কালবেলা ডেস্ক
প্রকাশ : ১২ জুন ২০২৪, ০১:৫৬ পিএম
আপডেট : ১২ জুন ২০২৪, ০২:১২ পিএম
অনলাইন সংস্করণ

এবার আলোচনায় আফগানিস্তানের লবণখনি

লবণখনি ঘিরে নতুন স্বপ্ন দেখছে আফগানিস্তান। ছবি : সংগৃহীত
লবণখনি ঘিরে নতুন স্বপ্ন দেখছে আফগানিস্তান। ছবি : সংগৃহীত

আফগানিস্তানকে বলা হয় ধনসম্পদে ভরপুর গরীব একটি দেশ। গেল কয়েক দশক পরাশক্তিগুলোর ‘পেশিশক্তি’ দেখানোর ভূমি ছিল কাবুল। এ কারণে আফগানিস্তানের পাথুরে মাটির নিচে মজুত থাকা বিপুল প্রাকৃতিক সম্পদ আহরণ করা সম্ভব হয়নি।

কিন্তু মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনী দেশটি ত্যাগ করলে শুরু হয় নতুন এক যুগের। ধীরে ধীরে স্থিতিশীল হয় কাবুল, এখন ঘুড়ে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দিচ্ছে দেশটির অর্থনীতিও।

যার পেছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে গোটা আফগানিস্তানজুড়ে জালের মতো ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা বিভিন্ন প্রকৃতিক সম্পদের খনি। গেল অর্থবছরে দেশটির বাজেটে এই খনিগুলোর অবদান ছিল ১৭ বিলিয়ন আফগানি, এই তথ্য দেশটির খনি ও পেট্রোলিয়াম মন্ত্রণালয়ের।

এবার নতুন করে আলোচনায় আফগানিস্তানের তিনটি লবণখনি। বলা হচ্ছে- তেলখাত থেকে মাফিয়াদের ছেঁটে দেওয়ার পর লবণখনিতেও নজর দিয়েছে ইসলামি আমিরাত। অচিরেই যার সুফল পাবেন আফগানরা।

বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন বলছে, ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে আফগানিস্তান। মাটির নিজে থাকা বিপুল প্রাকৃতিক সম্পদ আহরণে নজর দিচ্ছে ইসলামিক আমিরাত। এরই অংশ হিসেবে সম্প্রতি উত্তরাঞ্চলীয় ফারিয়াব প্রদেশের তিনটি লবণ খনি খননের জন্য দরপত্র গ্রহণ করা হয়েছে। যেখানে পুরোনো মাফিয়া চক্রকে প্রবেশাধিকার দেয়নি দেশটির বর্তমান শাসকরা।

গেল মঙ্গলবার আফগানিস্তানের সংবাদমাধ্যম টোলো নিউজ এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। যেখানে জানানো হয়- দেশটির খনি ও পেট্রোলিয়াম মন্ত্রণালয় ঘোষণা করেছে— তারা তেল খাতে মাফিয়াদের প্রভাব কমিয়েছে। এখন দেশের লবণের খনিতেও তাদের প্রবেশরোধে কাজ করা হচ্ছে।

ফরিয়াবের তিনটি লবণ খনি ব্লকের দরপত্র গ্রহণকালে মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী শাহাবুদ্দিন দেলাওয়ার লবণ ব্যবসায়ীদেরও হুঁশিয়ারি দেন। বলেন, নিয়ম মেনে কাজ না করলে বাতিল হবে দরপত্র।

খনি ও পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী শাহাবুদ্দিন দেলাওয়ার বলেন, এই খনিগুলো আফগানিস্তানের জাতীয় স্বার্থ। এখানে নারী-পুরুষ, শিয়া-সুন্নি, হিন্দু-মুসলিম সবারই হক রয়েছে। এখনে কোনো অনিয়ম হলে রাষ্ট্র ক্ষতিগ্রস্ত হবে। যার প্রভাব পড়বে জনগণের জীবন-মানের ওপর।

এ সময় আফগান অর্থনীতিতে খনি ও প্রকৃতিক সম্পদের ভূমিকা তুলে ধরেন মন্ত্রী। বলেন, জাতীয় বাজেটের অর্থের বড় একটি অংশই আসে এসব খনি থেকে। জানান, গেল অর্থবছরের বাজেটে খনি ও পেট্রেলিয়াম খাতের অবদান ছিল ১৭ বিলিয়ন আফগানি।

কালবেলা অনলাইন এর সর্বশেষ খবর পেতে Google News ফিডটি অনুসরণ করুন

মন্তব্য করুন

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

অলিম্পিকে নামার আগেই স্বর্ণপদকের স্বপ্ন মাসচেরানোর

সুষ্ঠু তদন্তে দায়ীদের শাস্তির দাবি সম্পাদক পরিষদ ও নোয়াবের

আজ বিদেশি কূটনীতিকরা ধ্বংসযজ্ঞ পরিদর্শন করবেন

৩ দিনে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল আসে সোয়া লাখেরও বেশি

বিয়ের দাবিতে আ.লীগ নেতার বাড়িতে কলেজছাত্রী

ইথিওপিয়ায় ভয়াবহ ভূমিধস, মৃত্যু ২২৯

বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি শুরু

পদ্মা সেতুতে সর্বোচ্চ সতর্কতায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

সেমিফাইনাল নিশ্চিতের মিশনে মাঠে নামছে বাংলাদেশ

ট্রেন চলাচল নিয়ে সিদ্ধান্ত আজ

১০

আজ ব্যাংক খোলা থাকবে ৪ ঘণ্টা

১১

ঢাকাসহ কয়েকটি জেলায় ৭ ঘণ্টা কারফিউ শিথিল

১২

আজ খুলছে গার্মেন্টস, আইডি কার্ডই কারফিউ পাস

১৩

কারফিউ আরও শিথিল, অফিস খুলছে আজ

১৪

কড়া পাহারায় মোকাম থেকে চাল সরবরাহ শুরু

১৫

শিক্ষার্থীদের কর্মসূচি নেই, ক্যাম্পাস খোলার দাবি

১৬

বিএনপির মদদ ও জামায়াত-শিবিরের পরিকল্পনায় ধ্বংসংযজ্ঞ : প্রধানমন্ত্রী

১৭

পুলিশের তিন সদস্য নিহত, আহত ১১১৭ : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

১৮

বাজারে নিত্যপণ্যের সংকট নেই : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

১৯

দূরপাল্লার বাস চলবে

২০
X