ময়মনসিংহ প্রতিনিধি
প্রকাশ : ১০ জুলাই ২০২৪, ০৬:৫২ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

ব্রহ্মপুত্রের ভাঙনে নিঃস্ব দুই শতাধিক পরিবার

ব্রহ্মপুত্রের গর্ভে যাচ্ছে একের পর এক জমি। ছবি : কালবেলা
ব্রহ্মপুত্রের গর্ভে যাচ্ছে একের পর এক জমি। ছবি : কালবেলা

প্রতি বছর বর্ষা মৌসুম আসলেই উজানের ঢলে যৌবন ফিরে পায় ব্রহ্মপুত্র নদ। এ সময়ে নদের উত্তাল স্রোতে তরঙ্গে বেড়ে যায় দুই পাড়ে তীর ভাঙনের হিংস্রতা। এতে শত শত একর ফসলি জমি ও বাপ-দাদার স্মৃতি বিজড়িত বসতভিটা বিলীন হয়ে যাওয়ায় নিঃস্ব হয়ে পড়েছে ময়মনসিংহের দুই শতাধিক পরিবার।

বুধবার (১০ জুলাই) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বছরের বেশিরভাগ সময় নদ শুকিয়ে হাঁটু পানি থাকলেও বর্ষা মৌসুমে উজানের ঢলে পানি বেড়ে শুরু হয় ভাঙন। গত কয়েক বছরে এই ইউনিয়নের তিনটি গ্রামের প্রায় কয়েকশত একর ফসলি জমি বিলীন হয়ে গেছে। সেই সঙ্গে বসতভিটা হারিয়েছে দুই শতাধিক পরিবার।

চলতি মৌসুমে গত তিন দিনে খোদাবক্সপুর ও উজান কাশিয়ার চরের প্রায় ২০টি পরিবারের বসতভিটা ভেঙে পড়েছে নদীগর্ভে। এতে বসত ঘরগুলোর ভাঙা চালা বেড়া রক্ষা করা গেলেও নেই বসতভিটার স্মৃতি চিহ্নটুকুও। এই অবস্থায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো করছে নতুন ভিটার সন্ধান। কিন্তু তাদের মধ্যে কারো কারো সামান্য জমি থাকলেও অনেকের বসতভিটা করার মতো কোনো জমি নেই।

ভাংনামারী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. গিয়াস উদ্দিন বলেন, উজানকাশিয়ার চর গ্রামে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৬৯টি ঘর, একটি কমিউনিটি সেন্টার ও কয়েকশ বাড়ি ব্রহ্মপুত্র নদে ভাঙনের ঝুঁকিতে রয়েছে। গত চারদিন ধরে ভাঙতে শুরু করেছে নদ। ভাঙন না ঠেকালে মানুষ ভিটেহারা হবে। গেল দুই বছর আগে ভাঙন ঠেকাতে পানি উন্নয়ন বোর্ড উজান কাশিয়ার চর এলাকায় বালুভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে ভাঙন রোধে উদ্যোগ নিলেও এ বছর জিও ব্যাগসহ ভাঙতে শুরু করেছে। আমরা এলাকায় স্থায়ী বাঁধ চাই, ভাঙন রোধে দ্রুত উদ্যোগ চাই।

ভুক্তভোগী সত্তোরোর্ধ আব্দুল খালেক জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ড বালু ভর্তি জিও ব্যাগ ফেলে গত বছর ভাঙন রক্ষার উদ্যোগ নিলেও বছর না ঘুরতেই জিওব্যাগসহ ভাঙতে শুরু করেছে। আবদুল খালেকের ভিটে থেকে বসতঘরসহ অন্যান্য ঘরগুলো সরানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এরইমধ্যে একটি বসতঘর খুলেও ফেলেছেন।

