কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ১৬ অক্টোবর ২০২৩, ১১:২৪ পিএম
আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২৩, ১১:৫১ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

অচলায়তন ভাঙার শপথে এগিয়ে চলেছে কালবেলা

নগরীর বেইলি রোডে অফিসার্স ক্লাবে বিশিষ্টজনকে নিয়ে কালবেলার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়। ছবি : কালবেলা
নগরীর বেইলি রোডে অফিসার্স ক্লাবে বিশিষ্টজনকে নিয়ে কালবেলার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়। ছবি : কালবেলা

কোভিড-পরবর্তী বৈশ্বিক অর্থনৈতিক টানাপড়েন, দেশের শ্বাসরুদ্ধকর রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্যে ২০২২ সালের ১৬ অক্টোবর বাজারে আসে দৈনিক কালবেলা। অচলায়তন ভাঙার দৃপ্ত শপথে ‘আঁধার পেরিয়ে স্লোগানে’ পত্রিকাটি বাজারে এসেই তুমুল আলোড়ন তোলে। ছাপা পত্রিকায় আস্থা ফেরাতে পাঠকদের উপহার দেয় একের পর এক দুর্দান্ত আলোচিত রিপোর্ট। গণমাধ্যম, গণমানুষের কণ্ঠস্বর—তা ফুটিয়ে তুলতে প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা ছিল পত্রিকার প্রতিটি পাতাজুড়ে। চলতে চলতে পাঠকপ্রিয়তার শীর্ষে ওঠা নিপীড়িত মানুষের বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর কালবেলা অতিক্রম করল নবযাত্রার এক বছর। তারুণ্যোদীপ্ত সংবাদকর্মী, দক্ষ ব্যবস্থাপনার মিশেলে দেশের গণমাধ্যম জগতে এখন শক্তিশালী নাম কালবেলা।

ছাপা পত্রিকার পাশাপাশি কালবেলার মাল্টিমিডিয়া ও অনলাইন এখন দেশসেরা। ডিজিটাল জগতে সব গণমাধ্যমের মধ্যে শীর্ষে অবস্থান ধরে রেখেছে দীর্ঘদিন ধরেই। পাশাপাশি নিত্যনতুন সংবাদ ও দারুণ উপস্থাপনায় ভিডিও সংবাদেও আনা হয়েছে নতুনত্ব। নবযাত্রার প্রথম বছরপূর্তিকে স্মরণীয় করে রাখতে কালবেলা পরিবারে সোমবার লেগেছিল আনন্দ আয়োজনের ঢেউ। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের পাশাপাশি কালবেলার প্রধান কার্যালয় সেজেছিল ভিন্নরূপে। কর্মীরাও তাদের প্রিয় প্রতিষ্ঠানের বর্ষপূর্তি আবেগ-ভালোবাসায় উদযাপন করেছেন। প্রাত্যহিক কাজের বাইরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী যেন একচিলতে সুখ হয়ে এসেছিল কালবেলা কার্যালয়ে।

নবযাত্রার বর্ষপূর্তিকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে মধ্যরাত অবধি শুভেচ্ছা জানাতে আসেন দেশের বিশিষ্টজন, রাজনীতিবিদ, আমলা, ব্যবসায়ী, ব্যাংকার, তারকাসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমেও দেশ-বিদেশের অগণিত পাঠক ও শুভানুধ্যায়ী শুভকামনা জানিয়েছেন। দুই পর্বের এই আয়োজনে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রাজধানীর নিউমার্কেট এলাকার নিউমার্কেট সিটি কমপ্লেক্সে পত্রিকার প্রধান কার্যালয়ে উৎসবমুখর পরিবেশে প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজন চলে। বিকেল ৪টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত নগরীর বেইলি রোডে অফিসার্স ক্লাবে চলে দ্বিতীয় পর্বের আনুষ্ঠানিকতা। সন্ধ্যা ৭টায় বিশিষ্টজনকে নিয়ে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়।

