কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ০২ জুন ২০২৪, ০৮:২৭ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

কবে আসছে তারা, যাদের সামনে থেকে কেউ জীবিত পালাতে পারবে না

প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

তাদের প্রাচীর দিয়ে আটকে রাখা হয়েছে। তারা যখন বের হবে, ঢেউয়ের মতো সারা পৃথিবীতে ছুটতে থাকবে এবং বিস্তার লাভ করবে।

অর্থাৎ তারা খুব রুক্ষ ও কর্কশ স্বভাবের হবে এবং যখন আক্রমণ করবে তখন চারদিক থেকে খুব দ্রুত আক্রমণ করবে। কেউ তাদের সামনে থেকে জীবিত পালাতে পারবে না।

বলছিলাম ইয়াজুজ-মাজুজের কথা। পবিত্র কোরআনেও তাদের সম্পর্কে বর্ণনা রয়েছে।

মূল বিষয় হলো- ইয়াজুজ ও মাজুজ এক পরহেজগার বাদশার আমলে ছিল। যে বাদশাকে বলা হতো জুলকারনাইন।

জুলকারনাইন অর্থ দুই সিংওয়ালা মানুষ। সেই রাজার মুকুটে দুটি সিংহের মতো মুকুট ছিল বলে তার এই নামকরণ করা হয়েছে।

জুলকারনাইন ছিলেন খুবই ক্ষমতাধর একজন শাসক এবং তিনি ছিলেন একজন ঈমানদার।

তিনি তার সৈন্যদল নিয়ে ভ্রমণ করতেন। দেখতেন পৃথিবীর কে কোথায় নির্যাতিত হচ্ছে, কে ভালো কাজ করছে।

তিনি তার জীবন পার করেছেন ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠায়। তার এমনই এক ভ্রমণের ঘটনা আল্লাহ পাক সুরা কাহাফে বর্ণনা করেছেন।

তিনি এতটাই দূরে চলে গিয়েছিলেন যে, এরপর আর কোনো মানব সভ্যতা ছিল না। সেখানে দুটি পর্বতের মাঝে তিনি এক জাতিকে দেখলেন; যাদের ভাষাও তিনি বুঝতে পারছিলেন না।

কারণ, তারা সভ্যতা থেকে এতটাই দূরে ছিল যে তাদের ভাষাও দুর্বোধ্য ছিল।

কিন্তু সেই জাতি ইশারা ইঙ্গিতে জুলকারনাইনকে বলল ইয়াজুজ ও মাজুজ তাদের ওপর অনেক অত্যাচার করছে, তারা তাদের হত্যা করছে।

এরপর এই জাতির লোকজন জুলকারনাইনকে একটি দেয়াল নির্মাণ করে দেওয়ার অনুরোধ করে।

এ বিষয়ে সুরা কাহাফে বলা হয়েছে, তিনি অর্থাৎ জুলকারনাইন বলল, আমার প্রতিপালক আমাকে যে ক্ষমতা দিয়েছেন, তা-ই যথেষ্ট। সুতরাং তোমরা আমাকে শ্রম দিয়ে সাহায্য করো, আমি তোমাদের ও তাদের মাঝখানে এক মজবুত প্রাচীর গড়ে দেব। তোমরা আমার কাছে লোহার তাল নিয়ে আসো। তারপর মধ্যবর্তী ফাঁকা জায়গা পূর্ণ হয়ে যখন লোহার ঢিবি দুটি পাহাড়ের সমান হলো তখন জুলকারনাইন বললেন, তোমরা হাপরে দম দিতে থাকো। যখন তা আগুনের মতো গরম হলো তখন তিনি বললেন, তোমরা গলানো তামা নিয়ে আসো, আমি তা ওর ওপর ঢেলে দেব। এরপর ইয়াজুজ-মাজুজ তা পার হতে পারল না বা ভেদ করতেও পারল না।

