কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ০৭ জুন ২০২৩, ০৫:০৯ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

তারেক-জোবাইদার বিরুদ্ধে ২৪ জনের সাক্ষ্য শেষ

তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান। পুরোনো ‍ছবি
তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান। পুরোনো ‍ছবি

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় পলাতক আসামি তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের বিরুদ্ধে আরও চারজন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। আজ বুধবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ মো. আছাদুজ্জামানের আদালতে তারা এ সাক্ষ্য দেন। এ নিয়ে মামলাটিতে ৫৬ সাক্ষীর মধ্যে ২৪ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলো। এরপর আদালত পরবর্তী সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য আগামীকাল বৃহস্পতিবার দিন ঠিক করেছেন।

সাক্ষীরা হলেন—কর কমিশনার নাফিজ আহমেদ আখতার, প্রধান সহকারী মোস্তাফিজুর রহমান, উপ-করকমিশনার মহিদুল ইসলাম ও ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের কার্ড ডিভিশনের প্রিন্সিপাল অফিসার কাজী মইনুদ্দিন চিশতিয়া।

২০২২ সালের ১ নভেম্বর পলাতক তারেক ও জোবাইদার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। চলতি বছরের ৫ জানুয়ারি আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানার তামিল প্রতিবেদন গ্রহণ করেন। এরপর তারেক রহমান ও তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার আদেশ দেন আদালত। এরপর গত ১৩ এপ্রিল আদালত পলাতক তারেক ও জোবাইদার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মাধ্যমে বিচার শুরুর আদেশ দেন। গত ২১ মে আদালতে মামলার বাদী দুদকের উপপরিচালক মোহাম্মদ জহিরুল হুদা সাক্ষ্য দেন।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ঘোষিত আয়ের বাইরে ৪ কোটি ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬১ টাকার মালিক হওয়া এবং সম্পদের তথ্য গোপন ও জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর রাজধানীর কাফরুল থানায় এ মামলা করে দুদক। মামলায় তারেক রহমান, জোবায়দা রহমান ও তার মা অর্থাৎ তারেক রহমানের শাশুড়ি ইকবাল মান্দ বানুকে আসামি করা হয়। ২০০৮ সালে তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। এরপরই মামলা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন জোবায়দা। ওই বছরই এ আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

এর বিরুদ্ধে আপিল করলে আপিল বিভাগ হাইকোর্টের আদেশ বহাল রাখেন। এ সংক্রান্ত চূড়ান্ত শুনানি শেষে ২০১৭ সালের ১২ এপ্রিল হাইকোর্ট জোবায়দার করা মামলা বাতিলের আবেদন খারিজ (রুল ডিসচার্জ) করে রায় দেন। একই সঙ্গে ওই মামলায় আট সপ্তাহের মধ্যে জোবাইদাকে বিচারিক আদালতে উপস্থিত হতে নির্দেশ দেওয়া হয়। উচ্চ আদালতের এ খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে ওই বছরই লিভ-টু-আপিল করেন জোবায়দা। এরপর প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ লিভ-টু-আপিল খারিজ করে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রাখেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ডেঙ্গুতে একজনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৭৫

নিরাপদ খাদ্যবিষয়ক প্রশাসনিক ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণে ইন্দোনেশিয়া সফরে প্রতিনিধিদল

মাছ-মাংস না থাকায় কনেপক্ষকে মারধর, ভেঙে গেল বিয়ে

নদী পার হতে গিয়ে কৃষকের মৃত্যু

খুলনা টিভি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি বাবুল, সম্পাদক অভিজিৎ

উইম্বলডনের নতুন রানী ক্রেচিকোভা

আন্তর্জাতিকভাবেও ব্যবসার সুযোগ পাচ্ছেন নারী উদ্যোক্তারা

উপনির্বাচন নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১৪, আটক ২

‘স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে কবি-সাহিত্যিক সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে’

হৃদরোগ নির্ণয় ও চিকিৎসায় কাজ করছে অ্যাপল ওয়াচ

১০

কোটা সংস্কার চাইলেন আইমান সাদিক

১১

শেখ হাসিনা আন্তঃব্যাংক ফুটবল টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন ইসলামী ব্যাংক

১২

নাফ নদী থেকে ২ মরদেহ উদ্ধার

১৩

মধ্যরাতে ঘুরাঘুরি করছিল ৩ শিশু, উদ্ধার করল পুলিশ

১৪

মাদক নিরাময়ে ভূমিকা রাখায় পুরস্কার পাচ্ছে ওয়েসিস

১৫

দৌলতদিয়ায় ১০ কেজির বোয়ালের দাম ১৫ হাজার টাকা

১৬

জয়সওয়াল ও গিলের ব্যাটে ভারতের সিরিজ জয়

১৭

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন বন্ধ করতে বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

১৮

সেতু ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, দুর্ভোগে এলাকাবাসী

১৯

মেসেঞ্জারে বড় ভাই না ডাকায় ভেঙে ফেলল মাথার খুলি

২০
X