অনুষ্ঠানের নানা পর্বে অংশ নিয়ে বিশিষ্টজন শুভকামনা জানিয়ে বলেন, বর্তমান সময়ে সাহসী সাংবাদিকতার প্রতীকে রূপ নিয়েছে কালবেলা, যা গণতন্ত্র ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তারা বলেন, শুরু থেকেই নির্ভয়ে সত্য উচ্চারণে অগ্রণী ভূমিকা পালনের পাশাপাশি অবাধ তথ্যপ্রবাহের জানালা অবারিত করেছে কালবেলা টিম। পত্রিকাটির বিশেষত্ব হলো—আগাম খবরে এগিয়ে থাকা; সাদাকে সাদা আর কালোকে কালো বলার চেষ্টা করা। কোনো পরিস্থিতিতেই পিছু হটেনি কালবেলা, যা দেশের গণমাধ্যম জগতে কয়েক দশকের ইতিহাসে বিরল। এ কারণে অল্প সময়ে পাঠকপ্রিয় কাগজে পরিণত হয়েছে পত্রিকাটি। কালবেলার সাহসে এখন অনেক গণমাধ্যম অনিয়ম, দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার চেষ্টা করছে। অনলাইনেও তরুণ পাঠকের কাছে পছন্দের শীর্ষে এই দৈনিক। সব মিলিয়ে দ্বিতীয় বর্ষে পত্রিকাটির কাছে প্রত্যাশা অনেক বেশি। আরও সাহসের সঙ্গে সত্য ও সুন্দরের পথ ধরে এগিয়ে যাবে ভালোবাসার দৈনিক কালবেলা।

অনুষ্ঠানে অতিথিদের স্বাগত জানান কালবেলার প্রধান সম্পাদক আবেদ খান, সম্পাদক ও প্রকাশক সন্তোষ শর্মা এবং বিশ্বাস বিল্ডার্স ও কালবেলা মিডিয়া লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নজরুল ইসলাম দুলাল। পরে প্রধান সম্পাদক আবেদ খান মঞ্চে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জি এম কাদের, ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান, গণঅধিকার পরিষদের (নুর) নুরুল হক নুর, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জায়েদা খাতুন, সংসদ সদস্য সুলতান মনসুরকে সঙ্গে নিয়ে কেক কাটেন।

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ ও আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও নাঈমুর রহমান দুর্জয় এমপি। এর আগে সকালে কালবেলা কার্যালয়ে এসে শুভেচ্ছা জানান নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

বিএনপির পক্ষে শুভেচ্ছা জানিয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, স্বতন্ত্র মহিমায় কালবেলা এগিয়ে গেছে, আরও এগিয়ে যাবে। এটাই আমাদের প্রত্যাশা। এ ছাড়া বিএনপির পক্ষ থেকে শুভেচ্ছা জানান স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লাহ বুলু, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ ও এমরান সালেহ প্রিন্স, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক নাসিরউদ্দিন অসীম, পল্লী উন্নয়নবিষয়ক সম্পাদক ফরহাদ হোসেন আজাদ, সহ-যুববিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী, কোষাধ্যক্ষ রাশিদজ্জামান মিল্লাদ, আন্তর্জাতিকবিষয়ক কমিটির সদস্য তাবিথ আউয়াল ও মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক জহির উদ্দিন স্বপন।

