কালবেলা প্রতিবেদক
প্রকাশ : ০৫ এপ্রিল ২০২৪, ১০:৫২ এএম
আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১:২৭ এএম
অনলাইন সংস্করণ

এক ক্লিকেই ব্যাংক থেকে হাওয়া লাখ লাখ টাকা

প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

এক ক্লিকেই ব্যাংক থেকে হাওয়া হয়েছে লাখ লাখ টাকা। এতে করে তিলে তিলে জমানো টাকা মুহূর্তেই বেহাত হয়ে গেছে গ্রাহকদের। এমনি ঘটনা ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ার বৃহত্তম ব্যাংকে। শুক্রবার (৫ এপ্রিল) আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ক্লিকেই টাকা হাওয়া হয়ে যাওয়ার ঘটনাটি ঘটেছে ব্যাংক রাকয়াত ইন্দোনেশিয়ায় (বিআরআই)। এটি দেশটির বৃহত্তম ব্যাংক। বালির বাসিন্দা নিহ লু পুতু রুস্তিনি নামের এক নারী জানান, গত বছরের শেষের দিকে তিনি নিজের পৈতৃক ভিটায় কিছু সংস্কার কাজের জন্য নিজের জমানো টাকা তুলতে এটিএমে যান। কিন্তু সেখানে গিয়ে কোনো টাকা তুলতে পারেননি।

ওই নারী জানান, তিনি দিনের বেলা পরিচ্ছন্নতাকর্মী ও রাতের বেলা আয়ার কাজ করে ৩৭ লাখ ইন্দোনেশিয়ান রুপিয়া জমান। তবে বিষয়টি নিয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বলার পর তারা জানান যে তার টাকা হাওয়া হয়ে গেছে।

তিনি আলজাজিরাকে জানান, ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে যে হ্যাকাররা তার টাকা চুরি করে নিয়েছে। তারা এটি আমাকে ফেরত দিতে পারবে না। আমাকে এ টাকা জমাতে অনেক সময় পরিশ্রম করতে হয়েছে। আর এ টাকা সেকেন্ডের মধ্যে হাতিয়ে নিয়েছে হ্যাকাররা। এটি কোনোভাবেই যথার্থ নয়।

বালির আরেক চামড়াজাত পণ্য উৎপাদনকারী দিয়াতমিকা নামের এক ব্যক্তিও একই অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, গেল বছরের আগস্টে নিজের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলতে গিয়ে তিনিও ব্যর্থ হয়েছেন। গত মে মাসে হ্যাকাররা তার ৭২ লাখ রুপিয়া হাতিয়ে নিয়েছে।

দিয়াতমিকা জানান, বিআরআই তার এ বিষয়ে দায়িত্ব নিতে অস্বীকার করেছে। তিনি বলেন, আমি তিন বছর আগে যখন অ্যাকাউন্ট খুলি তখন তারা মোবাইলে তাদের অ্যাপ ডাউনলোড করতে বলে। তবে পাসওয়ার্ড ভুলে পাওয়ায় আমি এটি কখনো ব্যবহার করতে পারিনি।

তিনি বলেন, আমরা ব্যাংকে টাকা রাখি নিরাপত্তার জন্য। তবে হ্যাকাররা যদি এতো সজজে আমাদের সব তথ্য পেয়ে যায় তাহলে ব্যাংকের নিরাপত্তায় ব্যপক ঘাটতি রয়েছে। তাদের মতো আরও অসংখ্য গ্রাহকের টাকা মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে প্রতিবেদনে।

ইন্দোনেশিয়া সাইবার অপরাধীদের জন্য একটি আকর্ষণীয় লক্ষ্যে পরিণত হয়েছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বৃহত্তম অর্থনীতি এবং চতুর্থ-সর্বোচ্চ সংখ্যক ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর দেশ এখন ইন্দোনেশিয়া।

ইন্দোনেশিয়ার ন্যাশনাল সাইবার এবং এনক্রিপশন এজেন্সির তথ্যমতে, গত বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৬ অক্টোবরের পর্যন্ত সময়ে ৩৬১ মিলিয়ন অনলাইন ট্রাফিক অসঙ্গতি দেখা দিয়েছে।

নেদারল্যান্ডসভিত্তিক সাইবার সিকিউরিটি ফার্ম সার্ফশার্কের তথ্য অনুসারে, ইন্দোনেশিয়ায় ইমেল অ্যাকাউন্টে হামলা ২০২৩ সালের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে ৮৫ শতাংশ বেড়েছে।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

প্যারিস অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যা থাকছে

যেভাবে দেখবেন অলিম্পিকে আর্জেন্টিনার ম্যাচ

শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত হলে খুলবে ঢাবি

স্থানীয় সরকারের ২২৩ পদে নির্বাচন স্থগিত

ভালো নেই মুরগি ব্যবসায়ীরা

গাজীপুরে খুলে দেওয়া হয়েছে পোশাক কারখানা

পর্যটকশূন্য কাপ্তাই পর্যটনকেন্দ্রগুলো

ফিফার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ

পেন্টাগনের ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ

৪ বিভাগে ভারি বৃষ্টির পূর্বাভাস

১০

মোবাইলে অব্যবহৃত ইন্টারনেট প্যাকেজ সম্পর্কে যা জানা গেল

১১

আর্জেন্টিনায় হতে পারে পরবর্তী কোপা

১২

ঢাকার রাস্তায় তীব্র যানজট

১৩

নেপালে যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্ত, প্রায় সব আরোহী নিহত 

১৪

চাকরির প্রজ্ঞাপনে যা আছে

১৫

কারফিউ বিরতিতে চলবে দূরপাল্লার বাস

১৬

অলিম্পিকে নামার আগেই স্বর্ণপদকের স্বপ্ন মাসচেরানোর

১৭

সুষ্ঠু তদন্তে দায়ীদের শাস্তির দাবি সম্পাদক পরিষদ ও নোয়াবের

১৮

আজ বিদেশি কূটনীতিকরা ধ্বংসযজ্ঞ পরিদর্শন করবেন

১৯

৩ দিনে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল আসে সোয়া লাখেরও বেশি

২০
X