কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫৭ এএম
অনলাইন সংস্করণ

টিকটক নিষিদ্ধে আরও একধাপ এগোলো যুক্তরাষ্ট্র

টিকটক নিষিদ্ধে আরও একটি বিল পাস করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ছবি : সংগৃহীত
টিকটক নিষিদ্ধে আরও একটি বিল পাস করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ছবি : সংগৃহীত

জনপ্রিয় চীনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম অ্যাপ টিকটক নিষিদ্ধে আরও একটি বিল পাস করেছে যুক্তরাষ্ট্র। নতুন এই বিলে বলা হয়েছে, টিকটক আগামী ৯ মাসের মধ্যে হয়ত তার মালিকানা হস্তান্তর করবে না হলে যুক্তরাষ্ট্রে টিকটক নিষিদ্ধ করা হবে। বিলটি এখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের কাছে হস্তান্তর করা হবে এবং তিনি স্বাক্ষর করলে এটি আইনে পরিণত হবে।

টিকটকের মালিকানা হস্তান্তর অথবা নিষিদ্ধের বিধান রেখে বিলটি পাস করেছে মার্কিন সিনেট। চলতি সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের ‘হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস’-এ দ্বিতীয়বারের মতো চীনা মালিকানাধীন অ্যাপটির ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়াকে আইনে পরিণত করার প্রচেষ্টা চালানো হলো।

মার্কিন হাউজে বিলটির পক্ষে ভোট পড়েছে ৩৬০-৫৮। এতে উল্লিখিত একটি শর্তে টিকটকের মালিক কোম্পানি বাইটড্যান্সকে এক বছরের মধ্যে কোম্পানি বিক্রি করে দেওয়ার বাধ্যবাধকতা দেওয়া হয়েছে। না হলে যুক্তরাষ্ট্রের সব অ্যাপ স্টোর থেকে অ্যাপটি সরিয়ে ফেলা হবে। তবে, এরপরও ব্যবহারকারীদের জন্য অন্যান্য উৎস থেকে অ্যাপে প্রবেশ করার সুযোগ আগের মতোই থাকবে।

মার্কিন আইনপ্রণেতারা দাবি করে আসছেন, চীনা মালিকানাধীন টিকটক যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য একটি হুমকি।

যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, অ্যাপটির মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের ওপর নজরদারি করছে চীন সরকার। আর এই কারণেই তরুণদের মধ্যে টিকটকের জনপ্রিয়তা ও ব্যবহার নিয়ে উদ্বিগ্ন যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো। শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই টিকটকের ১৭ কোটি ব্যবহারকারী রয়েছেন।

যদিও যুক্তরাষ্ট্রের এই অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছে চীন। তবে ধারণা করা হচ্ছে, বাইটড্যান্সের অ্যাপটি বিক্রি করে দেওয়ার যে কোনো ধরনের প্রচেষ্টা আটকে দিতে পারেন চীনা কর্মকর্তারা।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও ইঙ্গিত দিয়েছেন, টিকটকে নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার আইনি নথিপত্র তার ডেস্কে পৌঁছালেই তিনি এতে স্বাক্ষর করে দেবেন। বাইডেন বিলটিকে আইনে পরিণত করার নথিতে স্বাক্ষর করলে কোম্পানিটির জন্য নতুন ক্রেতা খুঁজতে বা বিষয়টি আদালতে চ্যালেঞ্জ জানাতে ১২ মাসের সময় পাবে বাইটড্যান্স।

এদিকে, বিলটি পাস হলে কোম্পানি যে মামলা করবে, তা এক রকম নিশ্চিত। এর আগে অ্যাপটি নিষিদ্ধ করার প্রচেষ্টাটি এসেছিল ট্রাম্প প্রশাসনের আমলে।

টিকটক বরাবরই বলে আসছে, তাদের কোম্পানি কখনো মার্কিন ব্যবহারকারীদের তথ্য শেয়ার করেনি এবং করবেও না।

গত মাসে ব্যবহারকারীদের উদ্দেশ্যে পোস্ট করা একটি ভিডিওতে টিকটকের সিইও শউ জি চিউ জোর দিয়ে বলেছেন, তিনি এ আইনের বিপক্ষে লড়ে যাবেন। এমনকি কংগ্রেসকে উদ্দেশ্য করে প্ল্যাটফর্মে একটি ঝুঁকিপূর্ণ প্রচারণাও চালায় কোম্পানিটি, যেখানে এই আইনের বিপক্ষে স্থানীয় প্রতিনিধিদের অভিযোগ করার আহ্বান জানানো হয় ব্যবহারকারীদের।

যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি ইউরোপীয় ইউনিয়নও টিকটকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের ইঙ্গিত দিয়েছে৷ অ্যাপের লাইট সংস্করণের কারণে কম বয়সীদের ক্ষতির আশঙ্কা প্রকাশ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ছয় বছরে দুই পিলার

লজ্জাজনক এ হারের দায় কার?

শান্তিপূর্ণ সমাজ বিনির্মাণে বুদ্ধের শিক্ষা অনুসরণ করা প্রয়োজন : প্রধানমন্ত্রী 

উপজেলা নির্বাচন / দ্বিতীয় ধাপে চেয়ারম্যান হলেন যারা

বুদ্ধ পূর্ণিমা আজ

সাঁকো নির্মাণ নিয়ে বিরোধ, যুবককে কুপিয়ে হত্যা

স্মার্ট বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা নিয়ে সভা আজ

বুধবার ঢাকার যেসব এলাকায় যাবেন না

ইতিহাসের এই দিনে স্মরণীয় যত ঘটনা

২২ মে : নামাজের সময়সূচি

১০

অবসরের পরেও চেয়ারে তিনি, ৩ দিনে ৩৪ কোটি টাকার ঘুষ

১১

নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় শিক্ষার্থী নিহত

১২

বিনা টিকিটে ১২ বছর রেল ভ্রমণ, অতঃপর...

১৩

বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নারী শ্রমিককে যৌন হয়রানি

১৪

ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের প্রথম জার্নাল প্রকাশিত

১৫

প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটিতে ‘সেমিস্টার ডে ২০২৪’ উদ্‌যাপন

১৬

ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি শ্রাবণের ওপর হামলার অভিযোগ

১৭

খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিলেন ফখরুল

১৮

যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ধরাশায়ী হলো বাংলাদেশ

১৯

রাজধানীতে বিটিআরসির অভিযান, সরঞ্জামাদি জব্দ

২০
X