এ ছাড়া শুভেচ্ছা জানান গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চৌধুরী, সিপিবি সভাপতি রুহিন হোসেন প্রিন্স, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাতীয় পার্টির সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, সহিদুর রহমান টেপা, মীর আবদুস সবুর আসুদ, খন্দকার দেলোয়ার জালালী, আমার বাংলাদেশ (এবি) পার্টির যুগ্ম আহ্বায়ক তাজুল ইসলাম, যুগ্ম সদস্য বিএম নাজমুল হক, জাতীয় দলের চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হুদা, জাতীয় পার্টির (জাফর) মহাসচিব আহসান হাবিব লিংকন, বাংলাদেশ এলডিপির মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম ও সহসভাপতি সৈয়দ মোহাম্মদ ইব্রাহিম রওনক, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহাসচিব মুফতি গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান লায়ন ফারুক রহমান, জাগপার সিনিয়র সহসভাপতি রাশেদ প্রধান, কল্যাণ পার্টির অতিরিক্ত মহাসচিব আব্দুল্লাহ আল হাসান সাকিব ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মুহাম্মদ আবু হানিফ, জাতীয় পার্টির যুগ্ম মহাসচিব মো. শরিফুল ইসলাম, জাতীয় শ্রমিক দলের আহ্বায়ক ফরিদ উদ্দিন, খেলাফত মজলিসের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক আব্দুল জলিল, প্রচার সম্পাদক আব্দুল হাফিজ খসরু, ইসলামী আন্দোলনের মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, শহীদুল ইসলাম কবির, গণঅধিকার পরিষদের (নুর) সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান, গণমাধ্যম সমন্বয়ক আবু হানিফ, ঢাকা মহানগর উত্তর জামায়াতের আতাউর রহমান, দক্ষিণের আশরাফুল আলম ইমন, শিবিরের নূরুল ইসলাম, সাদেক আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

শুভেচ্ছা জানাতে এসেছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি ড. অধ্যাপক মাকসুদ কামাল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ড. হারুণ অর রশিদ, ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. আব্দুল মান্নান চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সভাপতি নিজামুল হক ভূঁইয়া, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান, ডা. শহিদুল্লাহ সিকদার, বরুণ ভৌমিক দোলন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মাহবুব হোসেন, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব সামসুল আরেফিন, সাবেক ইসি সচিব হেলাল উদ্দিন, সাবেক আইজিপি শহিদুল হক, পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার, বাংলাদেশ মুঠোফোন গ্রাহক অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ, ঢাকা মহানগর পুলিশের সিটিটিসির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার নাজমুল ইসলাম প্রমুখ।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ডেমরায় যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ফের আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন চেয়ারম্যান প্রার্থী, নীরব প্রশাসন

ভোটের তিন বছর পর কাউন্সিলর হচ্ছেন আলী আহাম্মদ

পাবনায় ঐতিহ্যবাহী ঘোড় দৌড় প্রতিযোগিতা

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ইউপি সদস্যের মৃত্যু

শুধু আ.লীগের লোকজন ভিজিএফ ও টিসিবি কার্ড পাবে

ছেড়ে গেছেন সন্তানরা, সংসার টানছেন ১০৭ বছরের বৃদ্ধা

৫ হাজার টাকায় স্ত্রীকে ‘মাদক কারবারির’ হাতে তুলে ‍দিলেন স্বামী

ব্যারিস্টার সুমনের খেলা দেখতে হাজারো মানুষের ভিড়

সাতক্ষীরায় এমপির গাড়িতে হামলা

১০

জব্বারের বলী খেলা ২৫ এপ্রিল

১১

মতিঝিল আইডিয়ালের গভর্নিং বডির নির্বাচন অনুষ্ঠিত

১২

খরুচে বোলিং মোস্তাফিজের, চেন্নাইয়ের হার

১৩

এফডিসিতে ৫৭০ ভোটারের সংবাদ সংগ্রহে ৩০০ সাংবাদিক

১৪

যশোরে অধিকাংশ টিউবওয়েলে মিলছে না পানি

১৫

বিদেশি শ্রমিকদের সুখবর দিল কুয়েত

১৬

এফডিসিতে ফিরেছেন নির্বাচন কমিশনার, খোঁজ নেই নিপুনের

১৭

চাঁদপুরে পূবালী ব্যাংক কর্মকর্তা নিখোঁজের ঘটনায় ৮ কর্মকর্তা বদলি

১৮

বিআরটিএর অভিযানে ৪০৫ মামলা, ১০ লাখ টাকা জরিমানা 

১৯

প্রেমিককে কুপিয়ে জখম, প্রেমিকা আটক

২০
*/ ?>
X