কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ২৩ মে ২০২৪, ০৯:৫৫ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

চেচেন নেতা রমজান কাদিরভের সঙ্গে পুতিনের বৈঠক

বৈঠকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও চেচেন নেতা রমজান কাদিরভ। ছবি : সংগৃহীত
বৈঠকে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও চেচেন নেতা রমজান কাদিরভ। ছবি : সংগৃহীত

চেচেন নেতা রমজান কাদিরভের সঙ্গে বৈঠক করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) রমজান কাদিরভ নিজেই এ তথ্য জানিয়েছেন। বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বৈঠকে চলমান রাশিয়া ইউক্রেন সংঘাত নিয়ে তারা আলোচনা করেছেন। এ সময় রাশিয়াকে আরও যোদ্ধা পাঠিয়ে সহযোগিতার প্রস্তাব দেন এ চেচেন নেতা।

রমজান কাদিরভ ২০০৭ সাল থেকে রাশিয়ার একান্ত অনুগত হিসেবে দক্ষিণ ককেশাস অঞ্চলের নেতৃত্বে রয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম পুতিনের সঙ্গে নিজের ছবি শেয়ার করেছেন তিনি। এ ছাড়া তিনি এ অঞ্চলের অর্থনৈতিক সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়েও আলোচনা করার কথা জানিয়েছেন।

চেচেন এ নেতা বলেন, রাশিয়ার হয়ে ইউক্রেনে যুদ্ধের জন্য হাজার হাজার সুপ্রশিক্ষিত সেনা প্রস্তুত ছিল। নির্দেশ পাওয়া মাত্রই এসব সেনা মাঠে ঝাঁপিয়ে পড়তে প্রস্তুত। এ ছাড়া ইতোমধ্যে ১৮ হাজার স্বেচ্ছাসেবকসহ মোট সাড়ে ৪৩ হাজার সেনা ইউক্রেনে কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

রমজান কাদিরভ জানান, জনগণের পক্ষ থেকে আমি তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছে এবং চেচেন প্রজাতন্ত্রে আসার আমন্ত্রণ জানিয়েছি।

চেচেনের এ নেতাকে নিয়ে অসুস্থতার গুঞ্জন রয়েছে। তরে নিজের অসুস্থতার কথা অস্বীকার করে আসছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যায়াম ও মিটিং পরিচালনার ছবি পোস্ট করছেন তিনি।

এর আগে গত বছরে গুরুতর অসুস্থ রমজান কাদিরভ বলে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে। ওই সময়ে ইউক্রেনের গোয়েন্দা সূত্র তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে দাবি করে।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে পিতা আখমাদ কাদিরভের মৃত্যুর পর ক্ষমতায় আসেন রমজান কাদিরভ। দ্বিতীয় চেচেন যুদ্ধে বিদ্রোহী চেচনিয়া প্রদেশটি পুনরুদ্ধার করার পর পুতিনের শাসনভার তুলে দেন তার অনুগত চেচেন নেতা আখমাদ কাদিরভের হাতে। রাশিয়ান সামরিক বাহিনী এবং অন্যান্য নিরাপত্তা পরিষদের বিরোধিতা সত্ত্বেও চেচনিয়াকে প্রায় স্বায়ত্তশাসিতভাবে পরিচালনা করতে পুতিনের সম্পূর্ণ সমর্থন পেয়েছিলেন রমজান কাদিরভ। বিনিময়ে পুতিন চেয়েছিলেন কাদিরভকে এই অঞ্চলের বিচ্ছিন্নতাবাদী আন্দোলনকে দমন করতে হবে।

চেচেন সরকারের বাজেটের প্রায় ৯-দশমাংশের জোগান দেয় রাশিয়া। বিশাল রাষ্ট্রীয় ভর্তুকির পাশাপাশি দেওয়া হয় পুরস্কার এবং প্রণোদনা। রাজধানী গ্রোজনিতে কাদিরভ এবং তার মিত্ররা সম্পূর্ণ স্বায়ত্তশাসন ভোগ করলেও, অনেক শক্তিশালী শত্রুও ছিল তার। ওয়াগনার গোষ্ঠী ছিল সেই শত্রুদের একজন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

পাখা ছাড়া ঘুমাতে পারে না জমিদার

ঈদ জামাতের জন্য প্রস্তুত শোলাকিয়া

বাজারের প্রধান আকর্ষণ কালো পাহাড়

ভাই হারালেন ডিপজল 

সংবর্ধিত হলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শুসেন চন্দ্র শীল

সিলেটে পশুর হাটে কমছে না দাম, ক্রেতাদের অপেক্ষা

জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন রাষ্ট্রপতি

ধাওয়া দিয়ে মাঝ নদীতে লঞ্চ থামালেন ম্যাজিস্ট্রেট

গাজীপুরে মহাসড়কে যাত্রীদের ঢল, ভোগান্তি চরমে

সিলেটে ১১ ট্রাক চিনি জব্দ

১০

কোপায় ব্রাজিলের খেলা দেখবেন না রোনালদিনহো

১১

বসত ঘর থেকে হ্যাপি গোল্ড ও কিং ফিসার মদ উদ্ধার

১২

মেয়াদ শেষেও বিমার টাকা দিচ্ছে না প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স!

১৩

কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে কোরবানির গরু

১৪

টঙ দোকানের আয়ে চলছে রতন বেগমের জীবনযুদ্ধ

১৫

উত্তরের মহাসড়কে গাড়ির পেছনে গাড়ি, নেই যানজট

১৬

তাসরিফের চোখে টিউমার ধরা পড়েছে

১৭

যত্রতত্র কোরবানি করে জায়গা নষ্ট না করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

১৮

বিয়ের পর হানিমুনে না গিয়ে হজে গেলেন দম্পতি

১৯

‘হেলমেট নাই, তেল নাই’

২০
X