কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ১২:০৯ এএম
অনলাইন সংস্করণ

‘নতুন প্রজন্মের মাঝে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রের তাৎপর্য তুলে ধরার আহ্বান’

স্বাধীনতা ঘোষাণাপত্রের ৫৩তম বার্ষিকী উপলক্ষে ‘স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র: স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধানের সৃষ্টিতত্ত্ব’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন (রিমি)। ছবি : কালবেলা
স্বাধীনতা ঘোষাণাপত্রের ৫৩তম বার্ষিকী উপলক্ষে ‘স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র: স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধানের সৃষ্টিতত্ত্ব’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন (রিমি)। ছবি : কালবেলা

নতুন প্রজন্মের মাঝে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রের গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরার আহ্বান জানিয়েছেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী সিমিন হোসেন (রিমি)। তিনি বলেন, স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র হলো বর্তমান সংবিধানের ভিত্তি। স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র মহান মুক্তিযুদ্ধের গতি ত্বরান্বিত করে।

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সেমিনার হলে স্বাধীনতা ঘোষাণাপত্রের ৫৩তম বার্ষিকী উপলক্ষে ‘স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র: স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধানের সৃষ্টিতত্ত্ব’ শীর্ষক এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘৭১-এর ১০ এপ্রিল স্বাধীনতার ঘোষণা পত্রের মাধ্যমে গঠিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রথম সরকারের অনুষ্ঠানিক শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয় ১৭ এপ্রিল। সেই অনাড়ম্বর আন্তরিক ভালোবাসাপূর্ণ শান্ত সুনিবিড় পরিবেশে উপস্থিত ছিলেন দেশী-বিদেশী বহু নামি সাংবাদিক। সাক্ষী হিসেবে ছিলেন হাজারো স্থানীয় মানুষ। হারমোনিয়ামে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করেন ভবেরপাড়ার ছেলেরাই। গার্ড অব অনার প্রদান করেন স্থানীয় আনসার ও পুলিশের সদস্যরা। আর এর নেতৃত্বে ছিলেন ঝিনাইদহের এসডিপিও মাহবুবউদ্দিন আহমেদ। সকল ধর্মের মানুষের একত্রিত প্রচেষ্টায় গড়ে ওঠে বঙ্গন্ধুর স্বপ্নের অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানকে করা হলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রপতি। তিনি তখনও পাকিস্তানীদের হাতে বন্দী। তাই উপরাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতির দায়িত্ব প্রাপ্ত হলেন। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পেলেন তাজউদ্দীন আহমদ। একইসঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হলো মন্ত্রী পরিষদ সদস্যদের। ঘোষণাপত্র পাঠ করলেন, অধ্যাপক ইউসুফ আলী। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম এবং হাজারো জনতার সামনে বক্তব্য রাখলেন ভারপ্রাপ্ত রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ। তাজউদ্দীন আহমদ বৈদ্যনাথতলার নামকরণ করলেন ‘মুজিবনগর’।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

মাছ শিকারের দারুণ কৌশল দারকি

উদ্ভাবন ছাড়া টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয় : ঢাবি উপাচার্য

মধ্যরাতে জবির মসজিদে ছাত্রী, কী ঘটেছিল সেদিন!

বাগেরহাটে গাছচাপা পড়ে নারীর মৃত্যু

এমপি আনার হত্যা : যশোর থেকে অভিযুক্ত শিমুলের সহযোগী গ্রেপ্তার

পারমাণু বোমা তৈরির দ্বারপ্রান্তে ইরান

নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

ঘূর্ণিঝড় রিমালের তাণ্ডবে লন্ডভন্ড মনপুরা

চাঁদপুরে ফের দেখা মিলল ভয়ংকর রাসেল ভাইপারের

মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে লাঠির আঘাতে কিশোরের মৃত্যু

১০

পুলিশ ডাকলে ডিএনএ স্যাম্পল দিতে কলকাতা যাব : আনারকন্যা ডরিন

১১

চ্যাম্পিয়ন বিকেএসপি, সেরা সাঁতারু তোফায়েল–অ্যানি

১২

ঘূর্ণিঝড় রিমাল / শ্রমে ঘামে এবার অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই

১৩

১৫ ঘণ্টার তাণ্ডবে লন্ডভন্ড বরগুনা

১৪

গ্যাসের চুলায় বানাচ্ছিলেন মদ

১৫

কার্বন নিঃসরণে উন্নত দেশগুলোই মূল অপরাধী : মেয়র আতিক

১৬

মন্দিরভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম প্রকল্পের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

১৭

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সহায়তায় এগিয়ে আসার আহ্বান ভাসানী পরিষদের 

১৮

গোলটেবিলে বক্তারা / জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় চাই বাস্তবসম্মত ও বিজ্ঞানভিত্তিক কৌশল

১৯

ধাক্কা দিয়ে ৭০ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৩

২০
X