কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ২৬ মে ২০২৪, ১১:০৯ এএম
আপডেট : ২৬ মে ২০২৪, ১১:৩৮ এএম
অনলাইন সংস্করণ

গাজায় যোদ্ধাদের হাতে গ্রেপ্তার ইসরায়েলি সেনা

গাজায় ইসরায়েলি সেনা। ছবি : সংগৃহীত
গাজায় ইসরায়েলি সেনা। ছবি : সংগৃহীত

গাজায় অভিযান যত তীব্র হচ্ছে ইসরায়েলি বাহিনীর ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণও সমান তালে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। এর মধ্যেই স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের কাছ থেকে বড় দুঃসংবাদ পেয়েছে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী। উত্তর গাজা থেকে হামাসকে নিশ্চিহ্ন করার দাবি করলেও সেই উত্তর গাজার জাবালিয়াতে প্রতিরোধ সংগঠনটির কাছে এত বড় একটি পরাজয় মানতেই পারছে না নেতানিয়াহুর সেনারা।

হামাসের সামরিক শাখা আল কাসসাম ব্রিগেডের ‍মুখপাত্র আবু উবায়দা জানান, শনিবার উত্তর গাজার জাবালিয়াতে এক সংঘর্ষের সময় বেশ কয়েকজন ইসরায়েলি সেনাকে আটক করে কাসসাম ব্রিগেডের যোদ্ধারা। এ সময় ঠিক কতজন ইসরায়েলি সেনাকে আটক করা হয়েছে সে বিষয়ে কোনো তথ্য দেননি তিনি।

কাসসাম ব্রিগেডের নিজস্ব টেলিগ্রাম চ্যানেলে আপলোড করা এক ভিডিওতে দেখা যায়, গাজার একটি টানেলের ভেতর যোদ্ধারা এক ইসরায়েলি সেনাকে আহত অবস্থায় টেনে নিয়ে যাচ্ছে। এ সময় ভিডিওতে বন্দি ইসরায়েলি সেনাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা অস্ত্র ও নিরাপত্তাসামগ্রীর ছবি দেখানো হয়। এতে ধারণা করা হচ্ছে কমপক্ষে তিন সেনাকে আটক করেছে কাসসাম ব্রিগেডের যোদ্ধারা।

আবু উবায়দা জানান, হামাস যোদ্ধারা ইহুদিবাদী সেনাদলের সঙ্গে একটি টানেলের ভিতর সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ইসারায়েলি সেনাদলের সব সদস্য নিহত, আহত ও বন্দি হয় বলে জানান তিনি। তবে হামাসের এমন দাবি সম্পূর্ণরুপে অস্বীকার করেছে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী। এক বিবৃতিতে ইসারয়েলি সেনাবাহিনী জানায়, সেনা অপহরণের কোনো ঘটনাই ঘটেনি।

এখন পর্যন্ত গাজা যুদ্ধে ইসরায়েলি বর্বর হামলায় নিহত হয়েছে অন্তত ৩৬ হাজার নিরীহ ফিলিস্তিনি। আহত হয়েছে ৮০ হাজারের বেশি মানুষ। এদিকে হামাস নেতা ওসামা হামাদান জানান, ইসরায়েলের সঙ্গে সমঝোতার ক্ষেত্রে নতুন করে আর কোনো আলোচনা হবে না। এ ধরনের আলোচনা বরং ইসরায়েলকে গাজায় আরও বেশি হামলার সুযোগ করে দেওয়া।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

সিলেটে পশুর হাটে কমছে না দাম, ক্রেতাদের অপেক্ষা

জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন রাষ্ট্রপতি

ধাওয়া দিয়ে মাঝ নদীতে লঞ্চ থামালেন ম্যাজিস্ট্রেট

গাজীপুরে মহাসড়কে যাত্রীদের ঢল, ভোগান্তি চরমে

সিলেটে ১১ ট্রাক চিনি জব্দ

কোপায় ব্রাজিলের খেলা দেখবেন না রোনালদিনহো

বসত ঘর থেকে হ্যাপি গোল্ড ও কিং ফিসার মদ উদ্ধার

মেয়াদ শেষেও বিমার টাকা দিচ্ছে না প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স!

কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে কোরবানির গরু

টঙ দোকানের আয়ে চলছে রতন বেগমের জীবনযুদ্ধ

১০

উত্তরের মহাসড়কে গাড়ির পেছনে গাড়ি, নেই যানজট

১১

তাসরিফের চোখে টিউমার ধরা পড়েছে

১২

যত্রতত্র কোরবানি করে জায়গা নষ্ট না করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

১৩

বিয়ের পর হানিমুনে না গিয়ে হজে গেলেন দম্পতি

১৪

‘হেলমেট নাই, তেল নাই’

১৫

রাস্তায় বাঁধ দিয়ে মাছের ঘের, হুমকিতে শতাধিক পাকা সড়ক

১৬

ডাকাতি করতে গিয়ে নারীর সঙ্গে খোশ-গল্প, অতঃপর...

১৭

ঢাবিতে ঈদের জামাতের সময়সূচি 

১৮

লালমনিহাটে বাড়ছে মসলার দাম

১৯

নিখোঁজের একদিন পর পুকুরে মিলল কলেজছাত্রীর লাশ

২০
X