কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:২২ পিএম
আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:২৬ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

মালয়েশিয়া যেতে আগ্রহীদের বিরাট দুঃসংবাদ

শ্রমবাজার ইস্যুতে মালয়েশিয়ার সঙ্গে বসতে চায় বাংলাদেশ। ছবি : সংগৃহীত
শ্রমবাজার ইস্যুতে মালয়েশিয়ার সঙ্গে বসতে চায় বাংলাদেশ। ছবি : সংগৃহীত

জুন থেকে মালয়েশিয়ায় কর্মী যাওয়া বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। তবে পরবর্তীতে কীভাবে কর্মী যাবে, কী কী করণীয় এবং শ্রমবাজার পরিস্থিতির নানা বিষয় নিয়ে মালয়েশিয়ার সঙ্গে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। এজন্য হাইকমিশনের মাধ্যমে চিঠি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. রুহুল আমিন।

রোববার (২১ এপ্রিল) প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অভিবাসন খাতের সাংবাদিকদের সঙ্গে ঈদ ও বাংলা নববর্ষ পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

এ সময় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মো. শফিকুর রহমান চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

সচিব বলেন, ৩১ মে’র মধ্যে আগের যেসব কর্মীর কোটা আছে, তারা সে দেশে প্রবেশ করতে পারবে। এই শর্ত শুধু আমাদের জন্য না, যে ১৪টি দেশ থেকে মালয়েশিয়া কর্মী নেয় সেসব দেশের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। ৩১ মে’র পর তারা তাদের ব্যবস্থাপনা রিভিউ করছে, সেটি করে পরবর্তী নিয়োগের জন্য কাজ করবে। আমাদের তরফ থেকে মালয়েশিয়ায় সবসময় যোগাযোগ আছে। আমরা বাংলাদেশ হাইকমিশনের মাধ্যমে তাদের চিঠি পাঠিয়েছি। আমাদের যে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ আছে, সেটির একটা সভা আমরা করতে চাই। তাদের পরবর্তী পরিকল্পনা আমাদের বোঝার দরকার আছে। সেভাবেই আমাদের কার্যক্রম নিতে হবে। শ্রমবাজারের যেসব সমস্যা আছে— তা নিরসনে দেশটির পরবর্তী যে নীতিমালা তৈরি হবে, সেখানে সেসব বিষয় নিশ্চিত করতে হবে। আমরা সেজন্য ওয়ার্কিং গ্রুপের সভা করতে চাই। আগামী মে মাসের মধ্যে সভা করার প্রস্তাব জানিয়েছি। মালয়েশিয়া এবং আমরা সভার এজেন্ডা ঠিক করছি।

তিনি আরও বলেন, এই শ্রমবাজারে সিন্ডিকেট নিয়ে কথা আছে। এগুলো নিয়ে আমরা নিয়মিত আলোচনা করছি। সবমিলিয়ে আমরা এজেন্ডা ঠিক করছি বৈঠকের। আমরা মে মাসের মধ্যেই বসতে চাই। তবে মালয়েশিয়ার সরকারের ওপর নির্ভর করছে কবে নাগাদ বৈঠক হতে পারে।

প্রসঙ্গত, মালয়েশিয়ায় যাওয়া বাংলাদেশি শ্রমিকরা ব্যাপক শোষণ ও অবিচারের মধ্যে রয়েছেন। মালয়েশিয়াকে তাদের স্বার্থ রক্ষায় উদ্যোগ নেওয়ার জন্য শুক্রবার (১৯ এপ্রিল) জেনেভা থেকে এক বিবৃতি দিয়েছে জাতিসংঘ। ওই বিবৃতিতে জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, কয়েক মাস ধরে মালয়েশিয়ায় বসবাসকারী বাংলাদেশি শ্রমিকরা খুব খারাপ অবস্থায় আছেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, শ্রমিকদের প্রতি শোষণ, অবিচার ও অন্যান্য মানবাধিকার লঙ্ঘন থেকে রক্ষা করার পদক্ষেপ নিতে হবে।

