লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি
প্রকাশ : ৩১ জুলাই ২০২৩, ১১:৫৫ এএম
আপডেট : ৩১ জুলাই ২০২৩, ১২:৩৬ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

‘অজ্ঞান না করে’ প্রসূতির সিজার, চারজনের বিরুদ্ধে মামলার নির্দেশ

উপশম হাসপাতাল। ছবি : সংগৃহীত
উপশম হাসপাতাল। ছবি : সংগৃহীত

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে হাসপাতালে অজ্ঞান (এনেসথেসিয়া) না করে সিজার করায় ফাতেমা বেগম নামে এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগে দুই চিকিৎসকসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মামলা নিতে সংশ্লিষ্ট থানাকে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (৩১ জুলাই) সকালে বাদীর আইনজীবী মো. রেহানুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অভিযুক্ত চিকিৎসকরা হলেন নাজমুল হক ও গুনময় পোদ্দার।

এর আগে রোববার (৩০ জুলাই) সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি অঞ্চল রামগঞ্জ আদালতের বিচারক আনোয়ার হোসেন এ নির্দেশ দেন। নিহত ফাতেমার স্বামী মনর আলী আদালতে এ সংক্রান্ত অভিযোগ দায়ের করেন।

বাদী মনর আলী রামগঞ্জ উপজেলার লামচর ইউনিয়নের দক্ষিণ হাজিপুর গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে।

বাদীর আইনজীবী বলেন, অচেতন (অ্যানেসথেসিয়া) না করেই ভিকটিমের অস্ত্রোপচার (সিজার) করা হয়। এতে ভিকটিম মারা যান। এ ঘটনায় বাদী আদালতে অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনাটি আমলে নিয়ে বিচারক রামগঞ্জ থানার ওসিকে মামলা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত ডা. নাজমুল হক রামগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জুনিয়র কনসালটেন্ট ও গুনময় পোদ্দার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা। এ ছাড়াও নাজমুল রামগঞ্জের নিউ উপশম জেনারেল হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ও গাইনি বিশেষজ্ঞ এবং গুনময় উপশম হাসপাতালে অ্যানেসথেসিয়া বিশেষজ্ঞ ও মেডিকেল অফিসার হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন বলে জানা গেছে।

অভিযুক্ত অন্যরা হলেন উপশম হাসপাতালের চেয়ারম্যান মায়া বেগম ও ব্যবস্থাপক (ম্যানেজার) জসিম উদ্দিন।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ৪ জুলাই বাদী মনর আলীর স্ত্রীর ফাতেমার প্রসবব্যথা ওঠে। তাকে রামগঞ্জে উপশম হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে হাসপাতালের ব্যবস্থাপক জসিম জানান, ফাতেমাকে দ্রুত সিজার করাতে হবে। গাইনি বিশেষজ্ঞ নাজমুলের অধীনে তার সিজার হবে। ঘটনার দিন বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তাকে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর ডা. নাজমুল ও গুনময়ও অপারেশন কক্ষে প্রবেশ করেন। কিছুক্ষণ পর ফাতেমা প্রচণ্ড জোরে চিৎকার করে ওঠেন। পরে নাজমুল অপারেশন থিয়েটার থেকে বের হয়ে জানান, প্রসূতির কন্যাসন্তানের জন্ম হয়েছে। একপর্যায়ে তাকে (ফাতেমা) অপারেশন কক্ষ থেকে বের করা হয়। এ সময় ফাতেমার স্বজনদের জানান, ডা. নাজমুল ও গুনময় তার কলিজা ছিঁড়ে ফেলেছে, পেটে প্রচণ্ড যন্ত্রণা। তাকে অচেতন (অ্যানেসথেসিয়া) না করেই পেটে ছুরি চালানো হয়েছে। এতে চিৎকার দিলে ডা. গুনময় তার মুখ ও হাসপাতালের নার্সসহ কর্মচারীরা হাত-পা চেপে ধরেন। পরে ডা. নাজমুলের নির্দেশনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ফাতেমাকে কুমিল্লা মেডিকেলে রেফার করে। সেখানে নেওয়ার পথেই ফাতেমা মারা যান।

মনর আলী বলেন, আমার স্ত্রীকে অজ্ঞান না করেই সিজার করা হয়েছে। তার পেটের বাম পাশে অস্বাভাবিকভাবে ফুলে ছিল। চিকিৎসকের ভুল চিকিৎসার কারণেই আমার স্ত্রী মারা গেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও এর সঙ্গে জড়িত। আমি তাদের বিচার চাই।

ডা. গুনময় পোদ্দার বলেন, অ্যানেসথেসিয়া ছাড়া কোনো রোগীর অপারেশন করা সম্ভব নয়। ওই রোগীকে অ্যানেসথেসিয়া দেওয়া হয়েছে। পরে তার চেতনা ফিরলে আমি অপারেশন কক্ষ থেকে বের হয়ে আসি। প্রসূতির মৃত্যুর বিষয়টি কেউ আমাকে জানায়নি। কী কারণে তার মৃত্যু হয়েছে তাও সঠিকভাবে বলতে পারছি না।

ডা. নাজমুল হক বলেন, সিজারের পর রোগী স্ট্রোক করেছেন। এ জন্য তাকে দ্রুত কুমিল্লা মেডিকেলে রেফার করা হয়। সব নিয়ম মেনেই রোগীর সিজার করা হয়েছে। আমাদের কোনো ত্রুটি ছিল না।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

এক শর্তে জাহাজে হামলা বন্ধের বিষয়টি বিবেচনা করবে ইয়েমেন

গাজীপুরে মার্কেটে আগুন

শিক্ষার্থীকে শাসন করায় শিক্ষককে বেধড়ক মারপিট

প্যারিসে একুশের কবিতা পাঠ ও আলোচনা সভা

রাশিয়ার ভয়ে পিছু হটল ন্যাটো

নসিমন-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে নিহত ২

২৮ ফেব্রুয়ারি : কী ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনে

বুধবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

২৮ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

কর্ণফুলী নদীতে ৩ দিন বন্ধ থাকবে ফেরি চলাচল

১০

মিয়ানমার সীমান্ত এখন শান্ত, ফের গোলাগুলি শুরুর আশঙ্কায় আতঙ্ক

১১

বোনাস দাবিতে সার কারখানা শ্রমিকদের মানববন্ধন

১২

সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট শুরু আজ

১৩

হাসপাতালে রেখে তরুণ-তরুণী উধাও, ছোটমণি নিবাসে ঠাঁই হলো নবজাতকটির

১৪

চট্টগ্রামে শাস্তির মুখে ৮ ল্যাব-হাসপাতাল

১৫

এবার বাড়ছে সব ধরনের ছোলা ও ডালের দাম

১৬

বিধবা মেয়েকে নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে চলন্ত ট্রেনে বাবার মৃত্যু

১৭

দুই সন্তানের জননীকে নিয়ে ‘উধাও’ ইউপি সদস্য

১৮

স্বামী কারাগারে, সন্তান ফেলে উধাও গৃহবধূ

১৯

বেসরকারি ৩ ক্লিনিককে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

২০
X