শাওন সোলায়মান
প্রকাশ : ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০২:২৪ এএম
আপডেট : ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:১৩ এএম
প্রিন্ট সংস্করণ

ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় এআই

ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় এআই

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে দেশের ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা। এর মধ্য দিয়ে দেশের ট্রাফিক ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আসবে বলে সংশ্লিষ্টদের ধারণা। গত জানুয়ারি থেকে রাজধানীর গুলশান ও মিরপুরে পরীক্ষামূলক (পাইলট) কার্যক্রম শুরু করেছে সফটওয়্যার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান সিগমাইন্ড।

এর আওতায় কোনো গাড়ি উল্টোপথে চালানো হলে, কোথাও অবৈধভাবে পার্কিং করা থাকলে অথবা গাড়ি দাঁড় করিয়ে ট্রাফিক চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হলে, নির্ধারিত সীমার চেয়ে উচ্চগতিতে চালানোর মতো ট্রাফিক আইন ভঙ্গের ঘটনা শনাক্ত করবে এই প্রযুক্তি। পাশাপাশি যানবাহনের রং এবং নম্বর প্লেট শনাক্ত করে সেটির রেজিস্ট্রেশন নম্বর (প্লেটের গায়ে উল্লিখিত) নম্বরও শনাক্ত করবে। শুধু শনাক্তই নয়, নিয়ম ভঙ্গের তথ্য সঙ্গে সঙ্গে নির্ধারিত সময়ে (রিয়েল টাইম) চলে যাবে পুলিশের কাছে। ফলে ট্রাফিক আইনের প্রতিপালনে পুলিশকে সার্বক্ষণিক তদারকি করতে হবে না। আবার কোনো নির্দিষ্ট স্থানে পুলিশ না থাকার সুযোগে কেউ আইন ভঙ্গ করলে সেটিও শনাক্ত করবে এআই।

সিগমাইন্ডের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা (সিটিও) হাবিব মো. ইবনে রফিক কালবেলাকে বলেন, কম্পিউটার ভিশন টেকনোলজিকে এআইয়ের সঙ্গে যুক্ত করে ‘ট্রাফিকফ্লো’ নামে একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছি। পাশাপাশি ‘ইমেজ টু টেক্সট’ অর্থাৎ ছবি থেকে লেখা শনাক্তকরণ এবং ‘ডিপ লার্নিং’ প্রযুক্তিও রয়েছে এখানে। এই সিস্টেমের মাধ্যমে যানবাহনকে তদারকি করা সক্ষম। বাংলাদেশে চলা অন্তত ২৫ ধরনের

যানবাহনকে এই সিস্টেমে যুক্ত করেছি। এর ফলে কোথাও কোনো অননুমোদিত যানবাহন প্রবেশ করলে বা করতে চাইলে বা উল্টোপথে আসার মতো নিয়মের লঙ্ঘন হলে সিস্টেমে ধরা পড়বে। সেই ডেটার ভিত্তিতে পুলিশ বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কাঙ্ক্ষিত ব্যবস্থা নিতে পারবেন।

তিনি আরও বলেন, নিয়ম লঙ্ঘনের ঘটনায় চাইলে সরাসরি ট্রাফিক মামলা দায়েরের ফিচারও এতে যুক্ত করা সম্ভব। এমনকি ‘রি-আইডেন্টিফিকেশন’ প্রযুক্তির কারণে নম্বর প্লেটের পাশাপাশি গাড়ির রং এবং ধরন শনাক্তের সুবিধা থাকায় চুরি যাওয়া যানবাহন অথবা ভুয়া নম্বর প্লেটযুক্ত গাড়িও শনাক্ত করা যাবে ট্রাফিকফ্লোতে।

হাবিব ইবনে রফিক জানান, যেকোনো সাধারণ আইপি (ইন্টারনেট প্রটোকল) ক্যামেরা এবং ‘রিয়েল টাইম স্ট্রিমিং প্রটোকল (আরটিএসপি)’ সুবিধায় যুক্ত ক্যামেরার মাধ্যমে এই সফটওয়্যার খুব সহজেই তথ্য বিশ্লেষণ করবে। এমনকি যানবাহন ‘ট্র্যাকিং’-এর নির্ভুল তথ্য নিশ্চিতে এবং ‘ভুয়া সংকেত’ এড়াতে একাধিক দিকে বসানো ক্যামেরার মাধ্যমে তথ্য বিশ্লেষণ করবে ‘ট্রাফিকফ্লো’।

