শিতাংশু ভৌমিক অংকুর
প্রকাশ : ২১ জুন ২০২৪, ০৭:১২ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

আওয়ামী লীগ দলে বাড়ছে তরুণনির্ভরতা

দুটি ট্রাকের ওপর বানানো অস্থায়ী মঞ্চে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। ছবি : সংগৃহীত
দুটি ট্রাকের ওপর বানানো অস্থায়ী মঞ্চে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তরুণ নেতৃত্ব! এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগের একাধিক তরুণ ও প্রবীণ নেতৃত্ব এবং তরুণ সংসদ সদস্যরা বলছেন, দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের পর প্রমাণ হয়েছে আওয়ামী লীগ নবীন ও প্রবীণ উভয়ের প্রথম পছন্দের দল। তাই তো দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত একাধিক তরুণ সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন।

তারুণ্যের মেধা, নতুন চিন্তাধারা, সৃজনশীল মনোভাব দেশকে সামনের দিকে অনেক দূর এগিয়ে নেয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তোফায়েল আহমেদ, আবদুর রাজ্জাক, তাজউদ্দীন আহমদরা তরুণ বয়সেই বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতৃত্ব দিয়ে এ দেশকে স্বাধীন করেছেন।

তার আগে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে শত্রুদের বুলেটে বুকের রক্তে রাজপথ রঞ্জিত করে মায়ের ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন তরুণরাই। স্বাধীনতাপূর্ব সময়ে রাজনৈতিক সংগ্রাম, মুক্তিযুদ্ধ এবং স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশে বিস্ময়কর উন্নয়নসহ সর্বত্র এ দেশকে এগিয়ে নিয়েছেন তরুণরাই। বর্তমান সরকারের নেতৃত্বের নানা স্তরে তরুণ প্রজন্মকে নির্দেশনা দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দলের একাধিক তরুণ নেতৃত্ব। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়ার অন্যতম প্রধান ভরসা ছিলেন তরুণরা। টানা চতুর্থবারের মতো এ দলটির ক্ষমতায় আসার পেছনে কাজ করেছে তরুণ প্রজন্মের সমর্থন।

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনিস্টিউটের সামনে সংক্ষিপ্ত জনসভা ও র‌্যালিতে লক্ষ্য করা গেছে অসংখ্য তরুণের। তারা আগামীতে কেমন আওয়ামী লীগ দেখতে চান। সে নিয়ে জনসভায় প্রায় সকল নেতার বক্তব্যে ছিল বাংলাদেশের তরুণ জনগোষ্ঠীর জন্য আওয়ামী লীগের নানা উদ্যোগের কথা।

প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর তিন দিনব্যাপী কর্মসূচির প্রথম দিন শুক্রবার (২১ জুন) দুপুরে ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে রমনার ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউটের সামনে জড়ো হন। সেখানে দুটি ট্রাকের ওপর বানানো অস্থায়ী মঞ্চে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় নেতারা।

সমাবেশের পর বিকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট থেকে শোভাযাত্রা নিয়ে ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে যান নেতাকর্মীরা। ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটের সামনে মঞ্চে রয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, এসএম কামাল হোসেন, শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, উপদপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, কার্যনির্বাহী সদস্য এবং সংসদ সদস্য সাঈদ খোকন ও সাহাবুদ্দিন ফরাজী।

