সরকার আরিফ ইখতেখার, বেড়া (পাবনা)
প্রকাশ : ১৯ মে ২০২৪, ০২:৪০ এএম
আপডেট : ২০ মে ২০২৪, ০১:২৯ পিএম
অনলাইন সংস্করণ
বেড়া পাউবো

৩৭ কর্মকর্তার বদলির আবেদনে তোলপাড়

পাবনা পানি উন্নয়ন বোর্ড পাবনা। ছবি : কালবেলা
পাবনা পানি উন্নয়ন বোর্ড পাবনা। ছবি : কালবেলা

কর্মকর্তাদের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্বে পাবনার বেড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডে (পাউবো) কর্মরত ৩৭ কর্মকর্তা-কর্মচারী একযোগে বদলি চেয়ে আবেদন করেছেন। কর্মকর্তাদের দ্বন্দ্বের জেরে মুখোমুখি অবস্থানের দাপ্তরিক কাজে সৃষ্টি হয়েছে স্থবিরতা। বিষয়টির প্রতিকার চেয়ে অফিস ফাঁকা রেখেই নির্বাহী প্রকৌশলীসহ ৯ জন কর্মকর্তা গত ৯ মে দু'দিন ধরে অবস্থান করেন ঢাকায়। নজিরবিহীণ এ ঘটনায় কর্মকর্তারা মুখ খুলতে রাজি না হলেও পরস্পরকে দোষারোপ করে চিঠি দিয়েছেন বিভিন্ন দপ্তরে বলে এমন খবর পাওয়া গেছে।

বেড়া পাউবো সূত্রে জানা গেছে, পানি উন্নয়ন বোর্ড বেড়া, পওর বিভাগের কয়েকজন কর্মকর্তা ও কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতির অভিযোগ ওঠে। অভিযুক্ত কর্মকর্তারা পাউবোর কর্মকর্তা কর্মচারী থাকা অবস্থায় নামে বেনামে ঠিকাদারি সিন্ডিকেট গড়ে তোলে। পাউবোর বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ন্ত্রণ ও লুটপাট শুরু করেন। নিয়মিত বদলির চাকরি হলেও এসব কর্মকর্তারা দীর্ঘদিন ধরে একই কর্মস্থলে অবস্থান করে প্রকাশ্যে অনিয়ম করে আসছিলেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সত্যতা পেয়ে গত ৫ ফেব্রুয়ারি পাবনা ১ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার শামসুল হক টুকু বেড়া পাউবোর উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী এমদাদ আহমেদ, এমরান হোসেন, গাড়ী চালক আব্দুর রহমান ও সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা জেলহক আলমকে কর্মস্থল থেকে বদলির লিখিত সুপারিশ করে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রীকে পত্র পাঠান।

সুপারিশ পত্রে শামসুল হক টুকু এমপি জানান, অভিযুক্ত কর্মকর্তারা ক্ষমতার অপব্যবহার ও প্রভাব খাটিয়ে উন্নয়ন ইন্টারন্যাশনাল, সালেহ আহমেদ, শহিদ ব্রাদার্স, ওমর এন্টারপ্রাইজ, ইউনাইটেড ব্রাদার্সসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামে উন্নয়ন কাজের প্যাকেজে যোগসাজশ করে ব্যবসা করেন। তারা নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে স্থানীয় জনগণকে পাউবোর জমি লিজ বরাদ্দ দেওয়ার নামে বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করেছেন। এমনকি ড্রাইভার আব্দুর রহমান ব্যক্তিগত প্রিমিও গাড়ি ব্যবহার করেন। স্থানীয়দের সিন্ডিকেট মুক্ত করতে তিনি অভিযুক্ত কর্মকর্তা কর্মচারীদের বদলির দাবি জানান।

সুপারিশ পত্রের পরিপ্রেক্ষিতে সত্যতা পেয়ে, ফেব্রুয়ারি মাসেই কয়েক দফায় সিন্ডিকেট ব্যবসায় জড়িত কমকর্তা কর্মচারীদের বিভিন্ন জেলায় বদলি করে পানি উন্নয়ন বোর্ড। বদলির পর কর্মকর্তাদের মধ্যে শুরু হয় অভ্যন্তরীন দ্বন্দ্ব। বদলি হওয়া কর্মকর্তারা নতুন পদায়ন হওয়া কর্মকর্তাদের কাছে তাদের অসমাপ্ত কাজ ও বিলের হিসাব বুঝিয়ে দেওয়া নিয়ে টালবাহানা শুরু করেন। কয়েকদফায় চিঠি দেওয়ার পরেও তারা এসব হিসাব বুঝিয়ে না দেওয়ায় দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করেছে। একই সঙ্গে বর্তমান কর্মকর্তাদের বিভিন্ন কাজে অনিয়মের অভিযোগ সম্বলিত গোপন নথি দুর্নীতি দমন কমিশনসহ বিভিন্ন দপ্তরে যেতে থাকে। এসব ঘটনায় বর্তমান কর্মকর্তারা বদলি হওয়া কর্মকর্তাদের সন্দেহ করেন। এক পর্যায়ে দ্বন্দ্বের জেরে গত ৯ মে স্বেচ্ছায় বদলি চেয়ে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করেন ৩৭ জন কর্মকর্তা ও কর্মচারী।

