কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
প্রকাশ : ১৬ জুন ২০২৪, ০৫:৩০ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

মৌলভীবাজারে রাস্তা-কালভার্ট বিধ্বস্ত, দুর্ভোগে ১০ হাজার বাসিন্দা

ভারি বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে বিধ্বস্ত রাস্তা কালভার্ট। ছবি : কালবেলা
ভারি বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে বিধ্বস্ত রাস্তা কালভার্ট। ছবি : কালবেলা

মৌলভীবাজারের বড়লেখার দুর্গম পাহাড়ি জনপদ বৃহত্তর বোবারথল গ্রামের ১০ হাজার মানুষের যাতায়াতের একমাত্র রাস্তাটি ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে সৃষ্ট টানা ভারি বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে বিধ্বস্ত হয়েছে। ধসে পড়েছে এলাকাবাসীর অর্থায়নে নির্মিত ৪টি কালভার্ট। এতে এলাকাবাসী চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন।

জানা গেছে, বড়লেখা উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১২ কিলোমিটার দূরবর্তী বৃহত্তর বোবারথল গ্রামে রয়েছে একটি হাইস্কুল, ৪টি প্রাইমারি স্কুল, দুটি মাদ্রাসা, দুটি উপজাতি পল্লী ও একটি বিজিবি ক্যাম্প। ওই এলাকায় অন্তত ১০ হাজার মানুষ বসবাস করেন। তাদের প্রধান জীবিকা কৃষি। প্রতিদিন কৃষিপণ্য বিক্রয় করতে উপজেলা সদরে যেতে গিয়ে বেহাল যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাতে হতো। এ জন্য গত ৩-৪ মাস পূর্বে এলাকাবাসী চাঁদা তোলে ছোটলেখা-বোবারথল রাস্তাটি সংস্কার করেন। নিজেদের অর্থায়নে বেশ কয়েকটি কালভার্টও নির্মাণ করেন। কিন্তু সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে সৃষ্ট টানা ভারি বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে স্বেচ্ছাশ্রমে সংস্কার করা রাস্তা, কালভার্ট ও রাস্তায় সরকারিভাবে করা আংশিক ইটসলিং। এতে সেই আগের মতোই এলাকার সর্বস্তরের জনসাধরণ দুর্ভোগে পড়েছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, রাস্তাটির নালিখাই, কাঁঠালিগাছ ও চইলতারপুল নামক স্থানের চারটি কালভার্ট ভারি বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে ভেঙে গেছে। ঢলের পানিতে ভেঙেছে রাস্তা, উঠে গেছে ইটসলিং। এতে রাস্তাটি আবারও এলাকাবাসীর চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

এলাকার বাসিন্দা ব্যাংক কর্মকর্তা মো. বদরুল ইসলাম, শিক্ষানুরাগী ও সমাজসেবক ফখরউদ্দিন, সাবেক প্রধান শিক্ষক তৈমুছ আলী প্রমুখ জানান, বছরের পর বছর বোবারথলের লোকজন মারাত্মক দুর্ভোগ পোহাচ্ছিলেন। গত শুকনো মৌসুমে এলাকাবাসীর অর্থায়নে রাস্তাটি সংস্কার করা হয়। এ ছাড়া সরকারিভাবেও কিছু জায়গা ইটসলিং হয়। যার কারণে যাতায়াতের ক্ষেত্রে লোকজনের দীর্ঘদিনের কষ্ট অনেকটা লাঘব হয়। কিন্তু ঘূর্নিঝড় রিমালের কারণে সৃষ্ট টানা ভারিবর্ষণে ও পাহাড়ি ঢলে রাস্তাটির বিভিন্ন জায়গা ভেঙে গেছে। ধসে পড়েছে সদ্য নির্মিত চারটি কালভার্ট। উঠে গেছে রাস্তার ইটসলিং। ফলে আবারও বিচ্ছিন্ন যোগাযোগ ব্যবস্থা।

ব্যবসায়ি আব্দুল হাছিব জানান, রাস্তা সংস্কার হওয়ায় ছোটলেখা বাজার থেকে বোবারথল বাজারে একবস্তা চাল নিতে খরচ হতো ৪০ থেকে ৫০ টাকা। কিন্ত রাস্তা ধসায় ও কালভার্ট ভাঙ্গায় এখন ব্যয় হচ্ছে ২শ থেকে ৩শ টাকা। এমনিতেই দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি। তার ওপর রাস্তার দুরাবস্থার জন্য মানুষের ব্যয় বাড়ায় সাধারণ জনগণ ও ব্যবসায়িরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

এলাকাবাসীর দাবী সরকারিভাবে রাস্তার সংস্কার ও কালভার্ট নির্মাণের জন্য যেন দ্রুত উদ্যোগ নেওয়া হয়।

উপজেলা প্রকৌশলী প্রীতম সিকদার জয় জানান, রাস্তা সংস্কার ও কালভার্টগুলো এলাকাবাসীর অর্থায়নে নির্মিত হয়ে থাকলে দেখভাল তাদেরকেই করতে হবে। তবে এই রাস্তাটির উন্নয়নে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। অনুমোদন পেলে রাস্তার সঙ্গে কালভার্টগুলোও নির্মাণ করা হবে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

কারফিউর প্রভাবে সুনশান কুয়াকাটা সৈকত

মানিকগঞ্জে পিকনিকের নৌকা ডুবির ঘটনায় নিহত ১, নিখোঁজ ২

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন / সরে দাঁড়ালেন বাইডেন, প্রার্থিতার পথে এগিয়ে কমলা হ্যারিস

ড. ইউনূসের আবেদন খারিজ, মামলা চলবে

জনমনে স্বস্তি না ফেরা পর্যন্ত কারফিউ চলবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রেমিককে যা বললেন ক্যানসার আক্রান্ত হিনা 

সব আরোহী মারা গেলেও বেঁচে ফিরলেন পাইলট!

অনির্দিষ্টকালের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা

কসবায় অ্যাম্বুলেন্স-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ২

চার্জশিট পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেওয়া হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

১০

মোবাইল ইন্টারনেট চালুর বিষয়ে জানাল গ্রামীণফোন

১১

‘ভিক্ষা লাগবে না একটা পত্রিকা দেন, দেশের খবর জানি’ 

১২

প্যারিস অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যা থাকছে

১৩

যেভাবে দেখবেন অলিম্পিকে আর্জেন্টিনার ম্যাচ

১৪

শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে খুলবে ঢাবি

১৫

স্থানীয় সরকারের ২২৩ পদে নির্বাচন স্থগিত

১৬

ভালো নেই মুরগি ব্যবসায়ীরা

১৭

গাজীপুরে খুলে দেওয়া হয়েছে পোশাক কারখানা

১৮

পর্যটকশূন্য কাপ্তাই পর্যটনকেন্দ্রগুলো

১৯

ফিফার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ

২০
X