কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৪:২৮ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

মশা মারতে খাল-জলাশয় পরিষ্কারে নামল ডিএনসিসি

খাল ও জলাশয় পরিষ্কার শুরু করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। ছবি : কালবেলা
খাল ও জলাশয় পরিষ্কার শুরু করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন। ছবি : কালবেলা

কিউলেক্স মশা মারতে একযোগে খাল ও জলাশয় পরিষ্কার শুরু করেছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)।

শনিবার (২ ডিসেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান ডিএনসিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা মকবুল হোসাইন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শুষ্ক মৌসুমে নালা-নর্দমা, ডোবা, খাল ও জলাশয়ের জলজ আগাছা এবং ময়লা-আবর্জনা মশার উর্বর প্রজননস্থল হিসেবে কাজ করে। তাই কিউলেক্স মশার উপদ্রবের কারণে নগরবাসীর স্বাভাবিক জীবনযাত্রায় যেন ব্যাঘাত সৃষ্টি না করে সেই লক্ষ্যে একযোগে ডিএনসিসির আওতাধীন এলাকার নালা-নর্দমা, ডোবা, খাল ও জলাশয় পরিষ্কার করে রক্ষণাবেক্ষণের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। গত ২৬ নভেম্বর থেকে ডিএনসিসির দশটি অঞ্চলের মশক ও পরিচ্ছন্নকর্মীরা একযোগে পরিষ্কার কার্যক্রম শুরু করেছেন।

ইতোমধ্যে অনেক নালা, ডোবা, খাল ও জলাশয় পরিষ্কার করা হয়েছে। বড় খাল- বিশেষ করে লাউতলা খাল, রুপনগর খাল, সূতিভোলা খালের কচুরিপানা; দুটি ফ্লোটিং মেশিন দিয়ে অপসারণ করা হয়েছে। এ ছাড়া প্রতিটি ওয়ার্ডের ছোট ও মাঝারি আকারের ডোবা ও জলাশয়ে মশক কর্মী ও পরিচ্ছন্ন কর্মীরা পরিষ্কার কার্যক্রম করছে। সব জলাশয় পরিষ্কার না হওয়া পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা বলেন, শুষ্ক মৌসুমে কিউলেক্স মশার উৎপাত বেড়ে যায়। মশার যেহেতু নির্দিষ্ট বাউন্ডারি নেই তাই শুধু ডিএনসিসির মালিকানাধীন খাল ও জলাশয় পরিষ্কার করলে মশা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব নয়। তাই নগরবাসীকে স্বস্তি দিতে মেয়রের নির্দেশে খাল, ডোবা ও জলাশয়ের মালিক সরকারি প্রতিষ্ঠান কিংবা ব্যক্তি হলেও আমরা ডিএনসিসি থেকে পরিষ্কারের উদ্যোগ নিয়েছি। তবে সবাইকে নিজেদের খাল, জলাশয় ও ডোবা পরিষ্কার করতে হবে। ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব নিতে হবে। জলাশয়গুলোতে প্রচুর কচুরিপানা। এই কচুরিপানা পরিষ্কার না করলে আমরা সিটি করপোরেশন থেকে যতই মশার ওষুধ দেই না কেন মশা নিধন করা সম্ভব না। তাই কচুরিপানা পরিষ্কার করার বিশেষ এই কার্যক্রম নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, শুষ্ক মৌসুম শুরু হলেও এখনো ডেঙ্গুর প্রকোপ রয়েছে। তাই শুধু কিউলেক্স মশা নয়, এডিস মশা নিধনেও সবাইকে সচেতন থাকতে হবে। বাসাবাড়ির আশপাশ পরিষ্কার রাখাসহ কোথাও যেন পানি জমে না থাকে এ বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ব্র্যাকে চাকরির সুযোগ, বয়সসীমায় ছাড়

সিঙ্গাপুর গেলেন মির্জা ফখরুল

সাংবাদিক ও কবি তালাত মাহমুদ মারা গেছেন

যুক্তরাজ্যের বিরুদ্ধে আবারও ইয়েমেনিদের হুঁশিয়ারি

বাড়ির আঙিনায় ড্রেনের পানি, দুর্গন্ধ ও মশায় অতিষ্ঠ

পাহাড়ি হলুদের দাম দ্বিগুণেরও বেশি, তবু কেন এত কদর

রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক ধ্রুপদী সংগীত সম্মেলন শুরু

১৩ জেলায় তীব্র ঝড় ও বজ্রসহ বৃষ্টির আশঙ্কা

ত্রিপুরা ভাষায় পাঠদান না থাকায় চট্টগ্রামে ঝরে পড়ছে শিক্ষার্থী

লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কে বেড়েছে দুর্ঘটনা, ১৭ দিনে ঝরল ৭ প্রাণ

১০

ওডেশায় রুশ ড্রোন হামলায় নিহত বেড়ে ১০

১১

চার বিভাগে বজ্রসহ বৃষ্টির পূর্বাভাস

১২

৪ মার্চ : নামাজের সময়সূচি

১৩

সোমবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

১৪

আজ ১৬ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না যেসব এলাকায়

১৫

নিয়মিত খেজুর খেলেই মিলবে উপকার

১৬

খাবার অযোগ্য চাল সরবরাহের অভিযোগ

১৭

ফোডেন জাদুতে ইউনাইটেডকে হারাল ম্যানসিটি

১৮

কোস্টগার্ডের অভিযানে ৯০ মণ জেলি পুশকৃত চিংড়ি জব্দ

১৯

শুস্ক মৌসুমে যমুনার ভাঙন, অর্ধ-শতাধিক বাড়িঘর বিলীন

২০
X