আবেদনে তারা উল্লেখ করেন একটি স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠী বর্তমানে কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বিব্রত, হয়রানি, মানসিক, সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন ও ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য সরকারি বেসরকারি বিভিন্ন মাধ্যমে নামে বেনামে মিথ্যা, হয়রানি ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত পত্র প্রেরণ করেছেন। এতে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নানা ধরনের বিব্রতকর জবাবদিহি ও হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এমন পরিস্থিতিতে কাজের পরিবেশ নেই দাবি করে স্বেচ্ছায় বদলির আবেদন করেন তারা।

বুধবার (১৫ মে) সকালে বেড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের পওর বিভাগে সরেজমিন পরিদর্শন করে দেখা গেছে, অধিকাংশ কর্মকর্তাদের কক্ষ তালাবদ্ধ। তবে তিনজন উপসহকারী প্রকৌশলী অফিস করছেন। বেশিরভাগ কর্মচারীও অফিসে নেই।

এ ব্যাপারে তিন উপসহকারী প্রকৌশলী আনিছুর রহমান, আব্দুল খালেক, হাবিবুর রহমান বলেন, স্যারদের অফিসিয়াল কাজ থাকায় তারা ঢাকায় অবস্থান করছেন। আবেদনের বিষয়ে কিছু বলতে পারবো না। স্যারের (নির্বাহী প্রকৌশলী) নির্দেশনা ছাড়া এ বিষয়ে কথা বলা নিষেধ।

বেড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পওর বিভাগ) নির্বাহী প্রকৌশলী অমিতাভ চৌধুরীকে এ বিষয়ের সর্বশেষ খবর জানতে তার মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

পানি উন্নয়ন বোর্ড পাবনার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুধাংশু কুমার সরকারকে বিভিন্ন নাম্বার থেকে ফোন দিলে তিনি রিসিভ করেননি। ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়েও তার সাড়া মেলেনি।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ড রাজশাহীর প্রধান প্রকৌশলী মুখলেসুর রহমান বলেন, পাবনার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ও নির্বাহী প্রকৗশলী আমাকে জানিয়েছেন ঢাকায় একটি মিটিংয়ে যাবার কথা। কিন্তু ৯ জন একসঙ্গে ঢাকা যাবার বিষয়ে আমাকে কিছু জানায়নি। আর একযোগে ৩৭ কর্মকর্তা-কর্মচারীর বদলি চাওয়ার আবেদন ডিজি মহোদয় বরাবর দিয়েছে শুনেছি। কিন্তু অফিসিয়িালি কোনো ডকুমেন্ট এখনও পাইনি। তবে এ বিষয়ে আমি খোঁজ নিয়ে জানাতে পারবো।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ভাই হারালেন ডিপজল 

সংবর্ধিত হলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শুসেন চন্দ্র শীল

সিলেটে পশুর হাটে কমছে না দাম, ক্রেতাদের অপেক্ষা

জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন রাষ্ট্রপতি

ধাওয়া দিয়ে মাঝ নদীতে লঞ্চ থামালেন ম্যাজিস্ট্রেট

গাজীপুরে মহাসড়কে যাত্রীদের ঢল, ভোগান্তি চরমে

সিলেটে ১১ ট্রাক চিনি জব্দ

কোপায় ব্রাজিলের খেলা দেখবেন না রোনালদিনহো

বসত ঘর থেকে হ্যাপি গোল্ড ও কিং ফিসার মদ উদ্ধার

মেয়াদ শেষেও বিমার টাকা দিচ্ছে না প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স!

১০

কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে কোরবানির গরু

১১

টঙ দোকানের আয়ে চলছে রতন বেগমের জীবনযুদ্ধ

১২

উত্তরের মহাসড়কে গাড়ির পেছনে গাড়ি, নেই যানজট

১৩

তাসরিফের চোখে টিউমার ধরা পড়েছে

১৪

যত্রতত্র কোরবানি করে জায়গা নষ্ট না করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

১৫

বিয়ের পর হানিমুনে না গিয়ে হজে গেলেন দম্পতি

১৬

‘হেলমেট নাই, তেল নাই’

১৭

রাস্তায় বাঁধ দিয়ে মাছের ঘের, হুমকিতে শতাধিক পাকা সড়ক

১৮

ডাকাতি করতে গিয়ে নারীর সঙ্গে খোশ-গল্প, অতঃপর...

১৯

ঢাবিতে ঈদের জামাতের সময়সূচি 

২০
X