সাইয়েদ বাবু, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি
প্রকাশ : ২৭ মে ২০২৪, ০৮:৪৭ এএম
আপডেট : ২৭ মে ২০২৪, ০৮:৫৪ এএম
অনলাইন সংস্করণ

কুড়িগ্রামে বেবী তরমুজ চাষে মাসে আয় অর্ধ লাখ

জারহাট উপজেলার রাজমিস্ত্রী শফিকুল ইসলাম স্বপনের স্ত্রী লাভলী বেগমের বেবী তরমুজের ক্ষেত। ছবি : কালবেলা
জারহাট উপজেলার রাজমিস্ত্রী শফিকুল ইসলাম স্বপনের স্ত্রী লাভলী বেগমের বেবী তরমুজের ক্ষেত। ছবি : কালবেলা

কুড়িগ্রামে পলিথিন দিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে উঁচু জমিতে গ্রীষ্মকালীন বেবী তরমুজ চাষ করে লাভবান হয়েছে কৃষক। মাত্র তিন মাসের মধ্যে ৩৫ হাজার টাকা খরচ করে দেড় লক্ষ টাকা আয় করতে পেরে খুশি তরমুজ চাষি।

জেলার রাজারহাট উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের মীরেরবাড়ী এলাকার রাজমিস্ত্রী শফিকুল ইসলাম স্বপনের স্ত্রী লাভলী বেগম নিজেই এই তরমুজ চাষ করে সাঁড়া ফেলে দিয়েছেন। কলেজে পড়ুয়া মেয়ে সন্তান ও স্কুলে পড়া ছেলে সন্তানের খরচ মেটাতে শফিকুল ইসলাম স্বপন রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে রাজমিস্ত্রীর কাজ করেন। স্বামীর অনুপস্থিতে লাভলী বেগম তার ২০ শতক জমিতে এবার ব্লাক ডায়মন্ড কালারের বেবী তরমুজ চাষ করে সাড়া ফেলে দিয়েছেন।

লাভলী বেগম বলেন, স্থানীয় বেসরকারি সংগঠন আরডিআরএস বাংলাদেশ থেকে তিনি জানতে পারেন স্বল্প সময়ে মালচিং পদ্ধতিতে সুস্বাদু তরমুজ চাষে তারা আর্থিকভাবে সহযোগিতা করছেন। তাদের কাছে প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ নিয়ে এই প্রথম এই এলাকায় বেবী তরমুজ চাষে উদ্বুদ্ধ হই। জমি তৈরি, সার ও বীজ কেনায় আরডিআরএস থেকে তিনি ১৫ হাজার টাকা সহায়তা পান। এরপর ফেন্সিং তৈরি করতে তার নিজের খরচ হয় প্রায় ২০ হাজার টাকা। সবমিলিয়ে ৩৫ হাজার টাকা খরচ করে তিনি তরমুজ চাষ করে সাফল্যের মুখ দেখেছেন। প্রায় তিন মাসের মধ্যে প্রায় এক হাজারের ওপর তরমুজ গাছে বেড়ে উঠছে।

রাজমিস্ত্রী শফিকুল ইসলাম স্বপন বলেন, আমার স্ত্রী আর মেয়ে সুমী মিলে তরমুজ চাষে সহযোগিতা করেছে। আমি বাইরে ছিলাম। বাড়িতে এসে কালো সোনা রঙের তরমুজ বৃদ্ধি হতে দেখে খুব আনন্দ পেয়েছি। পাইকারদের সঙ্গে কথা হয়েছে তারা ৩৫ টাকা কেজি দরে তরমুজ কিনতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। আমার জমিতে প্রায় এক ১১০০ তরমুজ আছে। গড়ে ৫ কেজি করে ওজন হবে। আমি ১ লাখ ৯০ হাজার টাকায় বিক্রি করতে পারবো। এতে খরচ মিটিয়ে দেড় লাখ টাকার মতো আয় হবে। পলিথিন দিয়ে বেবী তরমুজ চাষে সাফল্য পাওয়ায় অনেকে শুধু দেখতে আসেননি। তারা চাষের কায়দা কানুনও জানতে এসেছেন। যাতে নিজেরাও চাষ করতে পারেন।

