লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশ : ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ০২:৩২ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

বউ-শাশুড়ি লাইব্রেরি গড়তে বই নিয়ে শ্বশুরবাড়ি নববধূ

সঙ্গে আনা বই নিয়ে স্বামী নিখিলের সঙ্গে নববধূ মুমু। ছবি : সংগৃহীত
সঙ্গে আনা বই নিয়ে স্বামী নিখিলের সঙ্গে নববধূ মুমু। ছবি : সংগৃহীত

শাশুড়িকে নিয়ে লাইব্রেরি গড়তে শ্বশুরবাড়িতে দুইশ বই নিয়ে গেছেন নববধূ। শ্বশুর বাড়ির একটি ঘরে ‘বউ-শাশুড়ির বইঘর’ নামে একটি লাইব্রেরি গড়বেন বলে শখ নববধূর।

মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে দিনভর প্রতিবেশীরা ওই বাড়িতে এসে নববধূর আনা বই দেখেন। এ সময় তারা এমন কাজের প্রশংসাও করেন।

এর আগে সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নববধূ মেহেরুননেছা মুমু বাবার বাড়ি থেকে বই নিয়ে উপজেলার চর ফলকন গ্রামের শ্বশুরবাড়িতে আসেন।

মুমু চর ফলকন গ্রামের ডা. অবাদুল হক চেয়ারম্যান বাড়ির মহিউদ্দিনের মেয়ে। একই গ্রামের রমজান আলী মৌলভী বাড়ির মাকছুদুর রহমানের ছেলে অ্যাডভোকেট এমরান হোসেন নিখিলের সঙ্গে তার বিয়ে হয়।

মুমুর পরিবার ও স্বজনরা জানায়, বই পড়তে মুমুর ভালো লাগে। বই সংগ্রহ ও পড়া তার প্রিয় শখ। শ্বশুরবাড়িতে নিয়ে আসা সব বই তার পড়া হয়েছে। এসব বইয়ের বেশিরভাগই তার বিভিন্ন সময়ের জমানো টাকায় কেনা। অল্প কিছু বই জন্মদিনসহ বিভিন্ন দিবসের উপহার, ৮/১০টি বই তার স্কুল-কলেজের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে পুরস্কার হিসেবে পাওয়া।

মুমুর স্বামী অ্যাডভোকেট এমরান হোসেন নিখিল তার স্ত্রীর সঙ্গে করে আনা বইয়ের ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছেন। তাতে প্রশংসা করেছেন অনেকেই।

মুমুর মা ছালেহা বেগম জানান, মেয়ের প্রিয় শখ বই পড়া। শাড়ি-চুড়ি, কসমেটিকসে আগ্রহ নেই। ছোট থেকেই টাকা জমিয়ে বই কেনা তার অভ্যাস। বিয়ের পর শ্বশুরবাড়িতে যাওয়ার সময় মেয়ের সংগ্রহে থাকা সকল বই নিয়ে যায়।

নববধূর শ্বাশুড়ি কামরুন নাহার বলেন, আমার মেয়ে নেই, দুই ছেলে। ছোট ছেলে বুয়েটে পড়ে, বাড়িতে আমি একা। বড় ছেলের সুবাদে একটা মেয়ে পেয়েছি। এ লক্ষ্মী মেয়ে আসার সময় অনেক বই নিয়ে এসেছে। এতে আমি খুবই খুশি হয়েছি। এখন থেকে আমিও টাকা জমিয়ে তাকে বই কিনে দেব।

শ্বশুর মাকছুদুর রহমান বলেন, ছেলের বউ বাবার বাড়ি থেকে বই নিয়ে এসেছে। এমন ছেলের বউ পাওয়া অনেক ভাগ্যের বিষয়।

নববধূ মেহেরুন নেছা মুমু বলেন, বই কেনা, বই পড়া আমার শখ। বই উপহার পেতে আমার খুব ভালো লাগে। অনেক দিন থেকে জমানো বইগুলো বাবার বাড়িতে রেখে আসতে মন চাইছিল না; সঙ্গে করে নিয়ে আসলাম। স্বপ্ন দেখছি শ্বশুরবাড়িতে ‘বউ-শাশুড়ির বই ঘর’ নামে একটি লাইব্রেরি গড়ব। এলাকার সকল বউ-শাশুড়ি বই পড়বে। এতে বউ-শাশুড়িদের মধ্যে হৃদ্যতাও বাড়বে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

উপজেলা ভোটে লড়তে ইউপি চেয়ারম্যানের পদত্যাগ 

ঘরের মাঠে বিধ্বস্ত হয়ে বিদায় বার্সার

ঈদ করতে এসে পানিতে ডুবে কিশোরের মৃত্যু

চকরিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে কৃষককে গুলি করে হত্যা

যুবলীগ কর্মীর পায়ের রগ কাটল যুবদল নেতা 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও হবিগঞ্জের দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত ২০

সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা

৮ মাসে সর্বজনীন পেনশন সদস্য ৫৪ হাজার

‘ওরাকল ক্লাউড ওয়ার্ল্ড ট্যুর সিঙ্গাপুর’ এ স্মার্ট বাংলাদেশের রূপরেখা তুলে ধরলেন পলক

সুনামগঞ্জে বজ্রপাতে ২ কৃষকের মৃত্যু

১০

পাবনায় সাংবাদিককে পিটিয়ে পা ভেঙে দিল সন্ত্রাসীরা

১১

ডিপ্লোমা প্রকৌশলীদের জন্যে বিরাট সুখবর

১২

গাজীপুরে ব্যাটারি কারখানায় বিস্ফোরণে চীনা নাগরিক নিহত

১৩

প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

১৪

লামায় উৎসবের দিনে আগুনে পুড়ল বৌদ্ধ বিহার

১৫

চট্টগ্রামে এখনও ঈদের আমেজ

১৬

রাবির জনসংযোগ দপ্তরের নতুন প্রশাসক অধ্যাপক প্রণব কুমার

১৭

অনৈতিক সম্পর্কের মামলায় শিক্ষকের কারাদণ্ড

১৮

নদীতে নিখোঁজ ২ বোনের মরদেহ উদ্ধার

১৯

সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জনের মৃত্যুতে প্রাণিসম্পদমন্ত্রীর শোক

২০
*/ ?>
X