কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ২১ মে ২০২৪, ০৮:৪৩ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

ইরানি জনগণের মাঝে প্রেসিডেন্ট রাইসি কেন জনপ্রিয় ছিলেন?

ইরানি জনগণের মাঝে ইব্রাহিম রাইসি ছিলেন একজন জনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট। ছবি : সংগৃহীত
ইরানি জনগণের মাঝে ইব্রাহিম রাইসি ছিলেন একজন জনপ্রিয় প্রেসিডেন্ট। ছবি : সংগৃহীত

ইরানের সদ্য প্রয়াত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি ছিলেন একজন জনপ্রিয় নেতা। দেশে এবং আন্তর্জাতিক মঞ্চে একজন প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব হিসেবে নিজের অবস্থান গড়েন তিনি। ইরানি জনগণের মাঝে প্রেসিডেন্ট রাইসি কেন জনপ্রিয় ছিলেন তা নিয়ে একটি বিশ্লেষণ প্রকাশ করেছে দেশটির সংবাদমাধ্যম পার্সটুডে।

বিশ্লেষকের মতে : আয়াতুল্লাহ রাইসি ছিলেন একজন জনপ্রিয় নেতা। তিনি কাউকে কটাক্ষ করে কথা বলতেন না এবং কারো সঙ্গে বাদানুবাদেও জড়াতেন না। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে তাকে কখনো কোনো কর্মসূচি নিতে দেখা যায়নি।

ইব্রাহিম রাইসি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নানা প্রজেক্টের কাজের অগ্রগতি দেখার জন্য এত ঘন ঘন সারাদেশ চষে বেড়াতেন, দূরদূরান্তের ইরানি জনগণ তার শাহাদাতের খবর শুনে একথা বলাবলি করেন, মনে হয় তিনি এই সেদিন আমাদের প্রদেশ সফরে এসেছিলেন। ইরানি জনগণ যে কারণে তাদের প্রেসিডেন্টের মৃত্যু মেনে নিতে পারছেন না তা হচ্ছে, তারা বহুবার কাছে থেকে আয়াতুল্লাহ রাইসিকে দেখেছেন এবং তার সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। এমন নেতাকে এত সহজে হারানোর বিষয়টি মেনে নেওয়া সম্ভব নয়।

করোনা মহামারির কঠিন দিনগুলোতে আয়াতুল্লাহ রাইসি বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকগুলো এত বেশি পরিদর্শন করেছেন, ইরানের সব জনগণের কাছে মনে হচ্ছে, তারা সবাই কাছে থেকে রাইসিকে দেখেছেন। স্বাভাবিকভাবেই এমন একজন প্রেসিডেন্টকে হারানোর বেদনা সহজে মেনে নেওয়া যায় না।

আয়াতুল্লাহ রাইসি ছিলেন একজন জনপ্রিয় নেতা। তিনি কাউকে কটাক্ষ করে কথা বলতেন না এবং কারো সঙ্গে বাদানুবাদেও জড়াতেন না। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে তাকে কোনো কর্মসূচি নিতে দেখা যায়নি। কোনো কারণে তিনি জনগণকে উদ্বিগ্ন হতে দেননি। বিতর্কের ঊর্ধ্বে থাকা এমন একজন মুত্তাকি নেতারই জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকার কথা এবং হয়েছেও তাই।

প্রেসিডেন্ট রাইসি ২০১৭ সালে প্রথমবারের মতো প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নিলেও জয়ী হতে পারেননি। এর আগে তিনি যখন ইমাম রেজা (আ.)-এর মাজার ট্রাস্টের প্রধান ছিলেন তখন তিনি জনগণের মাঝে আধ্যাত্মিকতার প্রতি আকর্ষণ তৈরি করতে সক্ষম হন।