রতন মিয়া নামের এক যুবক বলেন, আগে একবার বাড়িঘর সব গেছে। এখন ফসলি জমিও ভেঙে পড়ছে। নদের ওই পাড়ে কিছু জমি আছে কিন্তু সেগুলোতেও পানি। নদের তীরে আমাদের পাঁচ একর ফসলি জমি ছিল। এখন চার একর নদীগর্ভে চলে গেছে। বাকি আছে এক একর। সেটিও হুমকির মুখে। স্থায়ী বেড়িবাঁধ না হলে কিছুই আর থাকবে না মনে হয়।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, গৌরীপুর উপজেলার ভাংনামারী ইউনিয়নের খোদাবক্সপুর, ভাটিপাড়া, উজানকাশিয়ার চর গ্রামের তিন কিলোমিটার ও ঈশ্বরগঞ্জের উচাখিলা ইউনিয়নের মরিচার চর গ্রামের দুই কিলোমিটার এলাকায় ভাঙন শুরু হয়েছে।

ময়মনসিংহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আখলাক উল জামিল কালবেলাকে বলেন, ভাঙনের খবর পেয়ে এরইমধ্যে জায়গাগুলো পরিদর্শন করা হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে ব্রহ্মপুত্র নদী খনন করা ও অবৈধভাবে বালু উত্তোলন এই ভাঙনের জন্য দায়ী। বালু তোলার ফলে সৃষ্ট গর্তের কারণে পানির স্রোত বাড়ায় ভাঙন বাড়ছে। বিষয়গুলো চিঠি দিয়ে সময়ে সময়ে প্রশাসনকে জানানো হয়েছে।

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক দিদার আলম মোহাম্মদ মাকসুদ চৌধুরী কালবেলাকে বলেন, আমরা এরইমধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার খোঁজ নিয়েছি। পানি উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে সমন্বয় করে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ব্রম্মপুত্র নদের খনন কাজ চলছে। নদী খননের ফলে কয়েকটি স্থানে গর্তের সৃষ্টি হয়। ফলে কয়েকটি গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়। বিআইডব্লিউটিএর সঙ্গে কথা হয়েছে যেন গ্রামগুলো ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

১৩ জুলাই : নামাজের সময়সূচি

গাইবান্ধায় ফের বন্যার পানি বৃদ্ধি

সিলেটে ফের চিনিসহ দুই চোরাকারবারি আটক

বরিশালে পদবঞ্চিত যুবদল নেতাকর্মীদের আনন্দ মিছিল

মোটরসাইকেল চাপায় শিশু নিহত

তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের দাবিতে গণঅবস্থান

পিরোজপুরে ছেলের হাতে মা খুন

বগুড়ায় প্রাইভেটকার-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ২

মাদকের ২ হাজার টাকার জন্য শিশু অপহরণ, গ্রেপ্তার ৪

কর্ণফুলী পেপার মিলসে আগুন

১০

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ফুটবল খেলা নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষ

১১

মেসির সাথে আলোচিত সেই ছবি নিয়ে যা বললেন ইয়ামাল

১২

উয়েফার নতুন ক্লাব র‌্যাঙ্কিং প্রকাশ, শীর্ষে কোন ক্লাব?

১৩

সকাল ৯টার মধ্যে ঝড় শুরু হতে পারে রাজধানীসহ যেসব অঞ্চলে

১৪

কোটা ইস্যুতে শাহবাগে এবার পাল্টা কর্মসূচি

১৫

নেস্তোর লরেঞ্জো, আর্জেন্টাইনদের প্রিয় শত্রু

১৬

রাশিয়ায় যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত, সব আরোহী নিহত

১৭

হঠাৎ চাকরি ছাড়লেন ৬ বিসিএস ক্যাডার

১৮

চ্যানেল২৪’র অনুসন্ধান / ৪৬তম বিসিএসের প্রিলির প্রশ্নও ফাঁস হয়েছিল

১৯

গর্ভবতী ও নবজাতক মায়েদের জন্য টগুমগু

২০
X