কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ১২ জুন ২০২৩, ০৫:৪৭ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

জামায়াতকে সমাবেশের অনুমতি দিয়ে নতুন ষড়যন্ত্রে সরকার: মান্না

গণতন্ত্র মঞ্চের বিক্ষোভ সমাবেশ
গণতন্ত্র মঞ্চের বিক্ষোভ সমাবেশ

জামায়াতকে সমাবেশের অনুমতি দিয়ে সরকার নতুন ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন গণতন্ত্র মঞ্চের শরিক নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না।

আজ সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে গণতন্ত্র মঞ্চের বিক্ষোভ সমাবেশে এসব কথা বলেন মান্না। ঢাকা-দিনাজপুর রোডমার্চ বাধাগ্রস্ত করতে সরকারি ষড়যন্ত্র, হামলার প্রতিবাদ ও আক্রমণকারীদের বিচারের দাবিতে এই কর্মসূচি পালিত হয়।

মান্না বলেন, হঠাৎ করে সরকারের বোধোদয় হলো, গণতান্ত্রিকভাবে-রাজনৈতিকভাবে সিদ্ধান্ত হলো- ওদের সভা করতে দেওয়া যেতে পারে। তারপর মন্ত্রীরা বলছেন, বিএনপি জামায়াতকে মাঠে নামিয়ে উসকানি দিচ্ছে। কিন্তু এই ষড়যন্ত্র করছে সরকার। তারা দেশে একটা বিশৃঙ্খলা তৈরি করবে, তার দায় বিরোধী দলগুলোর ওপর চাপাবে। তারপর তারা নির্বাচন পিছিয়ে দেবে অথবা গিলে খাবে। নতুন নতুন খেলা চালু করে লাভ নেই।

সমাবেশে সরকারের উদ্দেশে মান্না বলেন, এখন পতনের ঘণ্টা বেজে গেছে। নতুন মিউজিক চালু করলে কোনো লাভ হবে না। নতুন গান আর মানুষ শুনবে না। একটাই গান, একটাই দাবি চলে যেতে হবে। যাওয়ার কথা ঘোষণা করেন জুন মাসে। যদি না করেন, জুনের পরে বৃহত্তর আন্দোলনের ধাক্কা সামলাতে পারবেন না।

মান্না আরও বলেন, সব দিক থেকে সরকার ব্যর্থ। গায়ের জোরে ভোটের নাম করে ভোট ডাকাতি করে নিজেদের ব্যাগে ভরে ক্ষমতায় টিকে থাকে- এই তাদের আয়োজন। কেবল বিরোধী দলকে দমন করতে, জনগণের ভোটাধিকার হরণ করতে যে কাজগুলো করার দরকার- সেই কাজগুলো তারা করছে।

সরকার বিরোধী দলের সভা-সমাবেশে বিধিনিষেধ দিয়ে হুট করে জামায়াতে ইসলামীকে সমাবেশের অনুমতি দিয়ে আদতে বিরোধী দলগুলোর মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়াতে চাইছে বলে মন্তব্য করেছেন গণতন্ত্র মঞ্চের সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক।

তিনি বলেন, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে জাতীয় যুব সংহতির অনুষ্ঠান বাতিল করে সেখানে কেন জামায়াতের সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে, তা কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাকের কথায় স্পষ্ট হয়ে গেছে। তিনি (মন্ত্রী) বলেছেন, সেটি এক রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। এতে সমীকরণ স্পষ্ট হয়ে গেছে। তারা নিজেরাই পথে অগ্নিসন্ত্রাস করে তার দায় চাপাবে বিরোধী দলের ওপর।

গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি বলেন, এই সরকার পুনরায় ক্ষমতায় থাকতে নানা ছলচাতুরি করছে। কিন্তু এবার কোনোকিছুতেই কাজ হবে না। জনগণ জেগে উঠেছে, সরকারকে পদত্যাগ করতেই হবে। অন্যথায় জনগণ তাদের পদত্যাগে বাধ্য করবে।

রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক হাসনাত কাইয়ূম বলেন, আমরা অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বলি। জনগণের ভোটাধিকার হরণ, দেশের সম্পদ বিদেশে পাচারের কথা বলি। তাই সরকার আমাদের ভয় পায়।

সরকারকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়ে সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে ভাসানী অনুসারী পরিষদের আহ্বায়ক শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু বলেন, এ সরকারের পায়ের তলা থেকে মাটি সরে গেছে। তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। তাই সরকারের উচিত, জনদাবি মেনে অবিলম্বে পদত্যাগ করা। যদি পদত্যাগ না করে, সরকারের পতনের লক্ষ্যে ঈদুল আজহার পরে গণতন্ত্র মঞ্চ আরও কঠোর কর্মসূচি নিয়ে মাঠে নামবে।

অনুষ্ঠানে জেএসডির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সিরাজ মিয়াসহ অন্যরা বক্তব্য রাখেন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

প্যারিসে একুশের কবিতা পাঠ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

রাশিয়ার ভয়ে পিছু হটল ন্যাটো

নসিমন-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

২৮ ফেব্রুয়ারি : কী ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনে

বুধবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

২৮ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

কর্ণফুলী নদীতে ৩ দিন বন্ধ থাকবে ফেরি চলাচল

মিয়ানমার সীমান্ত এখন শান্ত, ফের গোলাগুলি শুরুর আশঙ্কায় আতঙ্ক

বোনাস দাবিতে সার কারখানা শ্রমিকদের মানববন্ধন

সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু আজ

১০

হাসপাতালে রেখে তরুণ-তরুণী উধাও, ছোটমণি নিবাসে ঠাঁই হলো নবজাতকটির

১১

চট্টগ্রামে শাস্তির মুখে ৮ ল্যাব-হাসপাতাল

১২

এবার বাড়ছে সব ধরনের ছোলা ও ডালের দাম

১৩

বিধবা মেয়েকে নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে চলন্ত ট্রেনে বাবার মৃত্যু

১৪

দুই সন্তানের জননীকে নিয়ে ‘উধাও’ ইউপি সদস্য

১৫

স্বামী কারাগারে, সন্তান ফেলে উধাও গৃহবধূ

১৬

বেসরকারি ৩ ক্লিনিককে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

১৭

আগুনে পুড়ে দাদি-নাতির মৃত্যু

১৮

আমতলী পৌরসভা নির্বাচন / আচরণবিধি ভঙ্গ করে মিছিল, মেয়র প্রার্থীর সমর্থককে সাজা

১৯

স্কুলের সামনে ছাত্রীদের ইভটিজিং, অতঃপর...

২০
X