সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩১
ফেনী জেলা প্রতিনিধি :
প্রকাশ : ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩, ১১:১৭ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

এক উপজেলার ৩৮ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নেই প্রধান শিক্ষক 

ছবি : সংগৃহীত

ফেনীর সোনাগাজী উপজেলার ১১০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৩৮টিতে নেই প্রধান শিক্ষক। এসব বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকেরা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন ও পাঠদান কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। এতে ব্যাহত হচ্ছে প্রাথমিকের সঠিক মাত্রার অন্তর্ভুক্তিমূলক ও গুণগত পাঠদান, শিশু বিকাশ ও প্রশাসনিক কাজ। এছাড়া সহকারী শিক্ষকের ৬৭২টি পদের মধ্যে ৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে। দ্রুত এ সমস্যা নিরসন প্রয়োজন বলে মনে করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবকসহ সবাই।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপকূলীয় এ উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় মোট ১১০টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৩৮টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক বিহীন। প্রধান শিক্ষক বিহীন বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষককে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। এছাড়া ৪১টি বিদ্যালয়ে সরাসরি প্রধান শিক্ষক এবং ৩১টি বিদ্যালয়ে ‘চলতি দায়িত্বপ্রাপ্ত’প্রধান শিক্ষক দিয়ে পাঠদান ও প্রশাসনিক কাজ করানো হচ্ছে। এছাড়া সহকারী শিক্ষকের ৬৭২টি পদের মধ্যে ৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

জানা গেছে, প্রধান শিক্ষক-শূন্য বিদ্যালয়গুলোতে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন সিনিয়র শিক্ষকরা। এতে একদিকে স্কুল পরিচালনা, অন্যদিকে প্রশাসনিক কার্যক্রম পালন শেষে শিক্ষার্থীদের পাঠদান করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন তারা। ফলে ব্যাঘাত ঘটছে শিক্ষার্থীদের পাঠকার্যক্রম।

অভিভাবকরা বলছেন, একজন মানুষের পক্ষে এত কাজ সামলানো খুবই দুঃসাধ্য ব্যাপার। অভিভাবকদের ভাষ্যমতে, শিক্ষার্থীদের ভিত শক্ত করার স্তর হলো প্রাথমিক। সেখানে যদি কোনো ত্রুটি থাকে তবে সেই শিক্ষার্থীরা মাধ্যমিক এবং ক্ষেত্রবিশেষে উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ে ভোগান্তিতে পড়ে। অভিভাবকরা সোনাগাজীর প্রাথমিক খাতে দ্রুত পর্যাপ্ত প্রধান ও সহকারী শিক্ষক পদায়নের অনুরোধ জানিয়েছেন।

অভিভাবকরা আরও বলেন, প্রধান শিক্ষক-শূন্যতার কারণে প্রাথমিক শিক্ষার গুণগতমান ধরে রাখা সম্ভব হয় না। ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকদের পাঠদানের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রশাসনিক কাজ, শ্রেণিকক্ষ পর্যবেক্ষণসহ সভা-সেমিনারে অংশ নিতে হয়। ফলে পাঠদানে তারা পর্যাপ্ত সময় দিতে পারেন না। শিক্ষকরা বলছেন, ‘সহকারী শিক্ষক না থাকলে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককেও দাপ্তরিক কাজের পাশাপাশি অনেক ক্লাস নিতে হয় তাদের। আবার প্রধান শিক্ষক না থাকলে সহকারী শিক্ষক প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন। প্রধান শিক্ষকের দাপ্তরিক যে কাজগুলো রয়েছে তাতে এখন আমাদের অনেক বেশি চাপ সৃষ্টি হয়েছে। এতে দাপ্তরিক কাজ করতে গিয়ে ক্লাস করানো যায় না ঠিকমতো। যার ফল ভোগ করছে খুদে শিক্ষার্থীরা।’

কয়েকটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, ‘দীর্ঘদিন ধরে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ ও পদোন্নতি বন্ধ থাকায় সিনিয়র সহকারী শিক্ষকদের কাঁধে বাড়তি দায়িত্ব চেপেছে। অথচ দায়িত্ব পালনকালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকরা সরকারি তেমন কোনো সুযোগ-সুবিধা পান না’।

বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সোনাগাজী উপজেলা শাখার সাধারন সম্পাদক নুরুল আলম বলেন, ‘প্রধান শিক্ষক ছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অভিভাবকহীন। পদ শূন্য থাকায় প্রধান শিক্ষকের কাজ অন্য আরেকজন শিক্ষককে বাড়তি দায়িত্ব নিয়ে করতে হচ্ছে। দায়িত্বের কারণে পাঠদানের পাশাপাশি তাদের বিভিন্ন প্রশাসনিক কাজ, শ্রেণিকক্ষ পর্যবেক্ষণ, সভা-সেমিনারে অংশ নেওয়াসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজ করতে হয়’।

উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার মো. ওয়াহিদুর রহমান কালবেলাকে বলেন, ‘শিক্ষক সংকট থাকলেও মানসম্মত পাঠদানের ক্ষেত্রে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। শিক্ষার্থীরা যেন যথাযথভাবে পাঠ্য গ্রহণ করতে পারে সে লক্ষ্যে শিক্ষকদের প্রতি আমাদের নজরদারি রয়েছে’।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা শিক্ষা অফিসার নজরুল ইসলাম কালবেলাকে বলেন, ‘আমাদের ৩৮টি বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নেই। প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতি দিলে শিক্ষক সংকট দূর হবে। যেসব বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে সেগুলোর তালিকা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। আশা করছি শিগগিরই প্রধান শিক্ষকের ঘাটতি পূরণ হবে। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদগুলো পদোন্নতির মাধ্যমে পূরণ করা হবে। এটির জন্য প্রক্রিয়া চলছে। তবে কবে নাগাদ হবে এটি নিদিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না, কিন্তু হয়ে যাবে আশা করছি’।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

৩১ হাজার ইউক্রেনীয় সেনা হারিয়েছে জেলেনস্কি

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির নির্বাচনে বিজয়ী হলেন যারা

যবিপ্রবির ৩ প্রশাসনিক পদে রদবদল

জ্বর থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে ভুলেও খাবেন না এসব খাবার

ছেলের বিরুদ্ধে বাবাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

অবশেষে ব্রাজিলের হেক্সা মিশন সফল

রংপুরে ৫ গ্রামের মানুষের ভরসা বাঁশের সাঁকো

পোস্তগোলা সেতু পুরোদমে বন্ধ

তিস্তার চরে চাষ করা ফসলের বাম্পার ফলন

নিয়োগ দিচ্ছে বিআইডব্লিউটিএ, বেতন ৬৭ হাজার

১০

সুন্নাতে খতনার উপকারিতা ও বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা

১১

কেমন থাকবে আজকের আবহাওয়া

১২

রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি, আবেদন করবেন যেভাবে

১৩

ব্র্যাক এনজিওতে নিয়োগ, নেই বয়সসীমা

১৪

সোমবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

১৫

কী ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনে

১৬

২৬ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

১৭

পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশ করায় যুবকের কারাদণ্ড

১৮

‘সৃষ্টিকর্তার যে কাজ অপছন্দ, ইবলিশ তা সবচেয়ে বেশি পছন্দ করে’

১৯

বিনামূল্যে শতাধিক শিশুর হার্টে প্রয়োজনীয় ডিভাইস স্থাপন

২০
X