রাফসান জানি
প্রকাশ : ০৪ মার্চ ২০২৪, ০২:৫৪ এএম
আপডেট : ০৪ মার্চ ২০২৪, ০৮:৩৮ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ
রিমান্ডে আসামিদের তথ্য

এক সিলিন্ডারে অনেক চুলার ব্যবহার

গ্রিন কোজি কটেজ। ছবি : সংগৃহীত
গ্রিন কোজি কটেজ। ছবি : সংগৃহীত

রাজধানীর বেইলি রোডের গ্রিন কোজি কটেজ ভবনটির রেস্তোরাঁ মালিকরা তাদের প্রতিষ্ঠানের ভেতরে জায়গা বাড়াতে গ্যাস সিলিন্ডারগুলো বাইরে রেখেছিলেন। এক সিলিন্ডারে ধারণক্ষমতার বেশি চুলা ব্যবহার করছিল প্রতিষ্ঠানগুলো। গতকাল রোববার রিমান্ডের প্রথম দিনে এমন তথ্য দিয়েছেন মামলার আসামিরা। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে তদন্ত কর্মকর্তারা আরও কিছু তথ্য পেয়েছেন, যেগুলো যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

রিমান্ডে থাকা ব্যক্তিরা হলেন চুমুক রেস্টুরেন্টের দুই মালিক আনোয়ারুল হক ও শফিকুর রহমান রিমন, কাচ্চি ভাই রেস্টুরেন্টের ম্যানেজার জয়নুদ্দিন জিসান এবং ভবনের ম্যানেজার মুন্সি হামিমুল আলম বিপুল। তদন্ত-সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, রিমান্ডে থাকা আসামিদের কাছ থেকে কাকে, কীভাবে ম্যানেজ করে অবৈধ এ রেস্তোরাঁর ব্যবসা পরিচালনা করা হতো, সেই বিষয়েও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

মামলার তদন্ত-সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা বলেন, গ্রেপ্তার চারজনকে অনেক বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। কীভাবে আগুনের সূত্রপাত, কার কার অবহেলা ছিল, আগুন লাগার পর তারা কী করেছে, সেসব বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। প্রাথমিকভাবে নিচতলার একটি প্রতিষ্ঠান থেকে আগুন লাগার সত্যতা পাওয়া গেছে। প্রতিষ্ঠান মালিকরা একটি সিলিন্ডার থেকে অনেক চুলা ব্যবহার করতেন। এই কারণে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। আর সিলিন্ডারগুলো নিরাপদে না রাখার বিষয়ে তারা বলছে, ভেতরে জায়গা বাড়ানোর জন্য সিলিন্ডারগুলো রাখা হয় বাইরে। ভবন ম্যানেজমেন্টও এসব বিষয়ে চুপচাপ ছিল।

রমনা বিভাগের উপকমিশনার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন বলেন, রিমান্ডে আমরা অনেক তথ্যই পাচ্ছি। তাদের দেওয়া তথ্যগুলো যাচাই করা হচ্ছে। আমরা যেসব তথ্য পাচ্ছি, সেগুলো আদালত ও পরে যারা তদন্ত করবে, তাদের জানাব। সে অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে রমনা থানায় পুলিশের করা মামলাটির তদন্তভার সিআইডিকে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন রমনা বিভাগের উপকমিশনার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেন। তিনি জানান, গতকাল পুলিশ সদর দপ্তর থেকে মামলাটি সিআইডিতে স্থানান্তরের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

৩ জনের শঙ্কা কাটেনি, সুস্থতার পথে দুজন

বেইলি রোডের গ্রিন কোজি কটেজ ভবনটিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আহতদের মধ্যে বর্তমানে পাঁচজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাদের মধ্যে তিনজন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে এবং দুজন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এই পাঁচজনের মধ্যে তিনজন এখনো শঙ্কটাপন্ন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে শঙ্কটাপন্ন তিনজন হলেন রাকিব (২৫), মেহেদী হাসান (৩৫) ও তার স্ত্রী সুমাইয়া আকতার (২৫)। তাদের শ্বাসকষ্টসহ বেশ কিছু জটিলতা রয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। অন্যদিকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি জুবায়ের আহামেদ (২৫) ও ইকবাল হোসেন (২৩) অনেকটা সুস্থতার দিকে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল সার্জন তরিকুল ইসলাম।

এদিকে শনিবার মধ্যরাতে ডিএনএ নমুনা সংগ্রহসহ প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতা শেষে কেএম মিনহাজ উদ্দিন (২৫) নামের একজনের লাশ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। লাশ হস্তান্তরের তথ্যটি জানিয়েছেন রমনা মডেল থানার এসআই রাজিব হাসান।

অন্যদিকে সংবাদকর্মী অভিশ্রুতি শাস্ত্রীর পরিচয় সংক্রান্ত জটিলতায় লাশ হস্তান্তর করা যাচ্ছে না। আর অন্য এক লাশের নেই দাবিদার। দুজনের মরদেহ পরে আছে মর্গের হিমঘরে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপজেলা ভোটে লড়তে ইউপি চেয়ারম্যানের পদত্যাগ 

ঘরের মাঠে বিধ্বস্ত হয়ে বিদায় বার্সার

ঈদ করতে এসে পানিতে ডুবে কিশোরের মৃত্যু

চকরিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কৃষককে গুলি করে হত্যা

যুবলীগ কর্মীর পায়ের রগ কাটল যুবদল নেতা 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও হবিগঞ্জের দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত ২০

সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা

৮ মাসে সর্বজনীন পেনশন সদস্য ৫৪ হাজার

‘ওরাকল ক্লাউড ওয়ার্ল্ড ট্যুর সিঙ্গাপুর’ এ স্মার্ট বাংলাদেশের রূপরেখা তুলে ধরলেন পলক

সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে ২ কৃষকের মৃত্যু

১০

পাবনায় সাংবাদিককে পিটিয়ে পা ভেঙে দিল সন্ত্রাসীরা

১১

ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের জন্যে বিরাট সুখবর

১২

গাজীপুরে ব্যাটারি কারখানায় বিস্ফোরণে চীনা নাগরিক নিহত

১৩

প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

১৪

লামায় উৎসবের দিনে আগুনে পুড়ল বৌদ্ধ বিহার

১৫

চট্টগ্রামে এখনও ঈদের আমেজ

১৬

রাবির জনসংযোগ দপ্তরের নতুন প্রশাসক অধ্যাপক প্রণব কুমার

১৭

অনৈতিক সম্পর্কের মামলায় শিক্ষকের কারাদণ্ড

১৮

নদীতে নিখোঁজ ২ বোনের মরদেহ উদ্ধার

১৯

সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জনের মৃত্যুতে প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর শোক

২০
*/ ?>
X