থানচি (বান্দরবান) প্রতিনিধি
প্রকাশ : ২২ নভেম্বর ২০২৩, ০৬:১১ পিএম
অনলাইন সংস্করণ
থানচিতে ১১ বম পরিবারের আর্তনাদ

ঘরে ফিরলেও মাথা গোঁজার ঠাঁই নেই

বম পরিবারের ঘরে রেখে যাওয়া সবকিছু চুরি ও নষ্ট হয়ে গেছে। ছবি : কালবেলা
বম পরিবারের ঘরে রেখে যাওয়া সবকিছু চুরি ও নষ্ট হয়ে গেছে। ছবি : কালবেলা

দীর্ঘ ৯ মাস পর সেনা বাহিনীর সহায়তায় থানচি সদর ইউনিয়নের প্রাতা বম পাড়ার ১১টি বম পরিবারের ৪৯ জন সদস্য নিজ বাড়িতে ফিরেছেন।

শনিবার (১৮ নভেম্বর) পরিস্থিতি স্বাভাবিক মনে হওয়ার কারণে ২৪ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মেজর জেনারেল মো. শাহীনুর হকের অনুমতিতে দুপুরে থানচি উপজেলা সদর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড প্রাতা বম পাড়ায় তারা প্রবেশ করেন।

ঘরে ফেরা হলেও তাদের বর্তমান অবস্থান ঘরের বাইরের খোলা পরিবেশে। কারো ঘরে টিন নেই আবার কারো ঘরে বেড়াসহ সবকিছুর করুণ অবস্থা। বেঁচে থাকার তাগিদে রেখে যাওয়া গোলা ভরা ধান, গৃহপালিত পশুপাখি ও সোলার প্যানেলসহ সব নষ্ট হয়েছে। চুরি হয়েছে ঘরের সব মূল্যবান সম্পদ। বসতবাড়ি আঙিনা এখন পরিণত হয়েছে জঙ্গলে। এমন করুণ অবস্থায় দিন পার করছেন থানচি সদর ৯নং ওয়ার্ডে প্রাতা পাড়া বাসিন্দা ১১টি বম জনগোষ্ঠী পরিবার।

বম জনগোষ্ঠীরা জানান, চলতি বছরের মার্চ মাসের প্রথম সাপ্তাহে গভীর রাতে আমাদের পাড়া (প্রাতা পাড়া) কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) সদস্য ও কয়েকজন জঙ্গি অস্ত্রসহ প্রবেশ করে। হঠাৎ তারা পাশ্ববর্তী বাকলাই সেনা ক্যাম্প লক্ষ্য করে গুলি করে হামলা করে। সেনা সদস্যরা পাল্টা হামলা করলেও আমরা (পাড়াবাসী) প্রাণভয়ে জঙ্গলে পালিয়ে যাই। কয়েকদিন জঙ্গলে থাকার পর আশেপাশের পাড়া মহল্লায় আশ্রয় নিয়ে কোনো রকমে প্রাণে বেঁচে যাই।

এদিকে কুকি চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) সদস্যদের সঙ্গে সংঘাতের পর দীর্ঘ ৯ মাস ভয়ে পালিয়ে থাকা বম জনগোষ্ঠীর লোকজন গত শনিবার (১৮ নভেম্বর) সেনাবাহিনীর সহায়তা নিজ পাড়ায় ফিরেছে। এদের মধ্যে থানচি উপজেলা সদর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের প্রাতা বমপাড়া ১১ পরিবারের ৪৯ জন সদস্য, রোয়াংছড়ি উপজেলা পাইক্ষ্যং পাড়ার ৫৭ পরিবারে ২০০ জন, দুর্নিবার পাড়া ২৭ জন এবং ক্যাপ্লাং পাড়ার ১৭ জন রয়েছে।

সরেজমিনে রোববার (১৯ নভেম্বর) ও সোমবার (২০ নভেম্বর) প্রাতা পাড়ায় গিয়ে দেখা যায়, ঘরগুলো লতাগুল্ম ঢেকে গেছে। খালিঘর পড়ে আছে এখনও। কাঠের ঘরের বারান্দায় এলোমেলোভাবে পড়ে আছে কাপড়-চোপড়। কারও কারও চোখেমুখে ঘরে ফেরার আনন্দ; তবে এর ভেতরে চাপা আতঙ্ক ও ভয় ছাড়াও খাদ্যের অভাবের আশঙ্কা করেছেন তারা।

নিজ বাড়িতে ফিরে ৭০ বছর বয়সী চমকোয়াল বম জানান, আমাদের পাড়ায় মোট ২৮টি পরিবার। গত মার্চ মাসে সবাই জঙ্গলে পালিয়ে যাই। ছোটছোট শিশুসহ পরিবারের ১০-১২ জন সদস্য নিয়ে পাশ্ববর্তী সেরকর পাড়ায় আত্মীয়ের বাড়িতে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছি। এক বড় দিদির কাছ থেকে ধান ধার নিয়ে চলছি। ঘরে রেখে যাওয়া সম্পদ, কাপড়- চোপড়, বই-পুস্তক, হাড়ি-পাতিল, এমনকি বিশুদ্ধ পানি ব্যবস্থার সবই নষ্ট হয়ে গেছে। আগামীতে জুমের ফসল না পাওয়া পর্যন্ত সরকারি বেসরকারি সহযোগিতা দিলে আমরা কোনো রকমে বাঁচতে পারব। এ ছাড়া সম্ভাব্য রাস্তা দেখছি না।

