হারুন অর রশিদ, জলঢাকা (নীলফামারী) প্রতিনিধি
প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর ২০২৩, ০২:০২ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

নীলফামারীতে কমিটিবিহীন ২৪৯ প্রাথমিক বিদ্যালয়, খুঁড়িয়ে চলছে শিক্ষাসেবা

দক্ষিণ নেকবক্ত আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবন। ছবি : কালবেলা

দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে স্কুল পরিচালনা কমিটি (এসএমসি) ছাড়াই চলছে উপজেলার ২৪৯টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কার্যক্রম। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস কর্মকর্তা এবং প্রধান শিক্ষকদের উদাসীনতায় এ কমিটিগুলো গঠিত হচ্ছে না বলে অভিভাবক মহলের অভিযোগ। ফলে বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার মান ও পরিবেশ দিন দিন ভেঙে পড়ছে। এমন অভিযোগ উঠেছে নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে।

শিক্ষার মান ও পরিবেশ রক্ষায় সর্বশেষ প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিপত্র অনুযায়ী প্রতিটি বিদ্যালয়ে ১১ সদস্যের পরিচালনা পর্ষদ গঠিত হওয়ার কথা। সেখানে একজন সভাপতি যার শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক থাকতে হবে, প্রধান শিক্ষক হবেন সদস্য সচিব, একজন শিক্ষক প্রতিনিধি, একজন জমিদাতা সদস্য, দুজন বিদ্যুৎসাহী, চারজন নির্বাচিত অভিভাবক সদস্য ও সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধির অংশগ্রহণ থাকবে।

গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত এ কমিটি বিদ্যালয়ের স্বার্থ সংরক্ষণ, শতভাগ উপস্থিতি, মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণ ও দুর্নীতিমুক্ত থেকে সরকারি বরাদ্দের অর্থ ব্যয় করার দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করবে। কিন্তু উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের কর্মকর্তাদের এবং প্রধান শিক্ষকদের উদাসীনতার কারণে প্রায় এক যুগের বেশি সময় ধরে এসব বিদ্যালয়ের কমিটি গঠন হয়নি। সংশ্লিষ্ট ক্লাস্টারের একজন সহকারী শিক্ষা অফিসার ও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে নিয়ে দুই সদস্যের একটি এডহক কমিটি গঠন করে দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় ধরে বিদ্যালয়গুলো পরিচালনা করে আসছেন। ফলে বিদ্যালয়গুলো পরিচালনা পর্ষদে স্থানীয় জনগণের অংশীদারত্ব না থাকায় বিভিন্ন সরকারি বরাদ্দ বাস্তবায়নে অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা, শিক্ষকদের পাঠদানে নিষ্ক্রিয়তা ও প্রধান শিক্ষকদের স্বেচ্ছাচারিতায় বিদ্যালয়গুলোর লেজে-গোবরে অবস্থায় পরিণত হয়েছে। শিক্ষার্থী উপস্থিতি অর্ধেকে নেমেছে।

তবে ২০১৯ সালের ৫ সেপ্টম্বর স্ব স্ব ক্লাস্টার প্রধান সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তারা নোটিশ আকারে নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা করেন এবং অক্টোবর থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত পর্যায়ক্রমে ভোটগ্রহণের তারিখও নির্ধারণ করেছিলেন। সেই তপশিল মোতাবেক অনেক বিদ্যালয়ে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হলেও অদৃশ্য কারণে ভোটে বিজয়ীদের নিয়ে এখন পর্যন্ত কমিটি গঠন করেননি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস। এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে উপজেলার আটটি ক্লাস্টারে দায়িত্বরত আটজন সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার প্রধান শিক্ষকদের সাথে যোগসাজশ করে বিদ্যালয়গুলোতে সরকারিভাবে বিভিন্ন বরাদ্দের ওপর খবরদারি করছেন। আর নামমাত্র কাজ করে এসব বরাদ্দের টাকায় পকেট ভর্তি করছেন প্রধান শিক্ষকরা।

