কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ১০ জুন ২০২৩, ১১:৫০ এএম
অনলাইন সংস্করণ

আগামী ২৪ ঘণ্টায় আরও প্রবল হবে ঘূর্ণিঝড় ‘বিপর্যয়’, ভারতে তিন রাজ্যে সতর্কতা জারি

প্রতীকী ছবি

আরব সাগরে সৃষ্ট অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘বিপর্যয়ের’ শক্তি বাড়ছে। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ঘূর্ণিঝড়টি আরও তীব্র হয়ে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হবে জানিয়েছে ভারতের আবহাওয়া বিভাগ (আইএমডি)। রাজ্যগুলো হলো গুজরাট, কেরালা ও কর্ণাটক।

সাগর উত্তাল থাকায় গুজরাট, কেরালা, কর্নাটক এবং লক্ষ্মদ্বীপের জেলেদের সমুদ্রে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে আইএমডি।

অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় বিপর্যয় বর্তমানে ভারতের গোয়া উপকূল থেকে প্রায় ৬৯০ কিলোমিটার পশ্চিমে, মুম্বাই থেকে ৬৪০ কিলোমিটার পশ্চিম-দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পোরবন্দর থেকে ৬৪০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে। এর বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টায় ১৪৫ কিলোমিটার। বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে এরই মধ্যে আগাম সতর্কতা জারি করা হয়েছে তিন রাজ্যে।

আইএমডি সতর্ক করেছে, ঝড়ের কারণে কর্নাটক, গোয়া ও মহারাষ্ট্রের উপকূলীয় অঞ্চলগুলোতে ভারি বৃষ্টিপাত এবং প্রবল বাতাস বয়ে যেতে পারে। ঘূর্ণিঝড় বিপর্যয়ের প্রভাবে সুউচ্চ ঢেউ এবং প্রবল বাতাসের কারণে আগামী ১৪ জুন পর্যন্ত গুজরাটের তিথাল সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছে কর্তৃপক্ষ।

এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব আগামী ৩-৪ দিন থাকতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এ সময় হতে পারে বজ্রপাতও। আগামী ৩-৪ দিন সাগরের মধ্যে হাওয়ার গতিবেগ হতে পারে ১৩৫-১৪৫ কিলোমিটার থেকে ১৬০ কিলোমিটার পর্যন্ত। গুজরাটের জেলেদের ১৪ জুন পর্যন্ত আরব সাগরে না যাওয়ার জন্য সতর্ক করা হয়েছে। এরই মধ্যেই নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে গুজরাটের উপকূলবর্তী ২২টি গ্রামের ৭৬ হাজার মানুষকে। পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সতকর্তা জারি করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় বিপর্যয়ের নামকরণ করেছে বাংলাদেশ। আরব সাগর এবং বঙ্গোপসাগরসহ উত্তর ভারত মহাসাগরে তৈরি হওয়া সমস্ত ঘূর্ণিঝড়ের জন্য ২০২০ সালে বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থা নামটি গ্রহণ করেছে।

গত মে মাসে বাংলাদেশ এবং মিয়ানমারে আঘাত হানে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’। তুলনামূলক বাংলাদেশে ক্ষয়ক্ষতি কম হলেও তাণ্ডব চালায় মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে। বিভিন্ন গণমাধ্যমের দাবি, দেশটিতে অন্তত চার শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে মোখার তাণ্ডবে। তবে কোনো তথ্যই প্রকাশ করেনি দেশটির ক্ষমতায় থাকা জান্তা সরকার।

এর আগে ২০০৮ সালে মিয়ানমারের দক্ষিণাঞ্চলে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড় নার্গিসের তাণ্ডবে প্রায় এক লাখ ৪০ হাজার মানুষ নিহত হয়েছিল, তারপর থেকে মোখা দেশটিতে আঘাত হানা অন্যতম শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

গ্রিজমানদের খালি হাতেই ফেরত পাঠালো ইন্টার মিলান  

একটি হুইল চেয়ারের আকুতি প্রতিবন্ধী সিয়ামের

ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে চবিতে ফুলের দাম বেড়েছে ৩ গুন

সীমান্তে শেষবারের মতো বোনের লাশ দেখলো স্বজনেরা

‘উদ্যোক্তা তৈরির মাধ্যমে কর্মসংস্থান তৈরি করতে চাই’-প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

‘ডাল ভাত খেয়েও যুদ্ধ করতে পারি’

ভাষা শহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

কোম্পানি রিটার্নের মেয়াদ ২ মাস বাড়ানোর দাবি এফবিসিসিআইর

ন্যায্যতা সম্পর্কিত সংসদীয় ককাস / উন্নয়নমূলক পদক্ষেপে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার আহ্বান 

এমপিদের থোক বরাদ্দের আগে জবাবদিহিতা নিশ্চিতের দাবি টিআইবির

১০

চাকরি গেল জাবির আলোচিত সেই শিক্ষকের

১১

পঞ্চগড়ে বন্যহাতির আক্রমণে যুবক নিহত

১২

অনলাইনে ভিডিও দেখে গামছা বিক্রেতার ছেলের মেডিকেলে চান্স

১৩

বাড়ছে বিদ্যুৎ-গ্যাসের দাম

১৪

‘দুই-তিনটা লাশ ফেলে দেব’- ছাত্রলীগ নেতার হুমকি

১৫

বোরকা পরে বোনের পরীক্ষা দিতে এসে আটক ভাই

১৬

ভক্তদের বিরাট-আনুশকার সুখবর

১৭

নতুন এমপিওভুক্ত মাদ্রাসায় রমরমা ‘ব্যাকডেট’ নিয়োগ বাণিজ্য

১৮

রাসেল ঝড়ে রংপুরকে হারাল কুমিল্লা

১৯

উত্তর বলে দেয় নাবিলা, খাতায় লিখে রহিমা

২০
X