান, কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার সদস্য ও সাবেক এমপি শাহজাহান চৌধুরী এবং কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য সেলিম উদ্দিন যাতে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে না পারেন, সেজন্য সরকার তাদেরকে কারাগারে আটক রেখেছে। বারবার জামিন পাওয়া সত্ত্বেও তাদেরকে মুক্তি না দিয়ে ও উচ্চ আদালতের নিদেশনা উপক্ষো করে নতুন নতুন মামলায় গ্রেফতার দেখানো ও বিরোধীদলীয় সম্ভাব্য প্রার্থীদেরকে মিথ্যা মামলায় সাজা দেওয়ার ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে সরকার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা করে রেখেছে। নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীগণকে আটক রেখে শূন্য মাঠে নির্বাচন করার প্রস্তুতি প্রহসন ছাড়া আর কিছুই নয়। দেশে যাতে সুষ্ঠু ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন না হয়, সেজন্য জামায়াতের আমীরসহ শীর্ষস্থানীয় নেতাদেরকে এবং অন্যান্য রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে আটক করে রেখেছে। এ ছাড়াও আর্ন্তজাতিক খ্যাতি সম্পন্ন মোফাসেসরে কুরআন আল্লামা দেলাও্য়ার হোসাইন সাঈদী, জামায়াতের কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামকে এক যুগেরও অধিক সময় ধরে অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। বিশিষ্ট ওলামায়ে কেরামদেরকে বছরের পর বছর অন্যায়ভাবে কারারুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। আমরা অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবি করছি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের আমীর নূরুল ইসলাম বুলবুল।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য মোবারক হোসাইন, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের ভারপ্রাপ্ত আমীর আব্দুর রহমান মুসা, কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নায়েবে আমীর এডভোকেট হেলাল উদ্দিন, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ, কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সেক্রেটারি ড. রেজাউল করিম, ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারী সেক্রেটারি নাজিমুদ্দিন মোল্লা, ডা.ফখরুদ্দিন মানিক, দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি দেলোয়ার হোসেন, কামাল হোসাইন, ঢাকা মহানগরী উত্তরের প্রচার সম্পাদক আতাউর রহমান সরকার, দক্ষিণের মজলিসে শূরা সদস্য আশরাফুল আলম ইমন প্রমুখ।

এদিকে মঙ্গলবার সরকারের পদত্যাগের দাবিতে বিএনপি ও অন্যান্য দলগুলো রাজধানীসহ জেলা পর্যায়ে কর্মসূচি পালন করবে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

মোবাইল ও ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সূচকে পেছাল বাংলাদেশ

সিলেট বিমানবন্দরের উন্নয়ন কাজের গতি বাড়ানোর নির্দেশ মন্ত্রীর

বায়তুল মোকাররম এলাকায় মিটিং নিষিদ্ধের পাঁয়তারা সুখকর হবে না : চরমোনাই পীর

৬০ লাখ কর্মীকে বিদেশ পাঠাতে চায় সরকার

অফশোর গ্যাস উত্তোলনে বিদেশি বিনিয়োগ চান প্রধানমন্ত্রী

বাকস্বাধীনতা না থাকলে ভাষা থেকেও লাভ হয় না : আনোয়ারউল্লাহ চৌধুরী

‘ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে জ্বালানিতে অতিরিক্ত খরচ ১২ বিলিয়ন ডলার’

৪৫ এর কম এবং ৬৫ এর বেশি বয়সে ব্যাংকের এমডি পদ নয়

শাবিতে জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস পালিত

বইমেলায় রাশিদুল হাসান বাচ্চুর ‘ওয়াকিং অন দি পাথ অব পোয়েট্রি’

১০

শেষ সময়ে বইমেলার নিরাপত্তায় ঢিলেঢালা

১১

বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত বাতিল চান সাইফুল হক 

১২

জাবির দুই শিক্ষার্থীর বহিষ্কারাদেশ বাতিলের দাবি

১৩

শিশু চুরির মামলায় দুই নারীর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

১৪

বিআরটিসি যেন আর পিছিয়ে না যায় : তাজুল ইসলাম

১৫

ঢাবির নাটমণ্ডলে মঞ্চায়িত হচ্ছে থিয়েটার বিভাগের নাটক ‘সিদ্ধান্ত’

১৬

টিআইবির ফেলোশিপ পেলেন সাংবাদিক সজিবুর রহমান

১৭

রংপুরে এরিক ও বিদিশার ওপর হামলার অভিযোগ

১৮

বইমেলার সময় বাড়ল

১৯

রিহ্যাব নির্বাচনে ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের নিরঙ্কুশ জয়

২০
X