জুলকারনাইন বললেন, এ আমার প্রতিপালকের অনুগ্রহ। যখন আমার প্রতিপালকের প্রতিশ্রুতি পূর্ণ হবে, তখন তিনি তাদের চূর্ণবিচূর্ণ করে দেবেন, আর আমার প্রতিপালকের প্রতিশ্রুতি সত্য।

পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ আরও বলেন, আমি তাদের দলে দলে তরঙ্গের আকারে ছেড়ে দেব, আর শিঙায় ফুঁ দেওয়া হবে। তারপর আমি তাদের সবাইকে একত্র করব।

শাসক জুলকারনাইন ইয়াজুজ-মাজুজদের প্রাচীর দিয়ে আটকে রাখলেও কিয়ামতের আগে হজরত ঈসা (আ.)-এর পৃথিবীতে পুনরাগমনের আগে তারা ওই প্রাচীর ভেঙে বেরিয়ে আসবে।

অর্থাৎ যখন কেয়ামত সন্নিকটে আসবে তখন আল্লাহ এই দেয়াল ঘুড়িয়ে ইয়াজুজ ও মাজুজকে মুক্ত করে দেবেন। মহানবী (স.) কেয়ামতের যে ১০টি প্রধান আলামতের কথা বলেছেন তার মধ্যে অন্যতম একটি আলাতম হচ্ছে ইয়াজুজ ও মাজুজের আগমন।

ইয়াজুজ ও মাজুজ বের হওয়ার পর সামনে যা পাবে, সব ভক্ষণ করবে। তারা নদীর পানি খেয়ে শেষ করে ফেলবে। তাদের সঙ্গে কেউ লড়াই করে পারবে না।

একসময় তারা বায়তুল মুকাদ্দাসের এক পাহাড়ে গিয়ে বলবে, দুনিয়ায় যারা ছিল, তাদের হত্যা করেছি। এখন আকাশে যারা আছে, তাদের হত্যা করব। তারা আকাশের দিকে তীর নিক্ষেপ করবে।

এ সময় ঈসা (আ.) তাদের জন্য দোয়া করবেন। এতে ইয়াজুজ-মাজুজের কাঁধের দিক থেকে একপ্রকার পোকা সৃষ্টি করে আল্লাহ তাদের ধ্বংস করবেন। পৃথিবীজুড়ে তাদের লাশ পড়ে থাকবে। আল্লাহ নখযুক্ত পাখি পাঠিয়ে লাশগুলোকে সরিয়ে নেবেন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

চার্জশিট পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মোবাইল ইন্টারনেট চালুর বিষয়ে জানাল গ্রামীণফোন

‘ভিক্ষা লাগবে না একটা পত্রিকা দেন, দেশের খবর জানি’ 

প্যারিস অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যা থাকছে

যেভাবে দেখবেন অলিম্পিকে আর্জেন্টিনার ম্যাচ

শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে খুলবে ঢাবি

স্থানীয় সরকারের ২২৩ পদে নির্বাচন স্থগিত

ভালো নেই মুরগি ব্যবসায়ীরা

গাজীপুরে খুলে দেওয়া হয়েছে পোশাক কারখানা

পর্যটকশূন্য কাপ্তাই পর্যটনকেন্দ্রগুলো

১০

ফিফার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ

১১

পেন্টাগনের ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ

১২

৪ বিভাগে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস

১৩

মোবাইলে অব্যবহৃত ইন্টারনেট প্যাকেজ সম্পর্কে যা জানা গেল

১৪

আর্জেন্টিনায় হতে পারে পরবর্তী কোপা

১৫

ঢাকার রাস্তায় তীব্র যানজট

১৬

নেপালে যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত, প্রায় সব আরোহী নিহত 

১৭

চাকরির প্রজ্ঞাপনে যা আছে

১৮

কারফিউ বিরতিতে চলবে দূরপাল্লার বাস

১৯

অলিম্পিকে নামার আগেই স্বর্ণপদকের স্বপ্ন মাসচেরানোর

২০
X