২০১৭ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে পরাজিত হওয়া সত্ত্বেও তিনি জনগণের মাঝে ধর্মীয় মূল্যবোধ ও ধার্মিকতার প্রসার ঘটাতে সক্ষম হয়েছিলেন। ২০১৭ সালেই তাকে বিচার বিভাগের প্রধান হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার পর সেখানেও তিনি জনগণকে আধ্যাত্মিকতার প্রতি আকৃষ্ট করতে সক্ষম হন। ২০২১ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়লাভ করার পর এই কাজ তিনি আরো স্বাচ্ছন্দ্যে সম্পন্ন করেন।

একজন মানুষের অন্তরে সত্যিকার অর্থে খোদাভীতি থাকলেই কেবল ৩টি আলাদা আলাদা দায়িত্ব পালনের সময় জনগণকে ধর্ম পালনের দিকে আহ্বান করার কাজটি এত সূচারুভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব।

বাহ্যিকভাবে আয়াতুল্লাহি রাইসি আমাদের মাঝ থেকে চিরবিদায় নিয়েছেন কিন্তু তার একটি বড় অর্জন ছিল ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানে জনগণের জন্য একটি জবাবদিহিমূলক সরকার ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা যা তার শাহাদাতের মাধ্যমে দৃঢ়তর ও গভীরতর হয়েছে। শহীদের রক্ত সব সময় শত্রুর আকাঙ্ক্ষা নস্যাত করে দেয়। ইরানি জনগণকে সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তোলার কাজে এদেশের শত্রুরা যে কোটি কোটি ডলার খরচ করছে, আয়াতুল্লাহ রাইসির শাহাদাতের ফলে তার কার্যকারিতা ব্যর্থ হতে বাধ্য।

লে. জেনারেল কাসেম সোলায়মানির শাহাদাতের ফলে যদি ইরানের শক্তিমত্তা ও সামাজিক বন্ধন শক্তিশালী হয়ে থাকে তাহলে আয়াতুল্লাহ রাইসির শাহাদাতের ফলে ইরানের সরকার ব্যবস্থার প্রতি জনগণের আস্থা ও বিশ্বাস যে শক্তিশালী করবে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, বাড়ছে নানা রোগবালাই

জাবির সাবেক উপাচার্য মারা গেছেন

চিকিৎসকদের অবহেলায় সাপে কাটা রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

খালেদা জিয়ার আরোগ্য কামনায় যুবদলের দোয়া মাহফিল

ট্রাক্টরচাপায় প্রাণ গেল দুজনের

চাঁদা চাওয়ায় কাস্টমসের কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীর মামলা

এবার সিরাজগঞ্জে মিলল রাসেল ভাইপারের বাচ্চা, এলাকায় আতঙ্ক

এআইইউবি ও ফিলিস্তিনের শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠিত

সিলেটে তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

১৫ লাখ টাকার একটি খাসি, কেড়ে নিল লাকীর হাসি

১০

বিশ্বকে মহাবিপদ থেকে বাঁচাতে যে সতর্কবার্তা দিল তুরস্ক

১১

হত্যা নাকি মৃত্যু, দেড় মাস পর কিশোরের লাশ উত্তোলন

১২

কীসের বিনিময়ে মুক্তি পেলেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ?

১৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নৈশপ্রহরী হত্যা, দুজনের যাবজ্জীবন

১৪

খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনায় দোলাইপাড়ে বিএনপির দোয়া মাহফিল

১৫

সরকারি কর্মকর্তাদের দুর্নীতি নিয়ে সংসদে ক্ষোভ

১৬

স্মার্ট নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে ছাত্রলীগের প্রতি আহ্বান পলকের

১৭

মাদক-বাল্যবিবাহ-যৌতুক প্রতিরোধে ভূমিকা পালনকারীদের পুরস্কৃত করবে ছাত্রলীগ 

১৮

বিদ্যুৎস্পর্শে প্রাণ গেল কিশোরের

১৯

প্রধানমন্ত্রীকে খালি হাতেই ফিরতে হয়েছে : বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি

২০
X