পুরান ঢাকা থেকে মিছিল নিয়ে আসা আওয়ামী লীগের তরুণ নেতা ও ঢাকা-০৭ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য সোলেয়মান সেলিম বলেন, ২৩ জুন আমাদের প্রাণপ্রিয় সংগঠন আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। প্রায় পাঁচ সহস্রাধিক নেতাকর্মী মিছিলে অংশ নিয়েছে। আওয়ামী লীগ তরুণনির্ভর একটি রাজনৈতিক দল। আওয়ামী লীগের ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তরুণদের জমায়েত চোখে পড়ার মতো। আওয়ামী লীগ মনোনীত সংসদ সদস্য হিসেবে তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধিত্ব করেই আমার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। আওয়ামী লীগ বরাবরই তরুণদের নিয়ে ভাবে। তাই দল হিসেবে আওয়ামী লীগই তরুণদের অন্যতম প্রধান পছন্দ।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ঢাকা-০৬ আসনের সংসদ সাঈদ খোকন বলেন, আওয়ামী লীগ বরাবরই স্মার্ট তরুণনির্ভর দল। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন যে পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, তা এখন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। পুরান ঢাকার কে এম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে আত্মপ্রকাশ ঘটে দলটির; প্রায় দুই যুগ পর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে সংগঠিত এ দলের নেতৃত্বে স্বাধীন হয় বাংলাদেশ। আওয়ামী মুসলিম লীগ নামে যাত্রা শুরু করলেও অসাম্প্রদায়িক চেতনায় ১৯৫৫ সালে কাউন্সিলে ‘মুসলিম’ শব্দটি বাদ দেওয়া হয়। নতুন নাম হয়- ‘পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগ’। স্বাধীনতার পর ‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ’ নাম নেয় দলটি, যেটি এখন প্রতিষ্ঠার ৭৫ বছর পূর্তি উদযাপন করছে স্মার্ট বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মকে সঙ্গে নিয়ে।

র‌্যালিতে অংশ নেওয়া বনশ্রী থেকে আসা যুবক রাসেল আহমেদ বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে আসতে পেরে ভালো লাগছে। বন্ধুদের সঙ্গে এসেছি, ওরা ছাত্রলীগ করে। কিন্তু আওয়ামী লীগকে আমার ভালো লাগে তাই ওদের সঙ্গে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মসূচিতে যাই।

শুক্রবার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন থেকে শোভাযাত্রা শুরু হয়ে ৩২ নম্বরে গিয়ে শেষ হবে। শনিবার রবীন্দ্র সরোবরে হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পরদিন রোববার সকাল ৭টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরপর দলের কেন্দ্রীয় নেতারা শ্রদ্ধা জানাবেন। এদিন দুপুর আড়াইটায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করবে আওয়ামী লীগ। এদিন সারা দেশে গাছ লাগানোর কর্মসূচিও পালন হবে। সোমবার সন্ধ্যায় হাতিরঝিলে হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ২৮ জুন আয়োজন করা হবে সাইকেল র‍্যালি।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

আজ বিদেশি কূটনীতিকরা ধ্বংসযজ্ঞ পরিদর্শন করবেন

৩ দিনে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল আসে সোয়া লাখেরও বেশি

বিয়ের দাবিতে আ.লীগ নেতার বাড়িতে কলেজছাত্রী

ইথিওপিয়ায় ভয়াবহ ভূমিধস, মৃত্যু ২২৯

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি শুরু

পদ্মা সেতুতে সর্বোচ্চ সতর্কতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

সেমিফাইনাল নিশ্চিতের মিশনে মাঠে নামছে বাংলাদেশ

ট্রেন চলাচল নিয়ে সিদ্ধান্ত আজ

আজ ব্যাংক খোলা থাকবে ৪ ঘণ্টা

ঢাকাসহ কয়েকটি জেলায় ৭ ঘণ্টা কারফিউ শিথিল

১০

আজ খুলছে গার্মেন্টস, আইডি কার্ডই কারফিউ পাস

১১

কারফিউ আরও শিথিল, অফিস খুলছে আজ

১২

কড়া পাহারায় মোকাম থেকে চাল সরবরাহ শুরু

১৩

শিক্ষার্থীদের কর্মসূচি নেই, ক্যাম্পাস খোলার দাবি

১৪

বিএনপির মদদ ও জামায়াত-শিবিরের পরিকল্পনায় ধ্বংসংযজ্ঞ : প্রধানমন্ত্রী

১৫

পুলিশের তিন সদস্য নিহত, আহত ১১১৭ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

১৬

বাজারে নিত্যপণ্যের সংকট নেই : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

১৭

দূরপাল্লার বাস চলবে

১৮

নতুন ভাড়াটিয়াদের তথ্য দিতে অনুরোধ ডিএমপি কমিশনারের 

১৯

২৪ জুলাই : নামাজের সময়সূচি

২০
X