কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ১৪ মে ২০২৪, ০২:২০ এএম
আপডেট : ১৪ মে ২০২৪, ০৭:৩৮ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ
সম্পাদকীয়

দুর্ঘটনা নাকি হত্যা!

দুর্ঘটনা নাকি হত্যা!

দুর্ঘটনার আভিধানিক অর্থ, একটি অদৃষ্টপূর্ব, অকল্পনীয় এবং আকস্মিক ঘটনা। কিন্তু সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা ও নিয়মনীতিকে অবহেলা ও উপেক্ষার কারণে যখন কোনো ঘটনা ঘটে তখন তাকে আর আকস্মিক বা অদৃষ্টপূর্ব বলার উপায় থাকে না। এই যেমন ধরুন, গাজীপুরে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের লিফটে আটকে এক রোগীর মৃত্যু। গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার রানীগঞ্জ বাড়িগাঁও গ্রামের শারফুদ্দিনের স্ত্রী মমতাজ বেগম বুকে ব্যথা নিয়ে রোববার সকালে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে যান। তাকে প্রথমে মেডিসিন বিভাগে পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় জানা যায় তার হার্টে সমস্যা। পরে চিকিৎসকদের পরামর্শে সকাল সাড়ে ৯টায় ১১তলা থেকে তাকে লিফটে চারতলায় হৃদরোগ বিভাগে নেওয়া হচ্ছিল। লিফটটি ৯ তলার মাঝামাঝি গিয়ে বন্ধ হয়ে যায়। নিহতের মেয়ে শারমিন জানিয়েছেন, তার মাকে নিয়ে ১১তলা থেকে লিফটে চারতলায় যাচ্ছিলেন। ৯তলার মাঝামাঝি লিফট বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় লিফটে মা, তিনি, তার মামা, ভাইসহ আরও কয়েকজন ছিলেন। তাদের দম বন্ধ হয়ে আসছিল। তারা তিন লিফটম্যানকে ফোন দিয়ে বিষয়টি জানান। কিন্তু তারা ফোনে তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন। পরে ৯৯৯-এ কল করলে ৪৫ মিনিট পর ফায়ার সার্ভিস এসে তাদের উদ্ধার করে। কিন্তু এর মধ্যেই তার মা মারা যান।

লিফটের ভেতর মমতাজ বেগম মৃত্যুর ঘটনাটি খোদ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ স্বীকার করেছে। সেইসঙ্গে যথারীতি তারা বলেছে, বিষয়টি তারা তদন্ত করবে। মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান রুবিনা ইয়াসমিনকে প্রধান করে ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন হয়েছে। কমিটিকে তিন কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এ কথা মিথ্যে নয় যে, আমাদের দেশে অধিকাংশ ক্ষেত্রে তদন্ত কমিটি গঠন করাই হয় প্রকৃত সত্যকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্য। এক্ষেত্রেও হয়তো এর ব্যত্যয় ঘটবে না। তবুও আমরা ধরেই নিলাম এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হবে। দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে। বিচারে দোষীদের উপযুক্ত শাস্তিও হবে। তাতে কি মমতাজ বেগমের অকালপ্রয়াণে তার পরিবারের যে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে, তার বিন্দুমাত্র পূরণ হবে? সবকিছুই কি শাস্তির মাপকাঠিতে পরিমাপ করা যায়?

আবার যেমন ধরুন, সড়ক-মহাসড়কে প্রতিদিন নিয়মিতভাবে যেসব দুর্ঘটনায় অসংখ্য মানুষ আহত ও নিহত হচ্ছে। রোববার ফেনীতে মায়ের চোখের সামনেই একটি বালুবাহী ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে এক শিশু মারা গেছে। তার নাম জান্নাতুল মাওয়া রাইসা। সে সোনাগাজী উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের সফরপুর গ্রামের হাজারী বাড়ির কুয়েতপ্রবাসী সালিম উল্যাহ হাজারীর মেয়ে ও স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল। রোববার দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনী সদর উপজেলার কসকা নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবরে প্রকাশ, রোববার দুপুর ১২টার দিকে শিশু জান্নাতুল তার মাসহ অন্য স্বজনদের সঙ্গে মায়ের নানাবাড়ি থেকে বেড়ানো

শেষে নিজেদের বাড়িতে ফিরছিল। পথে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক পারাপারের সময় শিশু জান্নাতুল ও তার মামা মো. সজীব সবার সামনে সড়ক পার হচ্ছিল। এ সময় একটি বালুবাহী ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে রাইসা ঘটনাস্থলে মারা যায়। তার মামা সজীব গুরুতর আহত হয়।

ধারাবাহিক এসব ঘটনাকে এখন আর নিছক দুর্ঘটনা বলা যায় না। এগুলো অসচেতনতা, ব্যবস্থাপনা বা অবহেলাজনিত দুর্ঘটনা। সুতরাং, এসব বিষয় গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা এবং যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

মঙ্গলবার কেমন থাকবে আবহাওয়া?

নির্মাণাধীন ভবনের পিলার পড়ে স্কুলছাত্র নিহত

ঘূর্ণিঝড় রিমাল / বাউফলে ঘরচাপায় বৃদ্ধের মৃত্যু

নাটোরে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

প্রধানমন্ত্রী না ঘুমিয়ে মানুষের কথা ভাবেন : প্রতিমন্ত্রী

স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

আসামির বিয়ে, পুলিশের খবর নেই

মিল্টনের আশ্রমে প্রশাসক নিয়োগ দিয়েছে সমাজসেবা অধিদপ্তর

মাথা গোঁজার সম্বল হারিয়ে দুশ্চিন্তায় দুর্গতরা

পছন্দের প্রার্থীকে জেতাতে ঘরে ঘরে টাকা বিতরণ

১০

পুলিশ-আওয়ামী লীগ নেতাদের ছত্রছায়ায় সাভারে কারখানা দখল

১১

চুয়েটে দুর্যোগসহনীয় শহর নির্মাণবিষয়ক কর্মশালা

১২

আশুলিয়ায় ৩৯৫ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক ২

১৩

খাদ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় হাইকমিশনারের বৈঠক

১৪

জাল নোট শনাক্তকরণ ও প্রচলন প্রতিরোধে আইএফআইসি ব্যাংকের কর্মশালা

১৫

কৃষকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান করল সাউথইস্ট ব্যাংক

১৬

উচ্চশিক্ষার সকল তথ্য যথাযথভাবে সংরক্ষণের আহ্বান ইউজিসি’র

১৭

ঘূর্ণিঝড় রিমালের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড হাতিয়া

১৮

পটুয়াখালীতে কুকুরের কামড়ে আহত অর্ধশতাধিক 

১৯

ঘূর্ণিঝড়ে বিদ্যুৎহীন পৌনে ৩ কোটি গ্রাহক

২০
X