কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ০৩ ডিসেম্বর ২০২৩, ১২:০২ এএম
অনলাইন সংস্করণ
ইআরডিএফবি’র আলোচনা সভায় বক্তরা

‘উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আ.লীগ সরকারের বিকল্প নেই’

অপরাজনীতিমুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত ও শিক্ষা সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ শীর্ষক এই আলোচনা সভায় অতিথিরা। ছবি : কালবেলা

দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে এবং অপরাজনীতিমুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, শিক্ষা সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরবারের কোনো বিকল্প নেই। শনিবার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে অনুষ্ঠিত এক আলোচনা সভায় বক্তরা এমন মন্তব্য করেন।

এডুকেশন রিসার্চ ডেভেলপমেন্ট ফোরাম অব বাংলাদেশ (ইআরডিএফবি) ‘অপরাজনীতিমুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত ও শিক্ষা সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই আলোচনা সভার আয়োজন করে। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন। সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সদস্য প্রফেসর ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন।

আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. শিরীন আখতার, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ডা. মো. ইসমাইল খান, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এএসএম লুৎফুল আহসান, রাঙ্গামটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. সেলিনা আখতার, সাউদার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ এর উপাচার্য প্রফেসর ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক এবং ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি চিটাগাং এর উপাচার্য প্রফেসর ডা. জাহিদ হোসেন শরীফ। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় চট্টগ্রামের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও বক্তব্য রাখেন।

আলোচনা সভায় বক্তরা বলেন, বর্তমানে জ্বালাও-পোড়াও, হরতাল অবরোধের নামে যেসব অপকর্ম চলছে-তা সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধ করতে হবে। দেশকে এসব অপরাজনীতি থেকে মুক্ত করতে হবে। তা না হলে দেশকে দারিদ্র্যমুক্ত করা যাবে না। স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ করা যাবে না। তারা আরও বলেন, একটা শিক্ষিত জনগোষ্ঠী গড়ে তুলতে পারলে সমাজের সব অন্ধকার দূরীভূত হবে।

সভাপতির বক্তব্যে ইউজিসি’র সদস্য প্রফেসর ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আমরা একটি শিক্ষা সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ চাই। আর স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রয়োজন স্মার্ট নাগরিক। এজন্য শিক্ষার্থীদের গবেষণা এবং উদ্ভাবনী কর্মকাণ্ডে নিয়োজিত করতে হবে। নতুন নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবনের মাধ্যমেই তৈরি হবে একটি শিক্ষা সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ঘুষ-দুর্নীতির আখড়া জাজিরার বড়কান্দি ইউনিয়ন ভূমি অফিস

মীন রাশিতে কাজে সফল হওয়ার দিন আজ

২৭ ফেব্রুয়ারি : নামাজের সময়সূচি

মঙ্গলবার রাজধানীর যেসব এলাকায় যাবেন না

কী ঘটেছিল ইতিহাসের এই দিনে

প্যারিসে ভাষা দিবস উপলক্ষে পঞ্চ কবির গানের সন্ধ্যা

বাবাকে কুপিয়ে জখম, ছেলে গ্রেপ্তার

আধিপত্য বিস্তারে দুই গ্রুপের ককটেল বিস্ফোরণ, আহত ৩

পথ হারানো ৩১ দর্শনার্থীকে উদ্ধার করল পুলিশ

শিক্ষা সফরে মদপান, দুই শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

১০

মিয়ানমারে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বিদ্রোহীরা!

১১

রাতের ঢাকায় নতুন মাদক

১২

বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন এর কার্যনির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

১৩

রংপুরকে উড়িয়ে ফাইনালে লিটনের কুমিল্লা

১৪

যুগান্তরের অবদান চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে

১৫

ভিকারুননিসার শিক্ষক মুরাদ গ্রেপ্তার

১৬

যৌন হয়রানির অভিযোগে ভিকারুননিসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা

১৭

করোনায় আক্রান্ত ডিবি প্রধান হারুন

১৮

‘বঙ্গবন্ধু বিচ’ নামকরণের প্রস্তাব বাতিল

১৯

বর্ণাঢ্য আয়োজনে চবি ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের নবীনবরণ

২০
X