কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ১১ জুন ২০২৪, ০৮:৫৫ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

‘বাজেট প্রণয়ন থেকে বাজেট বাস্তবায়নে কোথাও জনগণের অংশগ্রহণ নেই’

‘প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে অংশীদারিত্ব এবং বাজেট  ভাবনা’ শীর্ষক সেমিনারে অতিথিরা। ছবি : কালবেলা
‘প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে অংশীদারিত্ব এবং বাজেট  ভাবনা’ শীর্ষক সেমিনারে অতিথিরা। ছবি : কালবেলা

বাজেট যখন প্রণয়ন করা হয় তখন মাঠপর্যায়ের মানুষের সঙ্গে কথা বলা হয় না। জনগণের জন্য বাজেট করছেন জনগণের মতামত নিচ্ছেন না। বাজেট প্রণয়ন থেকে বাজেট বাস্তবায়ন পর্যন্ত কোথাও জনগণের অংশগ্রহণ নেই।

মঙ্গলবার(১১ জুন) হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট সেন্টার ও এএলআরডির যৌথ আয়োজনে ‘প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে অংশীদারিত্ব এবং বাজেট ভাবনা’ শীর্ষক এক সেমিনারে এসব কথা বলেন অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক আবুল বারকাত।

তিনি বলেন, প্রতিবছর বাজেটে কিছু কিছু খাতে ভালো বরাদ্দ পেলেও সেখানে পারিবারিক কৃষি, গ্রামীণ নারী, আদিবাসী জনগোষ্ঠী ও কৃষি-ভূমি-জলা সংস্কার খাত একদম অবহেলিত। এই খাতে জনগোষ্ঠীর মানুষের জীবন মান-উন্নয়নে আলাদা কোনো বরাদ্দ থাকে না। তবে সরকারের এসব খাতকে আলাদা করে বরাদ্দ দেওয়া উচিত। কারণ আমাদের হিসেবে বিভিন্ন খাতে সরকারের পারিবারিক কৃষির জন্য বরাদ্দ ৪০ হাজার ৫৬৭ কোটি টাকা যা মোট বাজেটের ৫.৩ শতাংশ ছিল। যদি গত বছরের মতো এ বছরও একই রকম বরাদ্দ থাকে তা হতে পারে প্রায় ৪৫ হাজার ৫৫৭ কোটি টাকা।

সিরডাপ মিলনায়তনের সেমিনারে এই অর্থনীতিবিদ বলেন, বাংলাদেশের জনসংখ্যার অর্ধেক নারী আর মোট জনসংখ্যার ৩৫.১ শতাংশ গ্রামীণ নারী। আমাদের হিসাবে গত বাজেটে গ্রামীণ নারীদের জন্য বরাদ্দ ছিল ৩১ হাজার ৩১৩ কোটি টাকা। যা মোট বাজেটের ৪.১ শতাংশ। চলমান বাজেট বরাদ্দে গ্রামীণ নারী তার ন্যায্য বরাদ্দ পাননি। আদর্শ অবস্থা বাস্তবায়ন কঠিনসাধ্য। তাই গ্রামীণ নারীর জন্য বিদ্যমান মাথাপিছু বরাদ্দের নিদেন পক্ষে দাবি করছি। গ্রামীণ নারীর মধ্যে ভূমিহীন, কৃষি-মৎসজীবিতার সাথে যুক্ত নারী, বিধবা এবং প্রতিবন্ধী নারীর সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৯০ লাখ। তাদের বাজেট-বরাদ্দ বঞ্চনা আরও বেদনাদায়ক। অনুমিত যে এই ধরনের গ্রামীণ নারীরা বাজেট থেকে মাথাপিছু পান সর্বোচ্চ ৭ হাজার ৫৭০ টাকা।

এ সময় তিনি বলেন, আদিবাসী জনগোষ্ঠীর জন্য বাজেটে কোনো কাঙ্ক্ষিত ফল নেই। বাংলাদেশে কতসংখ্যক আদিবাসী আছে তার কোনো সরকারি পরিসংখ্যান নেই দেশে। চলতি অর্থবছরে আদিবাসী জনগোষ্ঠীর জন্য মোট বরাদ্দ ছিল ৬ হাজার ২৩ কোটি টাকা। আমরা আগামী অর্থবছরে এর দ্বিগুণ দাবি করছি এই জনগোষ্ঠীর মানুষের উন্নয়নের জন্য।

সেমিনারে আরও আলোচনা করেন ড. জামাল উদ্দিন, বাংলাদেশ নারী সাংবাদিক কেন্দ্রের সভাপতি নাসিমুন আরা হক মিনু, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের কেন্দ্রীয় সহ-সাধারণ সম্পাদক রাজ্জেকুজামান রতন, এএলআরডি প্রধান নির্বাহী পল্লব চাকমা, হিজরা জনগোষ্ঠীর প্রতিনিধি জয়িতাসহ অনেকে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ফুটবল বিশ্বকাপের এক দিনে ৬ ম্যাচ

রোহিঙ্গা যুবককে জন্মনিবন্ধন করানো সেই ইউপি সচিব কারাগারে

সিলেটে বন্যাদুর্গত এলাকায় ওষুধ-চিকিৎসায় মেডিকেল টিম

নৌকাডুবিতে রংপুর মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীসহ দুজনের মৃত্যু

দেশে দেশে ঘুরে চুক্তি করে লাভ হবে না : খসরু 

রথযাত্রার দিন এইচএসসি পরীক্ষার তারিখ পরিবর্তনের দাবি বিএসপির

মৌলভীবাজারে বন্যা, খাদ্য সংকটে বিপাকে মানুষ

সিলেটে বন্যা / পানিবন্দি ১০ লাখ মানুষ, আশ্রয়কেন্দ্রে পৌঁছায়নি পর্যাপ্ত ত্রাণ

স্ত্রীকে হত্যা করে মসজিদের সিঁড়ির নিচে লুকানো মুয়াজ্জিন আটক

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎ 

১০

শামিকে বিয়ে করছেন সানিয়া? কী বললেন টেনিস সুন্দরীর বাবা

১১

বন্যা ও ভারি বর্ষণে শাবিপ্রবির ক্লাস-পরীক্ষা নিয়ে সিদ্ধান্ত

১২

নোয়াখালীতে অপহরণের ১৩ দিন পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার

১৩

বিশ্বনাথে বন্যা / উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আশ্রয় পায়নি অর্ধশত বানভাসী

১৪

নয়াদিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীকে লালগালিচা অভ্যর্থনা

১৫

কালবেলায় সংবাদ প্রকাশের পর বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের হল থেকে দুজন আটক

১৬

হাঁড়িভাঙা আম দেখলেই মায়া লাগে : কৃষিমন্ত্রী

১৭

পাবনায় ‘ঢালারচর এক্সপ্রেস’ ট্রেনে কাটা পড়ে বৃদ্ধার মৃত্যু

১৮

ন্যাটোর পরবর্তী প্রধান হচ্ছেন মার্ক রুটে

১৯

বারবার কারা নির্যাতনেই মাখনের মৃত্যু, অভিযোগ রিজভীর

২০
X