কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ২৫ জুন ২০২৪, ০৪:৫৭ পিএম
আপডেট : ২৫ জুন ২০২৪, ০৮:৫৪ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

ইসরায়েলি হামলায় পরিবারের ১০ সদস্য হারালেন ইসমাইল হানিয়া

হামাসের শীর্ষ নেতা ইসমাইল হানিয়া। ছবি : সংগৃহীত
হামাসের শীর্ষ নেতা ইসমাইল হানিয়া। ছবি : সংগৃহীত

গাজার উত্তরাঞ্চলে আল শাতি ক্যাম্পে হানিয়া পরিবারের একটি বাড়িতে বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। হামলায় হামাসের শীর্ষ নেতা ইসমাইল হানিয়ার এক বোনসহ পরিবারের ১০ সদস্য নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (২৫ জুন) এই তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা।

গাজার স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হামলায় নিহত সবাই হানিয়াহ পরিবারের সদস্য। তবে এ বিষয়ে ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এর আগে গত এপ্রিলে ইসরায়েলের বিমান হামলায় ইসমাইল হানিয়ার তিন ছেলে ও তিন নাতি-নাতনি নিহত হয়েছিলেন। গত ১০ এপ্রিল ঈদুল ফিতরের দিন গাজার আল শাতি শরণার্থী ক্যাম্পে হানিয়ার ছেলেদের বহনকারী গাড়িতে চালানো হামলায় তারা প্রাণ হারান।

মূলত ঈদ উপলক্ষ্যে হানিয়ার ছেলেরা আল শাতি ক্যাম্পে তাদের আত্মীয়-স্বজনদের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন বলে সে সময় জানিয়েছিল ফিলিস্তিনি সংবাদমাধ্যমগুলো।

এদিকে ছেলে ও নাতি-নাতনিদের মৃত্যুর খবরে (শহীদ হওয়ায়) আল্লাহর কাছে সে সময় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন হামাসপ্রধান। তিনি বলেছিলেন, তাদের শহীদ হওয়ার মর্যাদা প্রদান করায় আল্লাহকে ধন্যবাদ।

গেল বছরের ৭ অক্টোবর থেকে গাজায় জল, স্থল ও আকাশপথে টানা হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েলি সেনারা। তাদের নৃশংস অভিযানে পুরোপুরি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে উপত্যকা। গাজা পরিণত হয়েছে মৃত্যুপুরিতে। প্রাণ হারিয়েছেন ৩৭ হাজারের বেশি নিরীহ ফিলিস্তিনি।

গাজায় ইসরায়েলি আগ্রাসনের জেরে চরম মানবিক বিপর্যয়ের মধ্যে থাকা উপত্যকাটির বাসিন্দাদের জন্য ত্রাণ কার্যক্রম চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। এমনকি ত্রাণ নিতে যাওয়া নিরীহ ফিলিস্তিনিকেও হতে হয়েছে ইসরায়েলি সেনাদের হামলার শিকার।

রোববার ফের ত্রাণ সরবরাহে ব্যবহৃত ভবন লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালিয়েছে নেতানিয়াহু বাহিনী। এতে ত্রাণবাহী ট্রাকের নিরাপত্তায় থাকা এক ব্যক্তিসহ কয়েকজন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। যুদ্ধবিরতি চুক্তির পরেও গাজায় হামলা চালিয়ে যাচ্ছে নেতানিয়াহু।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

কসবায় অ্যাম্বুলেন্স-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ২

চার্জশিট পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মোবাইল ইন্টারনেট চালুর বিষয়ে জানাল গ্রামীণফোন

‘ভিক্ষা লাগবে না একটা পত্রিকা দেন, দেশের খবর জানি’ 

প্যারিস অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যা থাকছে

যেভাবে দেখবেন অলিম্পিকে আর্জেন্টিনার ম্যাচ

শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে খুলবে ঢাবি

স্থানীয় সরকারের ২২৩ পদে নির্বাচন স্থগিত

ভালো নেই মুরগি ব্যবসায়ীরা

গাজীপুরে খুলে দেওয়া হয়েছে পোশাক কারখানা

১০

পর্যটকশূন্য কাপ্তাই পর্যটনকেন্দ্রগুলো

১১

ফিফার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ

১২

পেন্টাগনের ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ

১৩

৪ বিভাগে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস

১৪

মোবাইলে অব্যবহৃত ইন্টারনেট প্যাকেজ সম্পর্কে যা জানা গেল

১৫

আর্জেন্টিনায় হতে পারে পরবর্তী কোপা

১৬

ঢাকার রাস্তায় তীব্র যানজট

১৭

নেপালে যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত, প্রায় সব আরোহী নিহত 

১৮

চাকরির প্রজ্ঞাপনে যা আছে

১৯

কারফিউ বিরতিতে চলবে দূরপাল্লার বাস

২০
X