একই কথা জানালেন ছানত্লন বম, পারকেল বম, রনি বমসহ ফিরে আসা সকলেই। তারা জানান, হারানোর বেদনা, পালিয়ে থাকার বেদনা সবাইকে সমানভাবে স্পর্শ করবে না। চলতি নভেম্বর-ডিসেম্বরে আমরা জুম কাটব, এপ্রিলে-মে মাসে জুমের ধান রোপণ করব, জুলাই-আগস্ট মাসে নতুন ফসল পাব। সে পর্যন্ত আমাদের ১১টি পরিবারের ৪৯ সদস্যদের খোরাক চালানো ও ঘরবাড়ি মেরামতের জন্য সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও স্বনামধন্য ব্যক্তিদের পৃষ্টপোষকতা ও সহযোগিতা কামনা করছি।

সম্প্রতি রুমা উপজেলায় জেলার শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটি ও কেএনএফের মধ্যে চারটি বিষয়ে সমঝোতা স্মারক চুক্তি হয়েছে। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সরাসরি দ্বিতীয় দফা বৈঠক হওয়ার কথা। এই বৈঠক ফলপ্রসূ হোক সেই প্রার্থনা করি।

যোগাযোগ করা হলে সদর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডে ইউপি মেম্বার রুংত্লি বম ও ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী মেম্বার রিংকো ম্রো বলেন, আমরা পরিবারগুলোর তালিকা ও প্রয়োজনীয় সাময়িক চাহিদার রিপোর্ট নিয়ে সহযোগিতার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের জমা দিয়েছি। সেখান থেকে উপজেলা প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন হলে দ্রুতই সহযোগিতা পাওয়া যাবে।

বাকলাই সেনা ক্যাম্পের অধিনায়ক ক্যাপ্টেন সালমান বলেন, আমি প্রাতা পাড়া সরেজমিনে গিয়েছি। সাধ্যানুসারে আমাদের সেনা সদস্যদের রসদ থেকে সাময়িকভাবে বিশুদ্ধ পানি, চাল, ডাল, তেল, লবণ, চিনি, ময়দা দিয়ে সহযোগিতা করেছি। প্রয়োজনে আরো দেব। এলাকার শান্তি সুরক্ষা ও বসবাসের জন্য স্বাভাবিক জীবনযাপন নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা আমরা নেব।

যোগাযোগ করা হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ইউএনও মুহা: আবুল মনসুর বলেন, সরেজমিনে গিয়ে তদন্ত করে অবশ্যই তাদের সরকারিভাবে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

বাংলাদেশ উপকূলের ২০০ কিমির মধ্যে ঘূর্ণিঝড় রিমাল

ঘূর্ণিঝড় রিমালে জরুরি সহযোগিতার জন্য যেসব নম্বরে যোগাযোগ করবেন

ঢাকায় জনবল নিয়োগ দিচ্ছে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স

নাটক : অর্থহীন ভালোবাসা

৩০ জনকে চাকরি দেবে জেন্টল পার্ক

৩০ বছর আগেও গ্রাঁ প্রিতে স্থান পায় মালায়ালাম ভাষার সিনেমা

রূপায়ণ গ্রুপে ক্যারিয়ার গড়ার সুযোগ, আবেদন করুন শুধু পুরুষরা

ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’-এ মানুষের পাশে থাকবে ছাত্রলীগ

ঘূর্ণিঝড় রিমালের প্রভাবে কলাকাতায় ৪০০ ফ্লাইট বাতিল

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের বিমান বিধ্বস্ত, পাইলট নিহত

১০

আসন্ন ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষয়ক্ষতি রোধে ছাত্রদলের ছয় নির্দেশনা 

১১

বেড়েছে জোয়ারের পানি, দুর্বল বেড়িবাঁধ নিয়ে উৎকণ্ঠায় উপকূলবাসী

১২

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অন ক্যাম্পাস অনার্স কোর্স বন্ধের নির্দেশ মন্ত্রণালয়ের

১৩

ঘূর্ণিঝড় রিমাল / ভেসে গেছে শতাধিক মাছের ঘের

১৪

ঘূর্ণিঝড়ে স্কুল বন্ধ থাকা নিয়ে যা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

১৫

বিএনপি নেতা দুলু হাসপাতালে ভর্তি

১৬

দেশকে ভীতিকর জনপদে পরিণত করেছে সরকার : মির্জা ফখরুল

১৭

ঘূর্ণিঝড় রিমাল / মহাবিপৎসংকেতেও সৈকত ছাড়ছেন না পর্যটকরা

১৮

ঘূর্ণিঝড় রিমালে আক্রান্তদের পাশে থাকবে ছাত্রলীগ

১৯

আউটার বেড়িবাঁধ না থাকায় দুর্যোগে অরক্ষিত উপকূল

২০
X