কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ২৭ মে ২০২৪, ০৭:৪২ পিএম
আপডেট : ২৭ মে ২০২৪, ০৮:১০ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

ঢাকায় মঙ্গলবারও কি রিমালের প্রভাব থাকবে?

রাজধানীতে ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে সড়কে গাছ ভেঙে পড়ে। ছবি : কালবেলা
রাজধানীতে ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে সড়কে গাছ ভেঙে পড়ে। ছবি : কালবেলা

ঘূর্ণিঝড় রিমাল গতকাল রোববার সন্ধ্যায় বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হানে। এরপর এটি গত কয়েক ঘণ্টায় প্রবল ঝড়-বৃষ্টি ঝরিয়ে স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। এটি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ওপর বিস্তার লাভ করেছে। সোমবার বিকেলে ঘূর্ণিঝড় রিমালের কেন্দ্রভাগ ঢাকা অতিক্রম শুরু করেছে। এর প্রভাবে রাজধানীতে ব্যাপক বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যাচ্ছে। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাব আগামীকাল মঙ্গলবারও (২৮ মে) থাকতে পারে।

আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, স্থল নিম্নচাপ স্থায়ী কিছু নয়। এটার নির্দিষ্ট কোনো কেন্দ্র বলতে তেমন কিছু নেই। তবে সাগরে নিম্নচাপ হলে সুনির্দিষ্ট কেন্দ্র থাকে। রিমাল নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার পর এটি ছড়িয়ে পড়েছে।

তিনি বলেন, যশোর থেকে মাদারীপুর, ফরিদপুর, ঢাকা, কুমিল্লা হয়ে এটি ভারতের দিকে গিয়ে গুরুত্বহীন হয়ে পড়বে। এর ফলে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে রাতেও বৃষ্টি হবে। মঙ্গলবারও কিছুটা প্রভাব থাকতে পারে। তারপর থেকে তাপমাত্রা বাড়বে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে দেশের উপকূলীয় ছয় জেলায় অন্তত ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। উপকূলীয় জেলাগুলোতে ৩৫ হাজারের বেশি ঘরবাড়ি পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়েছে। এই ঝড়ে উপকূলের ৩৭ লাখ ৫৮ হাজারের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতির মুখে পড়েছে উপকূল ও আশপাশের ১৯ জেলা। এগুলো হলো- সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, বরিশাল, পটুয়াখালী, পিরোজপুর, বরগুনা, ভোলা, ফেনী, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, নড়াইল, গোপালগঞ্জ, শরীয়তপুর ও যশোর।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মহিববুর রহমান সোমবার বিকেলে সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এখন পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে খুলনা, সাতক্ষীরা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ভোলা ও চট্টগ্রামে ১০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

প্রতিমন্ত্রী মহিববুর রহমান বলেন, ঘূর্ণিঝড়ে ১৯ জেলার ১০৭টি উপজেলার বাসিন্দারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এসব এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা ৩৭ লাখ ৫৮ হাজারের বেশি। সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে ৩৫ হাজার ৪৮৩টি ঘরবাড়ি। এ ছাড়া আংশিকভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে ১ লাখ ১৪ হাজার ৯৯২টি ঘরবাড়ি।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

খালেদা জিয়ার আরোগ্য কামনায় যুবদলের দোয়া মাহফিল

ট্রাক্টরচাপায় প্রাণ গেল দুজনের

চাঁদা চাওয়ায় কাস্টমসের কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর মামলা

এবার সিরাজগঞ্জে মিলল রাসেল ভাইপারের বাচ্চা, এলাকায় আতঙ্ক

এআইইউবি ও ফিলিস্তিনের শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত

সিলেটে তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

১৫ লাখ টাকার একটি খাসি, কেড়ে নিল লাকীর হাসি

বিশ্বকে মহাবিপদ থেকে বাঁচাতে যে সতর্কবার্তা দিল তুরস্ক

হত্যা নাকি মৃত্যু, দেড় মাস পর কিশোরের লাশ উত্তোলন

কীসের বিনিময়ে মুক্তি পেলেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ?

১০

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নৈশপ্রহরী হত্যা, দুজনের যাবজ্জীবন

১১

খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় দোলাইপাড়ে বিএনপির দোয়া মাহফিল

১২

সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতি নিয়ে সংসদে ক্ষোভ

১৩

স্মার্ট নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে ছাত্রলীগের প্রতি আহ্বান পলকের

১৪

মাদক-বাল্যবিবাহ-যৌতুক প্রতিরোধে ভূমিকা পালনকারীদের পুরস্কৃত করবে ছাত্রলীগ 

১৫

বিদ্যুৎস্পর্শে প্রাণ গেল কিশোরের

১৬

প্রধানমন্ত্রীকে খালি হাতেই ফিরতে হয়েছে : বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি

১৭

খতনা করাতে গিয়ে ঘুমের বড়ি, মৃত্যুর মুখে শিশু

১৮

মার্কিন বিমানবাহী রণতরী আইজেনহাওয়ার কেন পালিয়ে গেল?

১৯

রাসেল ভাইপারে মৃত্যুরোধে পর্যাপ্ত অ্যান্টিভেনম সরবরাহ চেয়ে আইনি নোটিশ

২০
X