আগ্রহী চাষি মালতী রানী বলেন, আমি এখানে আসলাম, দেখলাম আবাদটা সুন্দর। পরে লাভলী দিদির কাছে শুনলাম মালচিং পলিথিন দিয়ে দিদি সেটা আবাদ করেছে। এখন আমারও ইচ্ছে হচ্ছে, আমিও সেরকমভাবে আবাদ করবো। আমার বাড়ির আশপাশে যে জায়গা আছে সেখানে চাষ করবো। সেজন্য এখানে এসেছি।

লাভলী বেগমের প্রতিবেশী হাজেরা খাতুন বলেন, আমাদের এলাকায় মানুষ সবসময় সবজি চাষ করেন। কখনো কাউকে তরমুজ চাষ করতে দেখিনি। লাভলী আপা তরমুজ চাষ করেছে শুনে দেখতে এসেছি। এসে অবাক হয়ে গেছি। সত্যি সত্যি আপা অসাধ্য সাধন করেছে। মেয়েকে নিয়ে তিনি যে কষ্ট করে তরমুজ চাষ করেছেন সেগুলো বড় হওয়ার পর তা দেখে তার সঙ্গে সঙ্গে আমরাও খুশি হয়েছি।

আরডিআরএস রংপুর বিভাগের টিম লিডার বিদ্যুৎ কুমার সাহা জানান, স্মার্ট লাইভলিহুড কৃষি ব্যবস্থাপনা সম্প্রসারণে পল্লীকর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায় কুড়িগ্রাম জেলায় গত বছর থেকে মালচিং পদ্ধতিতে তরমুজ চাষ করা হচ্ছে। যা কৃষকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। খেতেও খুব সুস্বাদু। রংটাও আকর্ষণীয়। বর্তমানে কৃষকদের মাঝে চাষে আগ্রহ বাড়ছে।

এ বিষয়ে রাজারহাট উপজেলা কৃষি অফিসার মোছা. সাইফুন্নাহার সাথী বলেন, বর্তমানে উচ্চমূল্য ফসলের মধ্যে তরমুজ একটি অন্যতম ফসল। তরমুজ মূলত চরাঞ্চলের ফসল। কুড়িগ্রামে প্রায় সাড়ে ৪০০ চরাঞ্চল রয়েছে। চরগুলোতেও এই ফসলটি আমরা সম্প্রসারণ করতে পারি। কৃষকদের চাষাবাদ প্রযুক্তি সম্পর্কে ধারণা প্রদান করা হলে ব্যাপকভাবে এর সম্প্রসারণ ঘটাতে পারি।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

বাসের ধাক্কায় নারীসহ নিহত ২

খোঁজ মিলল বিলাসী ভেড়ার, দাম ৮০ লাখ

ছেলেকে বাঁচাতে যাওয়ায় বাবাকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা

ইসরায়েলের স্পর্শকাতর লক্ষ্যবস্তুর ফুটেজ প্রকাশ করল লেবাননের যোদ্ধারা

খুলে দেওয়া হলো তাহিরপুরের পর্যটন স্পট

সেনাপ্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিলেন ওয়াকার-উজ-জামান

এসিআইয়ে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ, কর্মস্থল ঢাকা

আ.লীগ মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করে : এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী

ছাত্রলীগ নেতা-নেত্রীর অন্তরঙ্গ ভিডিও ভাইরাল

খালেদা জিয়ার আরোগ্য কামনায় মোহাম্মদপুরে দোয়া মাহফিল 

১০

খালেদা জিয়া জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে : ফখরুল

১১

মতিউরের দুর্নীতি তদন্তে দুদকের ৩ সদস্যের টিম গঠন

১২

থানচি ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা শিথিল

১৩

হোটেলে নারী পুলিশের সঙ্গে ধরা, ডেপুটি সুপার হলেন কনস্টেবল

১৪

বিশ্বকাপে আফগানদের জয় আর অঘটন নয়, সাধনার ফল!

১৫

হাসপাতালে যাওয়ার পথে ট্রাকচাপায় বৃদ্ধের মৃত্যু

১৬

স্নাতক পাসে ব্র্যাক ব্যাংকে চাকরি

১৭

বিএনপি স্বাধীনতাবিরোধীদের তোষণ না করলে দেশ আরও এগিয়ে যেত : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

১৮

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স চতুর্থ ও ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ২ পরীক্ষা স্থগিত

১৯

বুয়েটে কেন্দ্রীয় মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

২০
X