এ প্রসঙ্গে সচিব জানান, আমরা হাইকমিশনের মাধ্যমে বিষয়টি রিভিউ করছি। এটি প্রক্রিয়াধীন। আমরা আমাদের প্রতিক্রিয়া অবশ্যই জানাব। তবে আমার কাছে যে আপডেট আছে— তার পরিপ্রেক্ষিতে বলতে পারি— এখানে দুই ধরনের কর্মী আছে। একটি হচ্ছে যারা ডিমান্ডের বিপরীতে যাচ্ছে কিন্তু কাজ পাচ্ছে না, আরেকটি হচ্ছে ভিজিট ভিসায় গেছেন অথবা চুক্তি শেষ হওয়ার পর ওভার স্টে করছেন। এজন্য কখনো কখনো সংখ্যাটি বড় মনে হচ্ছে। আমি খোঁজ নিয়েছি, ডিমান্ডের বিপরীতে যারা গিয়েছেন কিন্তু কাজ পাননি, এমন সংখ্যা প্রায় ৫ হাজার। কিন্তু যদি অন্যান্য ভিসায় গিয়ে যারা কাজ পাননি, তাদের হিসাব করলে এই সংখ্যা অনেক বেশি হতে পারে। আমরা আশা করছি যে, ডিমান্ডের বিপরীতে যারা গেছেন কাজ পাননি, তাদের ৩১ মে’র পরেই কাজে নিয়োগ দেওয়া হতে পারে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ঝিনাইদহে ধর্ষণ মামলায় ইউপি চেয়ারম্যানের যাবজ্জীবন

ঝড়ের মধ্যে চাঁদপুরে বিদ্যুতের ২৩ মিটার চুরি

ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষয়ক্ষতি পরিদর্শনে পটুয়াখালী যাবেন প্রধানমন্ত্রী

ঘূর্ণিঝড় রিমাল / বরগুনায় পানিবন্দি ১০ হাজার পরিবার

আরও তিন উপজেলার ভোট স্থগিত

পরীক্ষা দিতে গিয়ে নিখোঁজ, খালে মিলল মরদেহ

সরকারি চাকরিতে ৩ লাখ ৭০ হাজার পদ ফাঁকা : জনপ্রশাসনমন্ত্রী

সর্বজনীন পেনশন স্কিম বাতিলের দাবি বুটেক্স শিক্ষকদের

আম্বানির ছেলের বিয়েতে মঞ্চ মাতাবে শাকিরা, ডুয়া লিপা ও এ আর রহমান

গভীর রাতে ঘরে ঢুকে নাতি-দাদির প্রাণ নিল ডাকাতদল

১০

অভিজ্ঞতা ছাড়া ইবনে সিনায় নিয়োগ, পাবেন অনেক সুবিধা

১১

ঘুর্ণিঝড় রিমাল / গৌরনদী উপজেলা পরিষদ নির্বাচন স্থগিত

১২

গাজীপুরে কাভার্ডভ্যান চাপায় পোশাক শ্রমিক নিহত

১৩

উপকূলে এখনো থামেনি ঘূর্ণিঝড় রিমালের দাপট

১৪

দেশ বাঁচাতে হলে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে : দুদু

১৫

ভারতীয় বিশ্বকাপ স্কোয়াডের আইপিএল পারফরম্যান্স কেমন

১৬

আন্তর্জাতিক সংস্থায় চাকরি, বেতন ৬৩,৯৬৪ টাকা

১৭

অবৈধ মাটির ট্রাক চলাচলে সড়ক ও ফসলি জমি হুমকির মুখে  

১৮

আজই ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিচ্ছে ইউরোপের ৩ দেশ

১৯

গুচ্ছে ভর্তি আবেদনের সময় বাড়ল

২০
X