কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ২১ জুন ২০২৪, ০৯:০৪ এএম
অনলাইন সংস্করণ

রাশিয়া কেন যুক্তরাষ্ট্রের কাছে আলাস্কা বিক্রি করে দিয়েছিল?

রাশিয়ার পতাকা, আলাস্কা ও যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা। ছবি : সংগৃহীত
রাশিয়ার পতাকা, আলাস্কা ও যুক্তরাষ্ট্রের পতাকা। ছবি : সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের কাছে আলাস্কা অঙ্গরাজ্য বিক্রি করে দেওয়ার পর রাশিয়া জানতে পারে- সেখানে রয়েছে বিপুল পরিমাণ স্বর্ণ, তেল ও গ্যাসের মজুত। অথচ বাংলাদেশের মোট আয়তনের চেয়েও ১২ গুণ বড় এই অঙ্গরাজ্যটি বিক্রি করা হয়েছিল পানির দামে।

মূল্যবান সব প্রকৃতিক সম্পদে ভরপুর আলাস্কার আয়তন ১৫ লাখ বর্গ কিলোমিটার। এটি বিক্রি করা হয় মাত্র ৭২ লাখ মার্কিন ডলারের বিনিময়ে!

অর্থাৎ প্রতি একর জমি মাত্র দুই সেন্ট করে বিক্রি করেছিল রুশরা। বর্তমানে এই আলাস্কা থেকে বছরে প্রায় ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের জ্বালানি তেল রপ্তানি করছে ওয়াশিংটন।

সেই হিসাবে বলা যায়- নিজেদের স্বর্ণের ডিমপাড়া হাসটিকে প্রায় বিনা মূল্যেই আমেরিকার কাছে বিক্রি করে দিয়েছিল রাশিয়া। কিন্তু কেন?

১৮৫৩ সালে ওসমানিয়া সাম্রাজ্যের সঙ্গে ক্রিমিয়া যুদ্ধে জড়ায় জারশাসিত রাশিয়া। ওসমানিয়া সাম্রাজ্যের সঙ্গে জোট বেঁধে রুশ সাম্রাজ্যের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে ইউরোপীয় শক্তি ফ্রান্স ও ব্রিটেন। ওই যুদ্ধ হেরে যায় রাশিয়া।

সাম্রাজ্য ও বাণিজ্য বিস্তারের জন্য আলাস্কায় অবস্থান পোক্ত করেছিল রাশিয়া। তবে খনিজসমৃদ্ধ অঞ্চল হলেও খুব কমসংখ্যক রুশ সেখানে গিয়ে বসতি গড়েছিলেন। দুর্গম ও প্রতিকূল আবহাওয়া এর বড় কারণ। ক্রিমিয়া যুদ্ধে হেরে রাশিয়ার জার দ্বিতীয় আলেকজান্ডার বুঝতে পেরেছিলেন, আলাস্কায় নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখা হয়তো সম্ভব হবে না।

ওই সময়ে আলাস্কার পাশে কানাডায় ব্রিটেনের উপনিবেশ ছিল। তাই, দ্বিতীয় আলেজান্ডার মনে করেছিলেন, যদি ব্রিটেন আলাস্কায় আক্রমণ করে বসে, তাহলে ভূখণ্ডটি রাশিয়ার হাতছাড়া হয়ে যাবে। তাই যুক্তরাষ্ট্রের কাছে বিশাল এই ভূমি পানির দামে বিক্রি করে দেয় রাশিয়া।

প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর আলাস্কা

২০১৮-১৯ অর্থবছরে আলাস্কার মোট জিডিপির পরিমাণ ছিল প্রায় সাড়ে ৫৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যার ৮০ শতাংশই এসেছিল পেট্রোলিয়াম খাত থেকে। এই আলাস্কা বিশ্বের জ্বালানি তেলসমৃদ্ধ অঞ্চলগুলোর মধ্যে অন্যতম।

১৯৭৮ সালে আলাস্কার সমুদ্রের তলদেশে প্রায় এক হাজার কোটি ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের সন্ধান পাওয়া যায়। গত চার দশকের বেশি সময় ধরে উত্তোলনের পরেও সেখানে আরও প্রায় ৪০০ কোটি ব্যারেল জ্বালানি তেলের মজুত রয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থার- ইউএসজিএসের তথ্যমতে, আলাস্কার উত্তর উপকূলেই ৮৫ ট্রিলিয়ন ঘনফুট প্রাকৃতিক গ্যাসের খনি রয়েছে। যার বর্তমান বাজারমূল্য প্রায় ২১২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

চাকরির প্রজ্ঞাপনে যা আছে

কারফিউ বিরতিতে চলবে দূরপাল্লার বাস

অলিম্পিকে নামার আগেই স্বর্ণপদকের স্বপ্ন মাসচেরানোর

সুষ্ঠু তদন্তে দায়ীদের শাস্তির দাবি সম্পাদক পরিষদ ও নোয়াবের

আজ বিদেশি কূটনীতিকরা ধ্বংসযজ্ঞ পরিদর্শন করবেন

৩ দিনে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল আসে সোয়া লাখেরও বেশি

বিয়ের দাবিতে আ.লীগ নেতার বাড়িতে কলেজছাত্রী

ইথিওপিয়ায় ভয়াবহ ভূমিধস, মৃত্যু ২২৯

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি শুরু

পদ্মা সেতুতে সর্বোচ্চ সতর্কতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

১০

সেমিফাইনাল নিশ্চিতের মিশনে মাঠে নামছে বাংলাদেশ

১১

ট্রেন চলাচল নিয়ে সিদ্ধান্ত আজ

১২

আজ ব্যাংক খোলা থাকবে ৪ ঘণ্টা

১৩

ঢাকাসহ কয়েকটি জেলায় ৭ ঘণ্টা কারফিউ শিথিল

১৪

আজ খুলছে গার্মেন্টস, আইডি কার্ডই কারফিউ পাস

১৫

কারফিউ আরও শিথিল, অফিস খুলছে আজ

১৬

কড়া পাহারায় মোকাম থেকে চাল সরবরাহ শুরু

১৭

শিক্ষার্থীদের কর্মসূচি নেই, ক্যাম্পাস খোলার দাবি

১৮

বিএনপির মদদ ও জামায়াত-শিবিরের পরিকল্পনায় ধ্বংসংযজ্ঞ : প্রধানমন্ত্রী

১৯

পুলিশের তিন সদস্য নিহত, আহত ১১১৭ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

২০
X