অটোমেশনের কারণে দক্ষতা বৃদ্ধি এবং মানব পরিশ্রম হ্রাসের বিষয়টি ব্যাখ্যা করে সিগমাইন্ডের প্রধান নির্বাহী আবু আনাস কালবেলাকে বলেন, বর্তমানে কোনো ঘটনা ঘটার পর সেটির বিশ্লেষণে একজন মানুষকে ম্যানুয়ালি দীর্ঘসময় সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে হয়। কিন্তু এই সিস্টেম যেহেতু সম্পূর্ণ অটোমেশন এবং গাড়ির নম্বর প্লেট থেকে শুরু করে রং, ধরনের মতো বিভিন্ন ডেটা এতে আছে, শুধু সেসব তথ্য সিস্টেমে দিয়ে ‘কমান্ড’ দিলেই সফটওয়্যার কাঙ্ক্ষিত মুহূর্তের ফুটেজ দেখিয়ে দেবে। সেই নির্দিষ্ট যানবাহনটি কোন রুট ধরে গিয়েছে, আলাদা করে সেটিও দেখা যাবে। ফলে অনেক ক্যামেরার ফুটেজ দেখে কোনো কিছু শনাক্তের যে বিষয়টি, সেটিও এখানে থাকছে না। পুরো বিষয়টিই হবে অটোমেশনে। যানবাহনের গতি, প্রকৃতি ও পরিচিতি—এই তিন ধরনের তথ্য-উপাত্ত থাকার ফলে একইসঙ্গে খুঁজে বের করা ও নিয়ন্ত্রণ করা সহজ হবে।

তবে এই ব্যবস্থায় তথ্যের সুরক্ষা, নিরাপত্তা এবং অনাকাঙ্ক্ষিত নিয়ন্ত্রণে যাওয়ার মতো বিষয়গুলোও বেশ গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনার দাবি প্রতিষ্ঠানটির। আবু আনাস বলেন, এই তথ্যগুলো দেশেই সার্ভারে রাখছি। অনেক প্রতিষ্ঠান সাধারণত তাদের তথ্য বিদেশের সার্ভারে রাখে, যা আমরা করছি না। ফলে তথ্যের সুরক্ষায় প্রথম ধাপ পূরণ হলো। দ্বিতীয় ধাপে গুরুত্ব পায় গ্রাহকের চাহিদা অর্থাৎ গ্রাহক যেখানে তার তথ্য রাখতে চায়, সেখানেই তথ্য সংরক্ষিত হয়। ফলে এই উপাত্ত তৃতীয়পক্ষের কাছে যাওয়ার সুযোগ নেই। অর্থাৎ উপাত্তগুলো ‘পাবলিক ডোমেইনে’ থাকে না। পাশাপাশি ওয়েবটুলসহ বিভিন্ন সুরক্ষা ব্যবস্থার মাধ্যমে তথ্যগুলো মানসম্পন্ন উপায়ে সুরক্ষিত রাখা হয়।

সিগমাইন্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠানটি এরই মধ্যে বেপজা, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ, কুমিল্লা সিটি করপোরেশন, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, ডিএইচএল, রবি আজিয়াটাসহ নানা সরকারি ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের কাজ করছে। পাশাপাশি যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, জাপান, ভারতসহ বিভিন্ন দেশে এ ধরনের সফটওয়্যার রপ্তানিও করেছে সিগমাইন্ড।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

মাছ শিকারের দারুণ কৌশল দারকি

উদ্ভাবন ছাড়া টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয় : ঢাবি উপাচার্য

মধ্যরাতে জবির মসজিদে ছাত্রী, কী ঘটেছিল সেদিন!

বাগেরহাটে গাছচাপা পড়ে নারীর মৃত্যু

এমপি আনার হত্যা : যশোর থেকে অভিযুক্ত শিমুলের সহযোগী গ্রেপ্তার

পারমাণু বোমা তৈরির দ্বারপ্রান্তে ইরান

নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

ঘূর্ণিঝড় রিমালের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড মনপুরা

চাঁদপুরে ফের দেখা মিলল ভয়ংকর রাসেল ভাইপারের

মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে লাঠির আঘাতে কিশোরের মৃত্যু

১০

পুলিশ ডাকলে ডিএনএ স্যাম্পল দিতে কলকাতা যাব : আনারকন্যা ডরিন

১১

চ্যাম্পিয়ন বিকেএসপি, সেরা সাঁতারু তোফায়েল–অ্যানি

১২

ঘূর্ণিঝড় রিমাল / শ্রমে ঘামে এবার অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই

১৩

১৫ ঘণ্টার তাণ্ডবে লন্ডভন্ড বরগুনা

১৪

গ্যাসের চুলায় বানাচ্ছিলেন মদ

১৫

কার্বন নিঃসরণে উন্নত দেশগুলোই মূল অপরাধী : মেয়র আতিক

১৬

মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

১৭

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসার আহ্বান ভাসানী পরিষদের 

১৮

গোলটেবিলে বক্তারা / জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় চাই বাস্তবসম্মত ও বিজ্ঞানভিত্তিক কৌশল

১৯

ধাক্কা দিয়ে ৭০ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩

২০
X