ভোটে নির্বাচিত গোলমুন্ডা ব্রাহ্মণপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য মোতালেব হোসেন বলেন, ‘আমরা ২০১৯ সালের তপশিল অনুযায়ী নির্বাচন করে জয়ী হওয়ার চার বছর অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা অফিসের কোনো লোক আমাদের খোঁজখবর করেননি, আমরা অতি দ্রুত পূর্ণাঙ্গ কমিটি চাই।’

কাঁঠালী ইউনিয়নের একজন অভিভাবক ছাইফুল ইসলাম বলেন, ম্যানেজিং কমিটি প্রতিটি বিদ্যালয়ে দরকার কমিটি না হলে পড়ালেখা সুবিধাজনক হয় না। অভিভাবক সদস্যদের অংশীদারত্ব না থাকায় শিক্ষকরা ঠিকমতো দায়িত্ব পালন করে না।

কাঠালী ইউনিয়নের স্থানীয় এক কলেজপড়ুয়া শিক্ষার্থী মো. মোরছালিন বলেন, দীর্ঘদিন ম্যানেজিং কমিটি না থাকায় শিক্ষকদের স্বেচ্ছাচারিতা বৃদ্ধি পাচ্ছে শিক্ষর্থী সংখ্যা কমতে শুরু করেছে।

উত্তর দেশীবাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলমগীর হোসেন বলেন, ‘নির্বাচনের পর অফিস আমাদের কাছে বিদ্যোুৎসাহী সদস্যের তালিকা চেয়েছিল, দুবার তালিকা জমাদানের পরেও এখন পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ কমিটির বিষয়ে কোনো চিঠি পাইনি।’

কৈমারী খানাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক প্রশন্ন কুমার রায় বলেন, স্কুল পরিচালনা করতে গেলে স্থানীয় ম্যানেজিং কমিটির দরকার আছে। স্থানীয় কমিটি থাকলে আমাদের সবক্ষেত্রেই সুবিধা হয়।

দক্ষিণ নেকবক্ত আদর্শ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সাহিনা হক সরকার বলেন, স্থানীয় অবিভাবক,বিদ্যোুৎসাহী সদস্যদের তালিকা দুবার দিয়েছি, এখন পর্যন্ত ম্যাসেজ পাইনি। কমিটি হওয়া দরকার।

দীর্ঘদিন বিদ্যালয়গুলোতে নিয়মিত পরিচালনা কমিটি না থাকার বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শরিফা আক্তার ক্যামেরার সামনে মন্তব্য দিতে অনীহা প্রকাশ করেছেন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ঘুষ-দুর্নীতির আখড়া জাজিরার বড়কান্দি ইউনিয়ন ভূমি অফিস

মীন রাশিতে কাজে সফল হওয়ার দিন আজ

২৭ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

কী ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনে

প্যারিসে ভাষা দিবস উপলক্ষে পঞ্চ কবির গানের সন্ধ্যা

বাবাকে কুপিয়ে জখম, ছেলে গ্রেপ্তার

আধিপত্য বিস্তারে দুই গ্রুপের ককটেল বিস্ফোরণ, আহত ৩

পথ হারানো ৩১ দর্শনার্থীকে উদ্ধার করল পুলিশ

শিক্ষা সফরে মদপান, দুই শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

১০

মিয়ানমারে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বিদ্রোহীরা!

১১

রাতের ঢাকায় নতুন মাদক

১২

বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন এর কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

১৩

রংপুরকে উড়িয়ে ফাইনালে লিটনের কুমিল্লা

১৪

যুগান্তরের অবদান চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে

১৫

ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ গ্রেপ্তার

১৬

যৌন হয়রানির অভিযোগে ভিকারুননিসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

১৭

করোনায় আক্রান্ত ডিবি প্রধান হারুন

১৮

‘বঙ্গবন্ধু বিচ’ নামকরণের প্রস্তাব বাতিল

১৯

বর্ণাঢ্য আয়োজনে চবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের নবীনবরণ

২০
X