ফরিদপুর প্রতিনিধি
প্রকাশ : ১০ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৭:৪৮ পিএম
আপডেট : ১০ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৮:৫৪ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

ফরিদপুরে উৎপাদিত হচ্ছে লাখ টন মুড়িকাটা পেঁয়াজ

ফরিদপুর জেলায় মুড়িকাটা পেঁয়াজের আবাদ। ছবি : কালবেলা
ফরিদপুর জেলায় মুড়িকাটা পেঁয়াজের আবাদ। ছবি : কালবেলা

চলতি বছরে ফরিদপুরে মুড়িকাটা পেঁয়াজের আবাদ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে গেছে। ফলে উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রাও ছাড়িয়ে যাবে বলে আশা কৃষক ও কৃষি কর্মকর্তাদের।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফরিদপুরের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে জেলায় পাঁচ হাজার হেক্টর জমিতে মুড়িকাটা পেঁয়াজ আবাদের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়। বছরজুড়ে পেঁয়াজের বাজারমূল্য চড়া থাকায় চাষিরা মুড়িকাটা পেঁয়াজ আবাদে ঝুঁকে পড়েন। এতে জেলায় মুড়িকাটা পেঁয়াজের আবাদ তিনশ হেক্টর বেড়ে পাঁচ হাজার তিনশ হেক্টরে দাঁড়ায়।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ফরিদপুরের উপপরিচালক কৃষিবিদ মো. রফিকুল ইসলাম জানান, এ বছর মৌসুমের শুরুতে প্রয়োজনীয় বৃষ্টিপাত থাকায় অনেকেই যথাসময়ে পেঁয়াজ রোপণ করতে পেরেছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ফলন ও মান ভালো হয়েছে উল্লেখ করে তিনি জানান, পাঁচ হাজার হেক্টর জমিতে আবাদের বিপরীতে ৭৫ হাজার টন পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়। কিন্তু আবাদের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি ফলন ভালো হওয়ায় এ বছর উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা লাখ টন ছুঁয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

তিনি আরও জানান, সারা দেশের পেঁয়াজের চাহিদা বছরজুড়ে থাকে ২৮ লাখ টন। যার মধ্যে ফরিদপুর জেলার মানুষের কাছে মসলা জাতীয় এ পণ্যের চাহিদা রয়েছে ৩০ হাজার টন।

তিনি জানান, মুড়িকাটা ও হালি পেঁয়াজ সব মিলিয়ে জেলায় উৎপাদন হয় প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ টন। যা দেশের মোট চাহিদার ২০ শতাংশ। এখানকার কৃষকরা আগেভাগেই মুড়িকাটা পেঁয়াজের আবাদ করায় ডিসেম্বরের শুরু থেকেই বাজারে উঠতে থাকে মুড়িকাটা পেঁয়াজ। কিন্তু গত শুক্র ও শনিবারের বৃষ্টির কারণে জমি থেকে পেঁয়াজ তোলা সাময়িকভাবে বন্ধ রয়েছে। রোদ হলে ফের জমি থেকে পেঁয়াজ তুলবেন চাষিরা। এতে ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতে বাজারে রাজত্ব করবে এই পেঁয়াজ।

এদিকে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. সোহেল মিয়া জানান, এই মুহূর্তে বাজারে মূল্য বেশি থাকায় জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় মূল্য নিয়ন্ত্রণে অভিযান পরিচালনার পাশাপাশি সচেতন করা হচ্ছে ব্যবসায়ীদের। তিনি ধারণা করেন, বাজারে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়লে মূল্যে প্রভাব পড়বে।

ফরিদপুরের সদর উপজেলার পেঁয়াজ চাষিরা জানান, পেঁয়াজের বাজার মূল্য ভালো থাকায় তারা জমি থেকে পেঁয়াজ তুলতে শুরু করলেও বৃষ্টির কারণে তুলতে পারছেন না। চাষিদের দাবি, সব ঠিকঠাক থাকলে ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে বাজারে রাজত্ব করা এই পেঁয়াজ ফেব্রুয়ারি ছাড়িয়ে মার্চ মাস পর্যন্ত ভোক্তার চাহিদা মেটাবে।

কৃষকদের দাবি, সার, ডিজেল ও ওষুধসহ প্রয়োজনীয় কৃষি উৎপাদন সংশ্লিষ্ট উপকরণের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় এ বছর বেড়েছে মুড়িকাটা পেঁয়াজের উৎপাদন খরচ। তাদের দাবি, এই পেঁয়াজ বাজারে ওঠার পর বর্তমান মূল্যে প্রভাব পড়বে। তবে, অতিমাত্রায় মূল্য কমে গেলে প্রান্তিক চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন বলেও আশঙ্কা করেন তারা।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

বগুড়ায় মাটি খুঁড়তে গিয়ে তিনটি গ্রেনেড উদ্ধার

টাকা-ডলার অদলবদলে রিজার্ভের পালে হাওয়া

শিশু ধর্ষণ মামলায় মাহেন্দ্র চালকের যাবজ্জীবন

সেপটিক ট্যাংকের গর্তে মাটি চাপা পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

ফোনে কথা বলার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে মৃত্যু

চাঁদার দাবিতে ৪ তরমুজ চাষিকে কুপিয়ে জখম

চট্টগ্রামের সুগার মিলের আগুন পুড়ল এক লাখ টন চিনি

কর্তৃপক্ষের সমন্বয়হীনতায় পরিস্কার পানি থেকে বঞ্চিত লক্ষাধিক মানুষ

দণ্ডিত মেজর হাফিজ আত্মসমর্পণ করবেন মঙ্গলবার

মেহেরপুরে ৫ ঘণ্টায় ১ তালাক

১০

রোহিঙ্গাদের মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তন নিশ্চিত করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

১১

তিনশ একর প্যারাবন ২১ দখলদারের কবলে

১২

১০ মাসে হাতে কোরআন লিখলেন ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী

১৩

সংসদে ১০ মিনিটের জন্য নিজেকে বিরত রাখলেন লতিফ সিদ্দিকী 

১৪

চট্টগ্রামের সুগার মিলের আগুন নিয়ন্ত্রণে

১৫

রমজানে চাকরিজীবীদের কর্মঘণ্টা কমালো আমিরাত

১৬

রাষ্ট্রপতির পুলিশ পদক পেলেন সাতক্ষীরার বায়েজিদ হোসেন 

১৭

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতাকর্মীদের বেধড়ক পিটুনি

১৮

সিন্ডিকেটের হাতে জিম্মি সরকার : ভিপি নুর

১৯

মেডিকেল শিক্ষার্থীকে গুলি, ঘটনা তদন্তে তিন সদস্যের কিমিটি

২০
X