ব্রাহ্মণপাড়া (কুমিল্লা) প্রতিনিধি
প্রকাশ : ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩, ১০:৫৪ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

অসময়ের বৃষ্টিতে দিশেহারা সবজি চাষি

ক্ষেতে জমা বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের চেষ্টা। ছবি : কালবেলা
ক্ষেতে জমা বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের চেষ্টা। ছবি : কালবেলা

ঘূর্ণিঝড় মিগজাউমের প্রভাবে গত বুধবার রাত থেকে বৃষ্টিতে শঙ্কিত কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার চাষিরা। যত্নে ফলানো শীতকালীন নানা ধরনের সবজিসহ আলু ও এখনও জমিতে থাকা আমনধান এবং বোরোধানের বীজতলার ক্ষতির আশঙ্কা করছেন চাষিরা। জমিতে জমে যাওয়া বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের কাজে উঠেপড়ে লেগেছেন তারা। অসময়ের বৃষ্টিতে শঙ্কিত হয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন চাষিরা।

এদিকে ৬ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টা থেকে ৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কুমিল্লায় ২৯.১ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আজ শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে আগামী ১-২ দিনের মধ্যে চলমান আবহাওয়া পরিস্থিতির উল্লেখযোগ্য উন্নতি হতে পারে বলে মনে করছেন আবহাওয়া অধিদপ্তর।

জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যা থেকেই এ উপজেলায় থেমে থেমে গুঁড়িগুঁড়ি ও মাঝারি বৃষ্টি শুরু হয়। পর দিন বৃহস্পতিবার সারা দিনে বিরামহীন বৃষ্টি হয়েছে। আজ শুক্রবার বৃষ্টি না থাকলেও আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে। এতে শীতকালীন সবজি ক্ষেতের ক্ষতির আশঙ্কায় চাষিরা। এ ছাড়া জনজীবনে নেমে এসেছে স্থবিরতা।

সরেজমিনে গিয়ে উপজেলা সদরসহ উপজেলার দুলালপুর, সাহেবাবাদ, চান্দলা, সিদলাই ও মাধবপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন মাঠ ও জনপদ ঘুরে দেখা গেছে, ঘূর্ণিঝড় মিগজউমের প্রভাবে বর্ষিত মাঝারি বৃষ্টিপাতে ফসলি মাঠের শীতকালীন সবজির ক্ষতির আশঙ্কায় চাষিরা। টানা বৃষ্টিতে মাঠে মাঠে ফসলি ক্ষেতে পানি জমে গেছে। জমে যাওয়া বৃষ্টিজল নিষ্কাশনের কাজে উঠেপড়ে লেগেছেন সংশ্লিষ্ট চাষিরা। অসময়ের বৃষ্টিতে আলুসহ নানা রকম সবজি, এখনও সংগ্রহ করা হয়নি আমনধান ও বোরোধানের বীজতলার ক্ষতির আশঙ্কায় রয়েছেনব এই উপজেলার প্রান্তিক চাষিরা।

উপজেলার মহালক্ষীপাড়া এলাকার চাষি আবু কাউসার বলেন, ঘূর্ণিঝড় মিগজাউমের কারণে গুঁড়ি গুঁড়ি মাঝারি বৃষ্টির ফলে সৃষ্ট বৈরী আবহাওয়ায় আমাদের সবজি ক্ষেতের ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করছি। জমিতে জমে যাওয়া বৃষ্টির পানি সরানোর কাজে আমরা এখন ব্যস্ত। জানি না শেষ পর্যন্ত শেষ রক্ষা করতে পারি কি না।

উপজেলার দুলালপুর এলাকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, গত তিন দিন আগে ২২ শতক জমিতে বোরোধান আবাদের লক্ষ্যে বীজতলা তৈরি করে বীজ ফেলেছিলাম, ঘূর্ণিঝড় মিগজাউমের কারণে সৃষ্ট বৃষ্টিতে বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। জমি থেকে জমা পানি সরানোর কাজ করছি।

উপজেলার অলুয়া এলাকার আলুচাষি মমিনুল ইসলাম জানান, কোদাল দিয়ে জমির আইল কেটে পানি সরানোর কাজ করছেন তিনি। তারপরও আবাদ করা আলুবীজ রক্ষা করতে পারবো কি না, আছেন এই অনিশ্চয়তায়। হঠাৎ করে আসা এই প্রতিকূলতার জন্য প্রস্তুত ছিলেন না তিনিসহ অন্যান্য চাষিরা।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. মাসুদ রানা বলেন, বৃষ্টিপাতের কারণে আলুসহ অন্যান্য সবজি ফসলে পানি জমে ফসলের ক্ষতি হতে পারে তাই পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য কৃষকদের পরামর্শ প্রদান করার জন্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। পরবর্তীতে আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে সবজি চাষ লক্ষমাত্রা অতিক্রম করবে, এই ব্যাপারে আমরা আশাবাদী।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

৫ মার্চ : নামাজের সময়সূচি

সারিয়াকান্দিতে অপহৃত স্কুল শিক্ষার্থীর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

বগুড়ায় মাটি খুঁড়তে গিয়ে তিনটি গ্রেনেড উদ্ধার

টাকা-ডলার অদলবদলে রিজার্ভের পালে হাওয়া

শিশু ধর্ষণ মামলায় মাহেন্দ্র চালকের যাবজ্জীবন

সেপটিক ট্যাংকের গর্তে মাটি চাপা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

ফোনে কথা বলার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু

চাঁদার দাবিতে ৪ তরমুজ চাষিকে কুপিয়ে জখম

চট্টগ্রামের সুগার মিলের আগুন পুড়ল এক লাখ টন চিনি

১০

কর্তৃপক্ষের সমন্বয়হীনতায় পরিস্কার পানি থেকে বঞ্চিত লক্ষাধিক মানুষ

১১

দণ্ডিত মেজর হাফিজ আত্মসমর্পণ করবেন মঙ্গলবার

১২

মেহেরপুরে ৫ ঘণ্টায় ১ তালাক

১৩

রোহিঙ্গাদের মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

১৪

তিনশ একর প্যারাবন ২১ দখলদারের কবলে

১৫

১০ মাসে হাতে কোরআন লিখলেন ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

১৬

সংসদে ১০ মিনিটের জন্য নিজেকে বিরত রাখলেন লতিফ সিদ্দিকী 

১৭

চট্টগ্রামের সুগার মিলের আগুন নিয়ন্ত্রণে

১৮

রমজানে চাকরিজীবীদের কর্মঘণ্টা কমালো আমিরাত

১৯

রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক পেলেন সাতক্ষীরার বায়েজিদ হোসেন 

২০
X