নীলফামারী প্রতিনিধি
প্রকাশ : ২৪ মে ২০২৪, ০৫:৪০ এএম
আপডেট : ২৪ মে ২০২৪, ০৭:০৯ এএম
অনলাইন সংস্করণ

বিচার দ্রুত নিষ্পত্তি করতে আইনজীবীদের সহযোগিতা প্রয়োজন : প্রধান বিচারপতি

নীলফামারী জেলা জজ আদালতে বিচারপ্রার্থী ও সাক্ষীদের বিশ্রামাগার ‘ন্যায়কুঞ্জ’ উদ্বোধন করেন প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান। ছবি : কালবেলা
নীলফামারী জেলা জজ আদালতে বিচারপ্রার্থী ও সাক্ষীদের বিশ্রামাগার ‘ন্যায়কুঞ্জ’ উদ্বোধন করেন প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান। ছবি : কালবেলা

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেছেন, বিচার দ্রুত নিষ্পত্তি করতে আইনজীবীদের সহযোগিতা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, দেশের আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা সাধ্যমতো চেষ্টা করে যাচ্ছি। বেঞ্চ ও বারের সুসম্পর্কের মধ্য দিয়ে বিচারব্যবস্থা সমৃদ্ধ হয়। এ জন্য বিচারক এবং আইনজীবী উভয়কেই এগিয়ে আসতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সন্ধ্যায় নীলফামারী জেলা জজ আদালতে বিচারপ্রার্থী ও সাক্ষীদের বিশ্রামাগার ‘ন্যায়কুঞ্জ’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

প্রধান বিচারপতি বলেন, মামলার জট দীর্ঘদিনের সমস্যা। এ মামলার জট কমাতে গেলে আমাদের যে পরিমাণ বিচারক থাকা প্রয়োজন সেই তুলনায় বিচারক স্বল্পতা আছে। তারপরেও আমরা চেষ্টা করছি, আমাদের উচ্চতর আদালতসহ স্থানীয় আদালতসমূহের বিচারকরা সকলেই দিনরাত চেষ্টা করে যাচ্ছি। কিছু কৌশল আমরা অবলম্বন করছি। সুপ্রিম কোর্টে যেসব মামলা স্থগিত রয়েছে সেগুলো তাড়াতাড়ি শেষ করা হবে।

তিনি বলেন, একজন সাক্ষী যাতে কোনো কারণে ফিরে না যায়, ন্যায়কুঞ্জতে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে একজন সাক্ষী আদালতে যাতে সাক্ষ্য দিয়ে যেতে পারে এবং সেদিনই যেন মামলাটা শেষ করতে পারে আদালতের বিচারক সে দিকে লক্ষ রাখবেন। আমি আশা করি, এমনভাবেই মামলাজট কিছুটা হলেও কমবে।

বিচার দ্রুত নিষ্পত্তি করতে আইনজীবীদের সহযোগিতা প্রয়োজন উল্লেখ করে প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেন, সকাল ৯টায় সময় আমাদের কোর্ট শুরু হওয়ার কথা। আইনজীবীরা যদি ঠিক সময় কোর্টে না আসেন তাহলে জজ সাহেবরা কোর্টে উঠে কী করবেন। সেই জন্য আমি আইনজীবীদের কাছে বিনীত অনুরোধ করব, আপনারা সময়টা মেইনটেইন করে কোর্টে আসবেন এবং বিচারকদের অনুরোধ করব, আপনারাও সময়ের সৎ ব্যবহার করবেন। যাতে করে একদিনে কিছু মামলা নিষ্পত্তি করা যায়। এভাইে মনে হয় আমরা কিছুটা এগোতে পারব।

নীলফামারী জেলা ও দায়রা জজ মো. মাহমুদুল করিমের সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. গোলাম সারোয়ার, এবিএম গোলাম রসুল, জেলা প্রশাসক পঙ্কজ ঘোষ, পুলিশ সুপার গোলাম সবুর, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফল ইসলাম, অতিরিক্তি জেলা ও দায়রা জজ মোছা. আরিফা ইয়াসমীন মুক্তা ও একেএম জাহাঙ্গীর আলম, যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ মো. মতিউর রহমান, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মমতাজুল হক, সাধারণ সম্পাদক অক্ষয় কুমার রায় প্রমুখ।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ভাই হারালেন ডিপজল 

সংবর্ধিত হলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শুসেন চন্দ্র শীল

সিলেটে পশুর হাটে কমছে না দাম, ক্রেতাদের অপেক্ষা

জাতীয় ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন রাষ্ট্রপতি

ধাওয়া দিয়ে মাঝ নদীতে লঞ্চ থামালেন ম্যাজিস্ট্রেট

গাজীপুরে মহাসড়কে যাত্রীদের ঢল, ভোগান্তি চরমে

সিলেটে ১১ ট্রাক চিনি জব্দ

কোপায় ব্রাজিলের খেলা দেখবেন না রোনালদিনহো

বসত ঘর থেকে হ্যাপি গোল্ড ও কিং ফিসার মদ উদ্ধার

মেয়াদ শেষেও বিমার টাকা দিচ্ছে না প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্স্যুরেন্স!

১০

কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে কোরবানির গরু

১১

টঙ দোকানের আয়ে চলছে রতন বেগমের জীবনযুদ্ধ

১২

উত্তরের মহাসড়কে গাড়ির পেছনে গাড়ি, নেই যানজট

১৩

তাসরিফের চোখে টিউমার ধরা পড়েছে

১৪

যত্রতত্র কোরবানি করে জায়গা নষ্ট না করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

১৫

বিয়ের পর হানিমুনে না গিয়ে হজে গেলেন দম্পতি

১৬

‘হেলমেট নাই, তেল নাই’

১৭

রাস্তায় বাঁধ দিয়ে মাছের ঘের, হুমকিতে শতাধিক পাকা সড়ক

১৮

ডাকাতি করতে গিয়ে নারীর সঙ্গে খোশ-গল্প, অতঃপর...

১৯

ঢাবিতে ঈদের জামাতের সময়সূচি 

২০
X